বুধবার ২৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৮, ০৮ ডিসেম্বর ২০২১ ঢাকা, বাংলাদেশ
প্রচ্ছদ
অনলাইন
আজকের পত্রিকা
সর্বশেষ

‘জীবন গিয়েছে চলে আমাদের কুড়ি কুড়ি বছরের পার’

  • আলী যাকের

আমি একেক সময় অবাক বিস্ময়ে ভাবি কীর্তিমান লেখকেরা কি করে পাতার পর পাতা লিখে যান অবলীলায়! যেন বহমান নদীর জলধারার মতো। তরতরিয়ে চলে দিনের পর দিন। প-িত জওহরলাল নেহরু তাঁর আত্মজীবনীতে লিখেছিলেন গঙ্গা নদীর কথা। এক অসাধারণ বর্ণনা ছিলো সেটি। তিনি বলেছিলেন, কেমন করে গঙ্গা ভারতের দীর্ঘ ইতিহাসকে তার বুকে ধরে সেই সুদূর অতীত থেকে বয়ে নিয়ে চলেছে সযতনে বর্তমান হয়ে অজানা ভবিষ্যতের পথে। সেই বর্ণনা পড়ে চমৎকৃত হয়েছিলাম। বস্তুতপক্ষে, এই সকল ক্ষণজন্মা মানুষ, প-িত নেহরু যেমন, কত অনায়াসে বলতে পারেন নিজের কথা। আর আমরা ভাবতে ভাবতে ব্যাকুল হয়ে উঠি কি লিখব আর কি লিখব না। তবু ২০২০ এর প্রারম্ভে এসে কিছু কথা বলতে ইচ্ছে করছে।

আজ থেকে ২০ বছর আগে ২০০০ সালে এক দুর্লভ ঘটনার সাক্ষী হবার সৌভাগ্য হয়েছিল। আর তা হলো একটি শতাব্দীকে অতীত করে নতুন একটি শতাব্দীর শুভ সূচনা প্রত্যক্ষ করবার ঘটনা। বিগত শতাব্দীটি ছিল সেই শতাব্দী যে শতাব্দীতে বাংলা সাহিত্য, সঙ্গীত, চলচ্চিত্র, চিত্রকলা উৎকর্ষের শীর্ষে পৌঁছেছিল। যে শতাব্দীতে রবীন্দ্রনাথের মতো একজন সম্পূর্ণ মানুষ বাংলার আকাশ সৃজনশীলতার উজ্জ্বল আলোয় ভরে রেখেছিলেন। যে শতাব্দীতে ব্রিটিশবিরোধী আন্দোলনে বাঙালী এক গৌরবজনক ভূমিকা পালন করেছিল এবং পরবর্তীতে একটি স্বাধীন দেশের জন্ম দিয়েছিল পাকিস্তানের বিরুদ্ধে রক্তক্ষয়ী একটি যুদ্ধে জয়লাভ করে। ভাবতে আশ্চর্য লাগছে, যে নতুন শতাব্দীকে বরণ করেছিলাম নতুন আশা আর আনন্দের সঙ্গে সেই নতুন শতাব্দীর দুইটি দশক পার হয়ে গেল! দুই দশক অর্থাৎ কুড়ি বছর। জীবনানন্দ দাশ লিখেছিলেন তাঁর কবিতায়, কুড়ি বছর পেরিয়ে যাবার কথা। চরণটা বোধহয় ছিল এই রকম:’ জীবন গিয়েছে চলে আমাদের কুড়ি কুড়ি বছরের পার।

তখন হঠাৎ যদি দেখা হয় তোমার আমার . . .।’

এই কথাগুলোতে দুটি বিষয়ে ভাবার মতো উপাদান আমরা খুঁজে পাই। একটা হচ্ছে সময় সংক্রান্ত। কুড়ি বছর! মেলা বছর! খেলা কথা নয়। এই সময়ের বিষয়টি, মনের ভেতরে কেমন যেন হাহাকার সৃষ্টি করে। মনটা আর্দ্র হয়ে আসে। আবার পরক্ষণেই এই দুঃখ ভারাক্রান্ত মনকে উদ্দীপিত করে তোলে এর পরের বাক্যটি, ‘তখন হঠাৎ যদি দেখা হয় তোমার আমার!’ সব মিলিয়ে আমার পড়া সকল কবিতার মধ্যে এই রকম কাব্যময় কথা খুব কমই পড়েছি আমি। পড়লেও স্মরণে রাখতে পারিনি। মানুষের জীবনে আশাহীন অন্ধকার সময় অবশ্যই আসে। এবং তা যে একবার আসে তা নয়। আমি নিশ্চিত, যে আমাদের সকলের জীবনেই বেশ কয়েকবার আসে। তবুও হঠাৎ দেখার মতো আনন্দদায়ক কোন একটি মুহূর্তের অপেক্ষায় আমরা অবলীলায় কাটিয়ে দিই কয়েক দশকের জীবন। আমার জীবনের সঙ্গে ওতপ্রোতভাবে জড়িয়ে রয়েছে নাটক। আমার নাট্য জীবনের ৪৭ বছর পেরিয়ে গেল চোখের পলকে। বহু বছর ধরেই আমার সন্ধ্যাগুলো আর আমার নিজের ছিল না। উৎসর্গ করেছিলাম নাটকে। দিনের বেলা বিজ্ঞাপন এজেন্সীর কাজকর্ম যাতে করে জীবিকা নির্বাহ হয় আর সন্ধ্যায় নাটক। এটাইতো ছিল আমার জীবন! আত্মীয়-স্বজন, বন্ধুবান্ধব আমার কাছে হয়ে গিয়েছিলেন গৌন। আমার কাজকর্ম আর নাটকই ছিল মুখ্য। আমি এ নিয়ে অনেক ভেবেছি। মনে হয়েছে যেন আমার পরিচিত সবার থেকে অনেক দূরে চলে এসেছি আমি। মাঝে মধ্যে খারাপ লেগেছে কিন্তু তবুও জীবনের ধারাকে বদলাতে চেষ্টা করিনি। এই জন্য আমার মনে কোন দুঃখবোধ নেই। এইসব কথা বলতে পারলে যেমন নিজের কাছে ভাল লাগে তেমনি হয়তো এই কথাগুলো ভাল লাগবে নাটকের অঙ্গনে নতুন আসা সেইসব তরুণ-তরুণীদের যাদের সঙ্গে কাজ করার সুযোগ আমি কখনও পাব না। এই শেষ বয়সে এসে আমার কখনও মনে হয় না আমি ভুল পথে পথ হেঁটেছি। আমি ক্রমাগত হেঁটে চলেছি সৃজনশীলতার পথেই। দেশে নিয়মিত ভিত্তিতে নাটক মঞ্চায়িত হচ্ছে। বেশ কিছু বুদ্ধিমান এবং সৎ তরুণ এগিয়ে এসেছে এই কাজে। নাটক নিয়ে সেমিনার-সিম্পোজিয়াম হচ্ছে, সেখানে আলোচিত হচ্ছে নাট্যপ্রবাহ। এর চেয়ে বেশি কিছু তো কখনই চাইনি এই জীবনে!

