ঢাকা, বাংলাদেশ   রোববার ১৬ জুন ২০২৪, ২ আষাঢ় ১৪৩১

লাইফস্টাইল বিভাগের সব খবর

এআই প্রেমিকের প্রেমে মজছেন নারীরা 

এআই প্রেমিকের প্রেমে মজছেন নারীরা 

ড্যানকে নিখুঁত মানুষ হিসেবে বর্ণনা করা হয়েছে যার কোনো ত্রুটি নেই। সে দয়ালু, আবেগের সময় সহযোগিতা করাসহ সবকিছু সম্পর্কেই তার ধারণা আছে। যার কথা বলা হচ্ছে, প্রকৃত অর্থে সে কোনো মানুষ নয়। ড্যান সবকিছু করার জন্য প্রস্তুত। কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা চ্যাটজিপিটির একটি ভার্সন হলো জেইলব্রেক। এটি ব্যবহারকারীর সঙ্গে স্বাধীনভাবে যোগাযোগ করতে পারবে। এজন্য নির্দিষ্ট উপায়ে এর ব্যবহার করতে হবে। কিছু চীনা নারীদের কাছে ড্যান জনপ্রিয় হতে শুরু করেছে। যেসব নারী বাস্তব জীবনে প্রেম করতে গিয়ে বিভিন্ন ধরনের হতাশায় ভুগছেন তাদের কাছে এটি জনপ্রিয় হচ্ছে। 

বার্ডস আই-এর ঈদের শার্ট

বার্ডস আই-এর ঈদের শার্ট

পবিত্র ঈদুল আজহা উপলক্ষে ফ্যাশন হাউজ বার্ডস আই তাদের শোরুমে এনেছে বিভিন্ন মোটিফের পোশাক। তবে তাদের  বিশেষ আকর্ষণ হচ্ছে নিত্য নতুন ডিজাইনের ফ্যাশনেবল শার্ট। স্কুল-কলেজ-বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রদের প্রয়োজন এবং ফ্যাশন চিন্তা করে, তরুণদের পোশাকই এখানে বেশি রাখা হয়। এ ছাড়া প্রতিটি উপলক্ষে তাদের আউটলেটে নতুনত্ব আনার চেষ্টা করে। ক্রেতাদের জন্য শার্ট ছাড়াও এখানে আরও আছে টি-শার্ট, পলো টি-শার্ট, পাঞ্জাবি, ক্যাজুয়াল শার্ট ইত্যাদি। চায়না, ইন্ডিয়া ও বাংলাদেশী কাপড়ের তৈরি শত শত ডিজাইনের এসব পোশাক সারাদেশের উপজেলা ও জেলা পর্যায়ে পাইকারি ও খুচরা বিক্রয় চলছে। আজিজ সুপার মার্কেটের দ্বিতীয় তলায় বার্ডস আইয়ের দুটি মেগা শোরুমে রয়েছে পাইকারি ও খুচরা বিক্রয়ের ব্যবস্থা। যোগাযোগ : বার্ডস আই, ২৬ ও ৮ আজিজ সুপার মার্কেট (দ্বিতীয় তলা), শাহবাগ, ঢাকা-১০০০, ফোন : ০১৯১৫০৬৮১৫৩, ০১৯৭০৯৯৬৬৬২।

ঈদ আয়োজনে দেশীদশ

ঈদ আয়োজনে দেশীদশ

বাংলাদেশের অন্যতম শীর্ষস্থানীয় দশটি ফ্যাশন ব্র্যান্ড নিপুণ, কে ক্রাফট, অঞ্জন’স, রঙ বাংলাদেশ, বাংলার মেলা, সাদাকালো, বিবিয়ানা, দেশাল, নগরদোলা ও সৃষ্টি এর সমন্বয়ে গঠিত দেশীদশ। অনন্য ভাবনায় গঠিত দেশীদশ জন্মলগ্ন থেকে গত ১৫ বছরে দেশীয় ফ্যাশন শিল্প বিকাশে নিরন্তর কাজ করে চলছে। এই আয়োজন পাবেন ঢাকার বসুন্ধরা সিটির লেভেল চার, সিলেটের কুমারপাড়া আর চট্টগ্রামের আফমি প্লাজার লেভেল ৫ এ অবস্থিত দেশীদশ আউটলেটে। ঈদ আয়োজনে থাকবে সকল ব্র্যান্ডেরই দেশীয় পোশাকের সমারোহ। শাড়ি, পাঞ্জাবি, স্ট্রিট ড্রেস, আনস্ট্রিচ ড্রেস, শার্ট, টি-শার্ট, টপস, কামিজ, পায়জামা ইত্যাদি। পোশাকের সঙ্গে অনুষঙ্গ হিসেবে পাবেন বিভিন্ন প্রকার জুয়েলারি ও এক্সেসরিজ। আউটলেটের পাশাপাশি অনলাইনেও প্রদর্শিত হবে এই ঈদ আয়োজন। দেশীদশের ফেসবুক পেজ  https://www.facebook.com/ deshidosh2009 এ দেখা যাবে এই আয়োজনের বর্ণিল সব পোশাক।

