ঢাকা, বাংলাদেশ   মঙ্গলবার ২১ মে ২০২৪, ৭ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১

বিশ্বকাপ দল নিয়ে অনেক প্রশ্ন পাইলটের

স্পোর্টস রিপোর্টার

প্রকাশিত: ২২:৩৬, ১৫ মে ২০২৪

বিশ্বকাপ দল নিয়ে অনেক প্রশ্ন পাইলটের

খালেদ মাসুদ

অধিনায়ক নাজমুল হোসেন শান্ত আগেই জানিয়েছিলেন শ্রীলঙ্কা এবং জিম্বাবুয়ে সিরিজে খেলা ক্রিকেটারদের নিয়েই টি২০ বিশ্বকাপের দল গড়া হবে। শেষ পর্যন্ত সেটাই হয়েছে। সেই অর্থে দলে তেমন কোনো চমক নেই। তবে প্রশ্ন অনেক। সবচেয়ে বড় প্রশ্ন, ইনজুরি আক্রান্ত তাসকিন আহমেদ কেন সহ-অধিনায়ক? খালেদ মাসুদ পাইলট মনে করেন অধিনায়ক তৈরিতে প্রক্রিয়াগত ঘটতির কারণেই এমন পরিস্থিতি তৈরি হয়েছে।

বুধবার এক ফেসবুক লাইভে সাবেক অধিনায়ক যা বলেছেন, তাতে  এই দল নিয়ে বড় কিছুর প্রত্যাশ করছেন না তিনি। লিটন দাস কেন দলে, মোহাম্মদ সাইফউদিদ্দন, মেহেদী হাসান মিরাজকে কেন বিবেচনাই করা হয়নি, এই সময়ে কেন জিম্বাবুয়ের সঙ্গে সিরিজÑ লাইভে ভক্তদের এমন প্রশ্নের জবাবে খোলখুলি অনেক কথাই বলেছেন পাইলট।
‘তাসকিন কেন সহ-অধিনায়ক? প্রশ্নটা বড় হয়ে সামনে এসেছে। আমার মনে হয় নির্বাচকদের আর কোন বিকল্প ছিল না। সাকিব, মাহমুদুল্লাহ করবে না, লিটনও হয়ত রাজি নয়। ক্যাপ্টেন তৈরি করাও আসলে প্লেয়ার তৈরি করার মতোই। অনেক আগে থেকে পরিকল্পনা থাকতে হয়। হুট করেই যে তাসকিনকে ভাইস-ক্যাপ্টেন করা হলো, কোন বিচারে বোঝা যাচ্ছে না।

একে তো ইনজুরি কনসার্ন আছে, তার ওপর গত বিপিএলে ওর নেতৃত্বে ঢাকা সম্ভবত সবার নিচে ছিল! ওভার-অল আমার মনে হয় টিম-বাংলাদেশ ভালো অবস্থায় নেই।’ একদমই ফর্মে নেই, তারপরও লিটন কেন দলে? ‘আমার মনে হয় দলে যথেষ্ঠ ব্যাকআপ খেলোয়াড় নেই, যারা আন্তর্জাতিক মানের। ফলে নির্বাচকদের কোনো অপশন ছিল না।’

বিশ্বকাপের ঠিক আগে জিম্বাবুয়ের সঙ্গে সিরিজ খেলার কোনো মানেই খুঁজে পান না পাইলট,‘আমি আসলে বুঝতে পারি না, এই সময়ে জিম্বাবুয়ের সঙ্গে কেন খেলতে হবে? এই সিরিজ খেলে আমরা কিই বা পেলাম? এর চেয়ে বরং ভারত, পাকিস্তান কিংবা অস্ট্রেলিয়ার এ- দলকেও আমন্ত্রণ জানানো যেত।’
এর আগে দল ঘোষণার দিনই পাইলট বলেছিলেন, ‘শুনতে খারাপ শোনাবে, এই দলে অনেকই আছে, যারা পারফর্ম করছে না। এটাই বাস্তবতা যে পারফর্ম না করেও অনেকে বিশ্বকাপে যাচ্ছে। ব্যাটসম্যানের মধ্যে একমাত্র মাহমুদুল্লাহ ছাড়া কেউই রানে নেই। জিম্বাবুয়ে সিরিজে বোলিং-ফিল্ডিংও ভালো ছিল না। সাইফউদ্দিন ও মিরাজ, এ দুজনকে কেন নেওয়া হলো না, সে আলোচনাও হতে পারে।’

তাসকিনের সহ-অধিনায়কের দায়িত্ব পাওয়া নিয়ে সেদিন তিনি আরও বলেন, ‘বাস্তবতা হচ্ছে এই দলে সহ-অধিনায়ক হওয়ার মতো আর কেউ নেই, তাই তাসকিনকে নেওয়া হয়েছে। ফলে নেতৃত্বে আসার জন্য যে প্রক্রিয়া ও প্রতিযোগিতার মধ্য দিয়ে আসতে হয়, সেটা হয়নি।’

×