রবীন্দ্রনাথ তার এক কবিতায় নায়িকার কথা হিসেবে বলেছিলেন,’ রাতের সব তারাই থাকে দিনের আলোর গভীরে।’ আমার গোটা জীবনটাই তো প্রায় কেটে গেছে দিনের আলোর গভীরে রাতের তারা ফোটাতে ফোটাতে। কথাটার তাৎপর্য এইখানে যে আমাদের দিন ফুরিয়ে রাতে যখন আসবে তখন আকাশের তারাগুলো একে, একে ফুটে উঠবে। তখন হয়তো আমাদের অনাগত নাট্যপ্রজন্ম সেইসব তারা দেখিয়ে বলবে, ‘ঐ যে, ঐ তারাটা সৎমানুষ! ঐটা নূরলদীন, রক্তকরবী ঐ যে, ঐতো গ্যালিলিও, গডোর প্রতীক্ষায় তো ঐ ঐখানে!’ এই আনন্দের মাঝেই আমি আমার সাত দশকের পথচলার অর্থ খুঁজে পাই। আমার সকল পাঠকের প্রতি রইল নতুন গ্রেগোরিয়ান বছরের জন্য শুভ কামনা!

শীর্ষ সংবাদ:
ফোর্বসের প্রভাবশালী নারীর তালিকায় ৪৩তম শেখ হাসিনা         খুব শীঘ্রই খালেদার বিদেশে চিকিৎসার বিষয়ে সিদ্ধান্ত : আইনমন্ত্রী         ভারতের প্রতিরক্ষাপ্রধানকে নিয়ে হেলিকপ্টার বিধ্বস্ত, নিহতের সংখ্যা বেড়ে ১৩         করোনা : একদিনে ৬ জনের মৃত্যু, শনাক্ত ২৭৭         স্কুলে ভর্তির আবেদনের সময় বাড়ালো মাউশি         বিশ্বের কোনও গণতন্ত্রই নিখুঁত নয় : শিক্ষামন্ত্রী         আবরার হত্যা ॥ রায় দ্রুত কার্যকরের দাবি         আবরার হত্যা ॥ যাদের ফাঁসি ও যাবজ্জীবনের রায় হলো         ‘জাওয়াদের প্রভাবে বাড়তে পারে ডেঙ্গু’         ভারতের সাথে সড়ক পথে যাতায়াত চালু করা হবে : পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী         রাজধানীর কামরাঙ্গীরচরে গড়ে তোলা হবে কেন্দ্রীয় বাণিজ্যিক অঞ্চল : মেয়র তাপস         জঙ্গি সংগঠন বাংলা টিমের পলাতক আসামি গ্রেফতার         কর্মক্ষেত্রে যৌন হয়রানি বন্ধে ছয় দফা দাবি         চাঁপাইনবাবগঞ্জ-সোনামসজিদ পর্যন্ত রেলপথ সম্প্রসারণ নির্মাণ কাজ চূড়ান্ত ॥ পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী         মহিলা হোস্টেলসহ ৮ স্থাপনা উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী         ছাত্রদল থেকেই এসব শিখে এসেছে মুরাদ ॥ হানিফ         পিপিপিতে হবে ঢাকার ইস্ট-ওয়েস্ট এলিভেটেড এক্সপ্রেসওয়ে         রায় কার্যকর হলে আরও খুশি হব ॥ আবরারের বাবা         বিএসএফ নির্যাতনে মৃত ভারতীয় যুবকের লাশ ধরলা নদীতে ভেসে উঠল         ডেঙ্গু : একদিনে হাসপাতালে আরও ৬০ রোগী হাসপাতালে