ত্বকের যত্ন

ত্বকের যত্ন

ত্যাগ ও উৎসবের আনন্দ আসতে আর মাত্র কয়েকদিন বাকি। আপনার ত্বক ঈদুল আজহার জন্য প্রস্তুত তো! যে কোনো উৎসবে নিজেকে মানানসই করতে কিছু চিন্তা-ভাবনা আমাদের থাকে, যার মধ্যে অন্যতম ত্বকের রূপচর্চা। কর্মব্যস্ততার মধ্যে জীবন কাটে প্রতিটি কর্মজীবী মানুষের। কখনো কখনো নিজের মুখটি আয়নায় দেখারও সুযোগ হয় না। তবে ঈদের দিনগুলো অন্য যে কোনো সময়ের তুলনায় আলাদা। পশু কোরবানি নিয়ে নানা ব্যস্ততা থাকলেও যেহেতু সবাই ছুটিতে থাকে তাই নেমন্তন্ন যেমন দিতে হয়, তেমনি অন্যত্র আতিথেয়তা রক্ষার্থেও যেতে হয়। এজন্য শত ব্যস্ততার মধ্যেও নিজেকে এ সময়ে রাখতে হয় পরিপাটি। পোশাক-আশাক যতই সুন্দর হোক ত্বক যেন থাকে মানানসই সেদিকেও খেয়াল রাখতে হবে। ত্বককে সুন্দর রাখতে কি করণীয়?

পোশাকে সাদৃশ্য

পোশাকে সাদৃশ্য

সংসারের বটবৃক্ষ হলো বাবা। সন্তানের যে কোনো পরিস্থিতিতে ছায়া দিয়ে আগলে রাখেন তিনি। জীবনের প্রতিটি প্রয়োজনে অপার স্নেহশীষ ভূমিকার নামই বাবা। শত আবদার যার কাছে করা যায় নির্দ্বিধায়। মায়ের পরে যে মানুষটি হয় প্রকৃত বন্ধু সেই হলো বাবা। রামপুরার বাসিন্দা অবন্তিকা এক বছর আগেই স্নাতকোত্তর (মাস্টার্স) শেষ করেছে। বাবা-মায়ের একমাত্র সন্তান। ছোটবেলা থেকেই দারুণ মেধাবী ও স্মার্ট। নতুন সংসার জীবনের বয়স প্রায় এক বছর। বর্তমানে একটি বেসরকারি প্রতিষ্ঠানে চাকরি করছেন। ব্যস্তময় দিনশেষে কোনো এক বেদনা মনের কোনে হু হু করে। কি যেন নেই কাছে। এতগুলো বছর যাদের ছায়ায় বড় হয়েছে। আজ সেই ছায়াহীন অবন্তিকা সংসার জীবনে ভালোই আছে।

নেহার বেগমের  সংগ্রামী জীবন

নেহার বেগমের সংগ্রামী জীবন

চুয়াল্লিশ বছরের নেহার বেগম। স্বামী মারা যাওয়ার পর ২০ বছর ধরে দিনমজুরি করে জীবিকা নির্বাহ করছেন তিনি। দিনমজুরি করে সংসার চালানোর পাশাপাশি ছেলেমেয়েদের দিয়েছেন পড়ালেখার খরচ। চার মেয়ের মধ্যে তিনজনকে বিয়ে দিয়েছেন। বর্তমানে ছেলের লেখাপড়ার খরচ দিচ্ছেন। ছোট মেয়ে এইচএসসি পাস করেছে। কঠোর পরিশ্রমের পরও হাসিমুখে নিজেকে এই মা একজন অপরাজিতা হিসেবেই মনে করেন। নেহার বেগমের জীবনের গল্পটা ঠিক যেন হেমন্ত মুখোপাধ্যায়ের কণ্ঠে ‘পথের ক্লান্তি ভুলে স্নেহভরা কোলে তব-মাগো, বলো কবে শীতল হব কত দূর আর কত দূর বল মা’ বিখ্যাত গানটি যেন বলে দেয় নেহার বেগমের জীবনের গল্পটা।

প্রতিভাময়ী বিচিত্রা রানী

প্রতিভাময়ী বিচিত্রা রানী

বিচিত্রা রানী রায়। পেশায় একজন স্কুলশিক্ষক। মানুষ গড়ার কারিগর। নানামুখী প্রতিভার এই নারী শিক্ষা ক্ষেত্রে অবদানের জন্য জেলা পর্যায়ে জয়িতা পুরস্কার পেয়েছেন। তিনি নৃত্যকলা, গান, কবিতা আবৃত্তি, অভিনয়, উপস্থাপনাসহ সাংস্কৃতিক কর্মকান্ডে জড়িত। এ ছাড়াও তিনি বাইসাইকেল, মোটরসাইকেল ও প্রাইভেটকার চালনায় দক্ষতা অর্জন করেছেন। হাতের লেখাও তার খুব সুন্দর। হস্তলেখা অনলাইন পেজও আছে তার। নিয়মিত চর্চাও করেন। তিনি একজন পরিশ্রমী মানুষ। কাজ করা, ব্যস্ত থাকা তাঁর কাছে খুব পছন্দের। স্কুল, কলেজ,  বিশ্ববিদ্যালয়ে একাডেমিক শিক্ষার বাইরে জীবনের শৃঙ্খলার জন্য সংগীতের বিভিন্ন শাখায় পদচারণা একজন সুস্থ মানুষের জন্য জরুরি। কেননা পরিবারের বাইরে নৃত্যকলা, কবিতা আবৃত্তি ও  গান মানুষকে মানুষের কাছে সহজেই উপস্থাপন করা যায়, নিজেকে পরিপাটি রাখা যায়। এ বিশ্বাস ধারণ করেই তিনি পথ চলেন।