ঢাকা, বাংলাদেশ   বুধবার ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২৩, ১২ আশ্বিন ১৪৩০

জাতীয়

জাতীয় বিভাগের সব খবর

জ্বালানি তেল বিক্রিতে কমিশন বাড়াল সরকার

জ্বালানি তেল বিক্রিতে কমিশন বাড়াল সরকার

জ্বালানি তেলের বিক্রিতে কমিশন বাড়িয়েছে সরকার। মঙ্গলবার বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজসম্পদ মন্ত্রণালয় এ বিষয়ে একটি প্রজ্ঞাপন জারি করেছে। এ কমিশন বৃদ্ধির মাধ্যমে জ্বালানি তেল পরিবহন ও উত্তোলন সংশ্লিষ্ট ব্যবসায়ীদের দীর্ঘদিনের একটি বড় দাবি পূরণ হলো।  এখন থেকে প্রতি ১০০ টাকার অকটেন বিক্রিতে পাম্প মালিকরা চার টাকা ২৮ পয়সা, পেট্রোল বিক্রিতে ৪ টাকা ৩৪ পয়সা, কেরোসিনে দুই টাকা এবং ডিজেলে ২ টাকা ৮৫ পয়সা কমিশন পাবে। এর আগে ডিজেলের দুই শতাংশ, পেট্রোলের তিন শতাংশ এবং অকটেনের চার শতাংশ কমিশন ছিল। প্রসঙ্গত, চলতি মাসের শুরুতে ৩ সেপ্টেম্বর এই কমিশন বৃদ্ধির দাবিতেই তেল উত্তোলন বন্ধ করে দিয়েছিল পেট্রোল পাম্প মালিকদের একাংশ। এরপর সরকারের আশ্বাসে শেষ পর্যন্ত তারা ধর্মঘট প্রত্যাহার করে নেয়।  মালিকদের দাবি ছিল, ডিজেলের ২ শতাংশ, পেট্রোলের ৩ শতাংশ এবং অকটেনের ৪ শতাংশ কমিশন বাড়িয়ে সাড়ে ৭ শতাংশ করতে হবে। একইসঙ্গে তাদের শিল্প থেকে বাদ দিয়ে কমিশন এজেন্ট ঘোষণা করে গেজেট প্রকাশ করতে হবে। এ ছাড়া পুরাতন ট্যাংক লরি অবসরের সময় ২৫ বছর থেকে বাড়াতে হবে। এর মধ্যে জ্বালানি মন্ত্রণালয় তাদের কমিশন এজেন্ট হিসেবে প্রজ্ঞাপন জারি করে আগস্ট মাসের শেষে। এই বিষয়ে জানতে চাইলে পেট্রোল পাম্প মালিক সমিতির একাংশের মহাসচিব মো. মিজানুর রহমান রতন সাংবাদিকদের বলেন, এই কমিশন বৃদ্ধির মাধ্যমে আমাদের দীর্ঘদিনের দাবি পূরণ করা হয়েছে। সরকার অকটেন ও পেট্রোল বিক্রিতে ৫০ পয়সা এবং ডিজেল বিক্রিতে ২৭ পয়সা বাড়িয়েছে। এতে আমরা খুশি। এর মাধ্যমে আমাদের মূল দাবি পূরণ হলো।

সৈয়দ শামসুল হকের মৃত্যুবার্ষিকী আজ

সৈয়দ শামসুল হকের মৃত্যুবার্ষিকী আজ

কবি ও সব্যসাচী লেখক সৈয়দ শামসুল হকের সপ্তম মৃত্যুবার্ষিকী আজ বুধবার। ফুসফুসের ক্যান্সারে আক্রান্ত হয়ে ২০১৬ সালের ২৭ সেপ্টেম্বর রাজধানীর একটি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মৃত্যুবরণ করেন বাংলা সাহিত্যের এই দিকপাল। তাকে জন্মশহর কুড়িগ্রাম সরকারি কলেজের মূল ফটকের পাশে দাফন করা হয়। সৈয়দ শামসুল হক ১৯৩৫ সালের ২৭ ডিসেম্বরে কুড়িগ্রামে জন্মগ্রহণ করেন। ১৯৫৪ সালে তার প্রথম গল্পগ্রন্থ ‘তাস’, ১৯৫৯ সালে প্রথম উপন্যাস ‘এক মহিলার ছবি’, ১৯৬১ সালে প্রথম কাব্যগ্রন্থ ‘একদা এক রাজ্যে’ প্রকাশিত হয়। তার লেখা উল্লেখযোগ্য নাটকের মধ্যে রয়েছে ‘নূরল দীনের সারাজীবন’, ‘পায়ের আওয়াজ পাওয়া যায়’, ‘গণনায়ক’, ‘ঈর্ষা’। উপন্যাসের মধ্যে রয়েছে ‘খেলারাম খেলে যা’, ‘সীমানা ছাড়িয়ে’, ‘নীল দংশন’। কাব্যগ্রন্থের মধ্যে রয়েছে ‘পরানের গহিন ভিতর’, নাভিমূলে ভস্মধার’, ‘আমার শহর ঢাকা’, ‘বৃষ্টি ও জলের কবিতা’ প্রভৃতি। গান লিখেও খ্যাতি অর্জন করেছেন সৈয়দ হক। উল্লেখযোগ্য গানের মধ্যে রয়েছে ‘হায় রে মানুষ রঙিন ফানুস’, ‘অনেক সাধের ময়না আমার’, ‘তোরা দেখ দেখ দেখ রে চাহিয়া’, ‘চাঁদের সাথে আমি দেব না তোমার তুলনা’। কর্মজীবনের স্বীকৃতি হিসেবে সৈয়দ শামসুল হক পেয়েছেন একুশে পদক, স্বাধীনতা পুরস্কার, বাংলা একাডেমি সাহিত্য পুরস্কারসহ অসংখ্য পুরস্কার ও সম্মাননা।

