ঢাকা, বাংলাদেশ   শনিবার ১৩ এপ্রিল ২০২৪, ২৯ চৈত্র ১৪৩০

১৩ শতাংশ ছাড়াল ব্যাংকঋণের সুদ

প্রকাশিত: ১৪:১০, ১ মার্চ ২০২৪; আপডেট: ১৪:১৪, ১ মার্চ ২০২৪

১৩ শতাংশ ছাড়াল ব্যাংকঋণের সুদ

বাংলাদেশ ব্যাংক 

ব্যাংক খাতে নতুন ঋণের সুদহার ছাড়িয়েছে ১৩ শতাংশ। নতুন এ সুদহার মার্চে নতুন ঋণের ক্ষেত্রে কার্যকর হবে। বৃহস্পতিবার (২৯ ফেব্রুয়ারি) মার্চ মাসের জন্য বাংলাদেশ ব্যাংকের ‘স্মার্ট’ এর হার প্রকাশের পর ঋণে সর্বোচ্চ সুদের হার দাঁড়িয়েছে ১৩ দশমিক ১১ শতাংশ।

বাংলাদেশ ব্যাংকের নতুন হার অনুযায়ী, কোনো ব্যাংক চাইলে মার্চ থেকে তার গ্রাহককে ঋণ দিতে সর্বোচ্চ ১৩ দশমিক ১১ শতাংশ হারে সুদ নিতে পারবে। তবে আগের মতোই ব্যাংক-গ্রাহক সম্পর্কের ভিত্তিতে তা কম হওয়ার সুযোগও রয়েছে। বর্তমানে বাংলাদেশ ব্যাংক প্রতি মাসের শুরুতে ঋণের সুদহার নির্ধারণ করে দেয়।

বর্তমানে যে পদ্ধতি মেনে সুদহার নির্ধারণ করা হয়, সেই পদ্ধতিতে ফেব্রুয়ারি শেষে মার্চের জন্য সুদের ভিত্তি হার প্রায় ১ শতাংশ বেড়ে গেছে। এ কারণে বাংলাদেশ ব্যাংক ভিত্তি হারের সঙ্গে বাড়তি যে সুদ যুক্ত হয়, সেটি কিছুটা কমিয়ে দিয়েছে। তা সত্ত্বেও ব্যাংকঋণের সুদহার মার্চে বেড়ে দাঁড়াচ্ছে ১৩ দশমিক ৩৬ শতাংশ। ফেব্রুয়ারিতে ব্যাংকঋণের সুদ ছিল ১২ দশমিক ৪৩ শতাংশ। গত জুলাইয়ে ব্যাংকঋণ ও আমানতের ৯-৬ সুদহার তুলে নেওয়ার পর ব্যাংকের ঋণের সুদহার মার্চে এসে সর্বোচ্চ পর্যায়ে উঠছে।

আট মাস আগে ‘স্মার্ট’ চালুর পর থেকে এ দুই হারই সর্বোচ্চ এবং একমাসের ব্যবধানে স্মার্টও বেড়েছে সবচেয়ে বেশি। আগের মাসের চেয়ে বেড়েছে ৯৩ বেসিস পয়েন্ট। ফেব্রুয়ারির স্মার্ট ঠিক হয়েছে ৯ দশমিক ৬১ শতাংশ। গত জানুয়ারিতে যা ছিল ৮ দশমিক ৬৮ শতাংশ।

নিয়ম অনুযায়ী ফেব্রুয়ারি মাসের ‘স্মার্ট’ সুদহার প্রযোজ্য হবে মার্চ মাসে বিতরণ করা নতুন ঋণের ক্ষেত্রে। আগামী মার্চ থেকে নতুন ঋণ বিতরণে স্মার্ট’ সুদহার ৯ দশমিক ৬১ শতাংশ ধরতে হবে বাণিজ্যিক ব্যাংকগুলোকে।

কেন্দ্রীয় ব্যাংক বলছে, মূল্যস্ফীতি কমানোর জন্য মুদ্রানীতি কমিটির সিদ্ধান্তের পরিপ্রেক্ষিতে নীতি সুদহার বৃদ্ধির প্রভাব স্মার্টের ওপর ইতোমধ্যে প্রতিফলিত হয়েছে। তাই ঋণের সুদহার মুদ্রানীতির সঙ্গে সামঞ্জস্যপূর্ণ করা এবং অর্থনৈতিক গতিশীলতা বজায় রাখার জন্য ঋণের সুদহার নির্ধারণের ক্ষেত্রে নতুন নির্দেশনা পালন করতে হবে।

 এবি

×