ঢাকা, বাংলাদেশ   সোমবার ২২ জুলাই ২০২৪, ৭ শ্রাবণ ১৪৩১

সেমিফাইনালে সবার আগে ইংল্যান্ড

জিএম মোস্তফা

প্রকাশিত: ০১:১২, ২৪ জুন ২০২৪

সেমিফাইনালে সবার আগে ইংল্যান্ড

.

গ্রুপ পর্বের মতো সুপার এইটের বাধাও ইংল্যান্ড অতিক্রম করতে পারবে কি না তা নিয়ে শঙ্কা ছিল। তবে সব সংশয় উড়িয়ে সবার আগে টি২০ বিশ্বকাপের সেমিফাইনালের টিকিট কাটল টুর্নামেন্টের বর্তমান চ্যাম্পিয়নরা। রবিবার কঠিন সমীকরণের ম্যাচে ৬২ বল হাতে রেখেই ১০ উইকেটের বড় ব্যবধানে পরাজয়ের লজ্জা উপহার দেয় এবারের বিশ্বকাপের সহ-আয়োজক মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রকে। 
এই ম্যাচে ইংল্যান্ডের প্রথম বোলার হিসেবে হ্যাটট্রিক গড়ার অবিস্বরণীয় কীর্তি গড়েন ক্রিস জর্ডান। মূলত, তার আগুনে বোলিংয়ের সামনে পড়ে শেষ ৬ বলে ৫ উইকেট হারিয়ে মাত্র ১১৫ রানেই গুটিয়ে যায় মার্কিন  যুক্তরাষ্ট্র। আর এই রান তাড়া করতে নেমে ৯.৪ ওভারেই কোনো উইকেট না হারিয়ে ১১৭ রান তুলে ফেলে ইংল্যান্ডের দুই উদ্বোধনী ব্যাটার জস বাটলার এবং ফিল সল্ট।

অধিনায়ক বাটলার ৩৮ বলে ৬টি চার ও ৭টি ছক্কায় ঝড়ো ৮৩ আর ফিল সল্ট ২১ বলে ২টি চারে ২৫ রানে অপরাজিত থেকে দলের জয় নিয়েই মাঠ ছাড়েন। আর সমীকরণটা ছিল ১৮.৪ ওভারে আমেরিকাকে হারালেই সেমির টিকিট নিশ্চিত করবে ইংল্যান্ড, যা তারও আগেই করে ফেলে সল্ট-বাটলাররা।
এর আগে ব্রিজটাউনে গ্রুপ ‘২’ এর ম্যাচে টস জিতে প্রথমে আমেরিকাকে ব্যাটিংয়ের আমন্ত্রণ জানায় ইংল্যান্ড। কিন্তু এদিন সুবিধা করতে পারেনি এবারের আসরের সহ-আয়োজকরা। নিয়মিত বিরতিতেই উইকেট হারাতে থাকে জোনস-গাউসরা। প্রথমদিকে স্যাম কারান আর আদিল রশিদ প্রতিপক্ষের ব্যাটারদের উইকেটগুলো তুলে নিলেও শেষের চমকটা উপহার দেন ক্রিস জর্ডান! আরও সুস্পষ্ট করে বললে ১৮তম ওভারের শেষ বলে হারমিত সিংকে যখন স্যাম কারান সাজঘরে পাঠান যুক্তরাষ্ট্রের সংগ্রহে তখন ৬ উইকেটে ১১৫ রান। আর তখনই শুরু জর্ডান শো! এর পর বোর্ডে আর কোনো রানই যোগ করতে দেননি তিনি। ১৯তম ওভারের প্রথম বলেই কোরি অ্যান্ডারসনকে শিকারে পরিণত করেন জর্ডান। নতুন ব্যাটার আলী খান পরের বলে রান নিতে পারেননি, উইকেটও দেননি। যদিও এর পর টানা তিন বলে আলী খান, নসথুস কেনজিঙ্গে এবং সৌরভ নেত্রভালকারকে বিদায় করে হ্যাটট্রিক পূর্ণ করেন জর্ডান। বার্বাডোজে জন্ম গ্রহণ করা এই ইংলিশ পেসার নিজের হোমটাউনের চেনা পরিবেশে অবিশ্বাস্য বোলিং করে যুক্তরাষ্ট্রকে টুর্নামেন্ট থেকে লজ্জাজনকভাবেই বিদায় করে দেন। আমেরিকার হয়ে এদিন সর্বোচ্চ ৩০ রান করেন নিতিশ কুমার। এ ছাড়া, কোরি অ্যান্ডারসন ২৯ এবং ২১ রান আসে হারমিত সিংয়ের ব্যাট থেকে। জর্ডান ১০ রানে নেন প্রতিপক্ষের ৪ উইকেট। স্যাম কারান ও আদিল রশিদ নেন দুটি করে উইকেট। ম্যাচসেরার পুরস্কারটা অবশ্য আদিল রশিদও জিতেন। 
এদিন অষ্টম বোলার হিসেবে টি২০ বিশ্বকাপে হ্যাটট্রিক করেন জর্ডান। তার আগে এই কীর্তি গড়েন ব্রেট লি, কার্টিস ক্যামফার, ওয়ানিন্দু হাসারাঙ্গা ডি সিলভা, কাগিসো রাবাদা, কার্তিক মেইয়াপ্পন, জস লিটল ও প্যাট কামিন্স। অস্ট্রেলিয়ার কামিন্স অবশ্য রবিবার সকালেই আফগানিস্তানের বিপক্ষে ব্যাক টু ব্যাক হ্যাটট্রিক করার অবিস্বরণীয় কীর্তি গড়ে নিজেকে নিয়ে যান ইতিহাসের সোনালি পাতায়। 
আমেরিকার বিপক্ষে জয়ে ৩ ম্যাচে ৪ পয়েন্ট নিয়ে টেবিলের শীর্ষে উঠে যায় ইংল্যান্ড। তাদের নিট রানরেট ১.৯৯২। দক্ষিণ আফ্রিকা (২ ম্যাচে ৪ পয়েন্ট) ও ওয়েস্ট ইন্ডিজ (২ ম্যাচে ২ পয়েন্ট)। আজ ভোরে ‘নকআউট’ ম্যাচে মুখোমুখি হয় এই দুই দল।
 

×