ঢাকা, বাংলাদেশ   বৃহস্পতিবার ২৩ মে ২০২৪, ৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১

কক্সবাজারের রিসোর্টে পর্যটক তরুণীকে ধর্ষণ

স্টাফ রিপোটার, কক্সবাজার

প্রকাশিত: ১৩:৫০, ১৮ এপ্রিল ২০২৪

কক্সবাজারের রিসোর্টে পর্যটক তরুণীকে ধর্ষণ

লা বেলা রিসোর্ট।

কক্সবাজারের উখিয়ার ইনানী সৈকতের একটি রিসোর্টে বুধবার (১৭ এপ্রিল) দুপুরে এক পর্যটক তরুণীকে ধর্ষণ করার অভিযোগ উঠেছে। 

ভুক্তভোগী রাজধানীর কাফরুলের ইব্রাহিমপুর এলাকার বাসিন্দা। এ ঘটনায় পুলিশ অভিযুক্ত মোহাম্মদ নিজামকে (৪৪) গ্রেপ্তার করেছে। নিজাম নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের ৭নং ওয়ার্ডের দক্ষিণ কদমতলীর শামসুল হকের পুত্র।

উখিয়া থানার ওসি বলেন, এ ঘটনায় অভিযুক্ত নিজামকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। ধর্ষণের শিকার তরুণীকে গতকাল বুধবার বিকেলে কক্সবাজার সদর হাসপাতালে স্বাস্থ্য পরীক্ষা করা হয়েছে। রাতে তিনি ঢাকার পথে রওয়ানা দিয়েছেন। এ ঘটনায় উখিয়া থানায় বুধবার মো. নাজিমকে আসামি করে নারী ও শিশু নিযাতন দমন আইন ২০০০ (সংশোধিত ২০২০) এর ৯ (১) ধারায় মামলা করা হয়েছে। 

মামলার বাদী ধর্ষণের শিকার ওই তরুণী এজাহারে বলেন, এক বান্ধবীকে নিয়ে মামলার বাদি গত ১৫ এপ্রিল ঢাকা থেকে কক্সবাজার আসেন। উঠেন উখিয়ার ইনানী সৈকতের লা বেলা রিসোর্টের ‘রোজ’ কটেজের নিচ তলার ৪০২ নং কক্ষে। তাদের সঙ্গে আসেন এক মাস আগে পরিচিত ব্যক্তি মোহাম্মদ নিজাম। তিনি উঠেন পাশের ৪০১ নং কক্ষে। নিজাম মামলার বাদীর সঙ্গে আসা বান্ধবির পূর্ব পরিচিতি ছিলেন। মঙ্গলবার (১৬ এপ্রিল) সকাল সাড়ে ১১টার দিকে বান্ধবী সৈকতে ঘুরতে যান। মাথা ব্যাথা জনিত কারণে বাদী ৪০২ নং কক্ষে অবস্থান করছিলেন। পরে দুপুর সোয়া ১২টার দিকে নিজাম ওই কক্ষে ঢুকে দরজা বন্ধ করে জোর পূর্বক তাকে ধর্ষণ করেন। তার আত্মচিৎকারে হোটেলের লোকজন এগিয়ে এলে নিজাম পালিয়ে যান। 

এজহারে আরো বলা হয়, জরুরি সেবার ৯৯৯-নম্বরে কল দিলে উখিয়া থানার পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে বাদীকে উদ্ধার করে। পুরে পুলিশ ইনানী এলাকায় অভিযান চালিয়ে অভিযুক্ত নাজিমকে গ্রেপ্তার করে। 

লা বেলা রিসোর্টের ম্যানেজার আরিফুল ইসলাম বলেন, ‘গত ১৫ এপ্রিল দুপুরে রিসোর্টে এসে মো. নিজাম দুইটি এসি কক্ষ ভাড়া নেন। ৪০২ নং কক্ষে উঠেন দুই নারী। নিজাম উঠেন পাশের ৪০১ নং কক্ষে। নিজাম এসময় দুই তরুণীকে চাচাতো বোন পরিচয় দেন। পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছার আগে রিসোর্ট কক্ষে তরুণীকে ধর্ষণের বিষয়টি তাদের কেউ জানায়নি।’

এম হাসান

×