ঢাকা, বাংলাদেশ   বুধবার ১৯ জুন ২০২৪, ৬ আষাঢ় ১৪৩১

জলবায়ুতে ইস্যুতে অর্থায়নের সুযোগ

প্রকাশিত: ২০:০৩, ৩ নভেম্বর ২০২২; আপডেট: ২০:৪০, ৩ নভেম্বর ২০২২

জলবায়ুতে ইস্যুতে অর্থায়নের সুযোগ

দুর্যোগ ও ত্রাণ প্রতিমন্ত্রী ডা. এনামুর রহমান

জলবায়ু পরিবর্তনের বিরুপ প্রভাব মোকাবেলায় বাংলাদেশের সামনে প্রচুর বিদেশি অর্থায়নের সুযোগ রয়েছে। তবে সে জন্য এসব অর্থায়ন পেতে ব্যয়ের যথাযথ হিসাব নিশ্চিত করতে হয় বলে মন্তব্য করেছেন পরিবেশবিদ ড. আইনুন নিশাত। আর এ বিষয়টি নিশ্চিত করতে সামনে তরুণদের সম্পৃক্ত হতে বলেছেন এ অধ্যাপক।

বৃহস্পতিবার আগারগাঁওয়ে আয়োজিত ২ দিনব্যাপি ঢাকা ক্লাইমেট টকের উদ্বোধনী সেশনে এসব কথা বলেন তিনি। সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন দুর্যোগ ও ত্রাণ প্রতিমন্ত্রী ডা. এনামুর রহমান। আর্থডে নামের একটি সংস্থাটি এ সেমিনারের আয়োজন করেছে।

সভায় পরিবেশ পরিবর্তনের বিভিন্ন দিক তুলে ধরেন অধ্যাপক আইনুন নিশাত। তিনি বলেন, দেশে এখন আর বড় ইলিশ পাওয়া যায় না। এরা মিয়ানমার ও চীনের সাংহাইয়ে চলে যাচ্ছে। ভোলায় মহিষের দুধ কমে যাচ্ছে

যেখানে মহিষের খাওয়ার মতো ঘাস পাওয়া যাচ্ছে না। সব পানিতে তলিয়ে যাচ্ছে। সামনে বজ্রপাত ও কুয়াশা বাড়বে বলেও সতর্ক করেন তিনি। সমুদ্র সৈকতে শুধু লাবুনী পয়েন্টে ভাঙন থাকলেও এখন ৬টি পয়েন্টে ভাঙছে বলে জানান তিনি।  ছোট সিত্রাং ঘুর্ণিঝড়ে এতো ক্ষয়ক্ষতি কেন হলো সে প্রশ্নও রাখেন তিনি। এসময় পরিবর্তনের সঙ্গে খাপ খাইয়ে নেওয়াকে মূল কাজ বলেও উল্লেখ করেন তিনি।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে প্রতিমন্ত্রী ডা. এনামুর রহমান বলেন, জলবায়ু সমস্যা সমাধানে তুরণদের সামনে এগিয়ে আনতে হবে। তরুণরা নতুন নতুন আবিষ্কারের মাধ্যমে নিত্যনতুন সমাধান আনতে পারে। প্রকৃতি নির্ভর সমাধান ও আরো ভালো পূর্বাভাসের কথা বলেন তিনি। সামনে নবায়নযোগ্য জ্বালানিকে প্রাধান্য দিতে হবে বলেও মনে করেন তিনি। ড. রেজাউর রহমান বলেন, ইউরোপে আগে এতো গরম ছিল না। 

এমনকি তারা ফ্যান চিনতোও না। তবে এখন তাদের এটা ব্যবহার করতে হচ্ছে। পাকিস্তানসহ বিভিন্ন দেশে আকস্মিক বন্যার বিষয়টিও অপ্রত্যাশিত ছিল। তবে আশার দিকে হিসেবে তিনি সাগরের উচ্চতা বৃদ্ধি ও তাপবৃদ্ধির যে ভবিষ্যতবাণী করা হয়েছিল তা কমানো  হচ্ছে বলেও জানান তিনি। 

তাছাড়া আগের চেয়ে আর্সেনিক ও ওজোনক্ষয় কমে এসেছে বলেন তিনি। তাই সবাই মিলে কাজ করলে জলবায়ু পরিবর্তনের সমস্যা মোকাবেলা করা যাবে মনে করনে তিনি। 

উল্লেখ্য, জলবায়ু ইস্যুতে তরুণদের প্রত্যাশা ও দাবির বিষয় তুলে ধরতে এ আযোজন করা হয়। দুদিনের আলোচ্য বিষয় আসন্ন কপ সম্মেলনে তুলে ধরা হবে বলেও জানান আয়োজকরা। 

এমএস

×