এআইআইবি ৪ বিলিয়ন ডলার বিনিয়োগ করবে বাংলাদেশে

এআইআইবি ৪ বিলিয়ন ডলার বিনিয়োগ করবে বাংলাদেশে

বাংলাদেশের বিভিন্ন প্রকল্পে এশীয় অবকাঠামো বিনিয়োগ ব্যাংক (এআইআইবি) সাড়ে ৪ বিলিয়ন ডলার বিনিয়োগ করবে। ব্যাংকটি (এআইআইবি) চীনের প্রস্তাবিত একটি আন্তর্জাতিক আর্থিক প্রতিষ্ঠান। এশিয়া প্যাসিফিক অঞ্চলে অবকাঠামো উন্নয়নে অর্থ সহায়তা করাই এই বহুজাতিক উন্নয়ন ব্যাংকের উদ্দেশ্য। ব্যাংকটির প্রতিশ্রুতি অনুসারে প্রতি ডলারের দাম ১০৮ টাকা ৮৪ পয়সা ধরা হলে বাংলাদেশী মুদ্রায় যার পরিমাণ ৪৮ হাজার ৮১৩ কোটি ৮৪ লাখ টাকা। আগামী ৫ বছরের মধ্যে এই টাকা পাবে বাংলাদেশ। এই অর্থ পাওয়ার বিষয়টি পাইপলাইনে রয়েছে। এআইআইবির বোর্ড অব ডিরেক্টরস এবং ৮ম বার্ষিক সভায় এ তথ্য তুলে ধরা হয়। মিসরের শারম আল শেখে ২৫ ও ২৬ সেপ্টেম্বর এ সভা অনুষ্ঠিত হয়। এবারের বার্ষিক সভায় জলবায়ু অর্থায়ন এবং পাবলিক ও প্রাইভেট বিনিয়োগের মধ্যে সেতুবন্ধনের ওপর জোর দেওয়া হয়েছে। মঙ্গলবার অর্থমন্ত্রীর দপ্তর থেকে জানানো হয়, বাংলাদেশে ২০১৬ সালে বিদ্যুৎ খাতে ১৬৫ মিলিয়ন মার্কিন ডলারের একটি প্রকল্পের মাধ্যমে এআইআইবির বিনিয়োগ শুরু হয়েছিল। প্রথম ৩ বছরে এআইআইবির অর্থায়ন ছিল ৪টি প্রকল্পের বিপরীতে ৪৪৫ মিলিয়ন মার্কিন ডলার, যা বর্তমানে ১৮টি প্রকল্পের বিপরীতে ৩ হাজার ২৭০ মিলিয়ন ডলার। অর্থমন্ত্রীর দপ্তর থেকে আরও জানানো হয়েছে, আগামী ৫ বছরের জন্য এআইআইবির অর্থায়নে বাংলাদেশের পাইপলাইনে ৪ দশমিক ৫০ বিলিয়ন ডলার রয়েছে। যা বাংলাদেশে আগামী ৫ বছরে জলবায়ু সমস্যা মোকাবিলায় অর্থায়ন এবং পাবলিক ও প্রাইভেট বিনিয়োগের মধ্যে সেতুবন্ধনে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখতে সক্ষম হবে।

চাপ কমবে রিজার্ভে

চাপ কমবে রিজার্ভে

ডলারের ওপর নির্ভরতা কমাতে গত জুলাই থেকে বাংলাদেশ-ভারতের মধ্যে রুপিতে বাণিজ্য পরিচালনার উদ্যোগ নেয় প্রতিবেশী দুই দেশ। বাংলাদেশ ব্যাংক শুরুতে সোনালী ব্যাংক ও ইস্টার্ন ব্যাংক লিমিটেডকে এই কার্যক্রমে যুক্ত করে। চলতি মাসেই ইসলামী ব্যাংক এবং স্ট্যান্ডার্ড চার্টার্ড ব্যাংককে ভারতের সঙ্গে রুপিতে বাণিজ্য পরিচালনার অনুমতি দিয়েছে কেন্দ্রীয় ব্যাংক। এ ছাড়া আরও ছয় ব্যাংক রুপিতে বাণিজ্য পরিচালনার অনুমোদনের জন্য কেন্দ্রীয় ব্যাংকের কাছে আবেদন জমা দিয়েছে। ব্যবসায়ীরা বলছেন, রুপিতে লেনদেনের ব্যবস্থা হওয়ায় আপাতত তাদের ডলার নির্ভরতায় খুব কম পরিমাণে হলেও চাপ কিছুটা কমেছে। তবে এর পুরো সুবিধা নিতে ভারতে রপ্তানি আরও বাড়াতে হবে বলছেন সংশ্লিষ্টরা।