ঢাকা, বাংলাদেশ   বৃহস্পতিবার ৩০ মে ২০২৪, ১৬ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১

ফেসিয়াল করা জরুরি কেন?

প্রকাশিত: ১২:১৭, ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২৩

ফেসিয়াল করা জরুরি কেন?

নারীর রূপচর্চা। ছবি: ইন্টারনেট থেকে

ত্বক ভালো রাখতে ফেসিয়াল করা খুবই প্রয়োজন। এটি এক ধরনের স্কিন ট্রিটমেন্ট, যার সাহায্য়ে ত্বকের হারিয়ে যাওয়া জেল্লাও ফিরিয়ে আনা সম্ভব। আসলে ফেসিয়ালের মাধ্যমে ত্বক পরিষ্কার করা হয়, সেই সঙ্গে ফেস মাসাজ করায় ত্বকের অন্দরে বাড়ে রক্ত সঞ্চালনও। প্রতিটি কোষে পর্যাপ্ত পরিমাণে অক্সিজেন পৌঁছায়, স্বাভাবিক ভাবেই জেল্লা উপচে পড়ে।


বাড়িতে ফেসিয়াল করার ধাপগুলি শিখুন
১) ক্লিনজিং
২) ফেস এক্সফোলিয়েশন
৩) ফেস স্টিমিং
৪) ফেস মাসাজ
৫) ফেস প্যাক


প্রথম ধাপগুলি শিখুন
আপনার ব্যবহারের রেগুলার ক্লিনজার হাতে নিয়ে মুখে লাগিয়ে নিন। এবার ভালো করে মাসাজ করুন। তাই বলে জোরে জোরে ঘষবেন না। ফেস ওয়াশ ত্বকে লাগিয়ে মাসাজ করার পরে ১ মিনিট অপেক্ষা করুন। এবং পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন।

দ্বিতীয় ধাপে, একটি পাত্রে পরিমাণ মতো ফেস স্ক্রাব নিন। তার সঙ্গে সামান্য পরিমাণে পানি মেশান। এবার ওই মিশ্রণ আপনার মুখে লাগিয়ে নিন। হাতের তালুর আলতো চাপে মুখ স্ক্রাব করে নিন। ২-৩ মিনিট মাসাজ করার পরই মুখ ধুয়ে ফেলুন।

তৃতীয় ও চতুর্থ ধাপ
এক্সফোলিয়েট করার পরে ফেস স্টিমিং করতে হবে আপনাকে। মুখে গরম জলের ভাপ নিলে রক্ত সঞ্চালন বাড়বে, স্বাভাবিকভাবেই ত্বকের জেল্লাও হবে দেখার মতো। একটি পাত্রে গরম পানি নিয়ে তার ভাপ নিতে পারেন মুখে, না হলে ফেস স্টিমারও ব্যবহার করতে পারেন।

এরপর একটি সুতির কাপড় দিয়ে মুখ মুছে নিন। তারপর ত্বকে পরিমাণ মতো অ্যালোভেরা জেল লাগিয়ে ভালো করে ফেসিয়াল মাসাজ করুন। ১০ মিনিট মাসাজ করতেই হবে।

শেষে করুন এই কাজটি
ফেসিয়াল মাসাজ করার পরে আপনাকে মুখে ফেস প্যাক লাগাতে হবে। পরিমাণ মতো ফেস প্যাক মুখে লাগিয়ে নিন। তবে ভুলেও চোখের চারপাশ এবং ভ্রুর উপরে প্যাক লাগাবেন না। এতে ত্বকের ক্ষতি হওয়ার আশঙ্কা বাড়বে। ফেসপ্যাক লাগানোর পরে ১০ মিনিট অপেক্ষা করে মুখ ধুয়ে ফেলুন।

শেষে টোনার এবং ময়শ্চারাইজার লাগিয়ে নিন। এই সহজ নিয়মে প্রতি সপ্তাহে বাড়িতে করুন ফেসিয়াল। 

এসআর

×