ঢাকা, বাংলাদেশ   বুধবার ০৬ জুলাই ২০২২, ২২ আষাঢ় ১৪২৯

পরীক্ষামূলক

লাইফস্টাইল

ফিটনসের জন্য পরিশ্রমের বিকল্প নেই

প্রকাশিত: ১৮:২৩, ২৪ মে ২০২২

ফিটনসের জন্য পরিশ্রমের বিকল্প নেই

অনলাইন ডেস্ক ॥ ফিটনেসের প্রতি সব সময়েই বিশেষ নজর রাখা উচিত। সুস্বাস্থ্য শরীরের পাশাপাশি মনও ভালো রাখে। এই কাঙ্ক্ষিত ফিটনসে পাওয়ার জন্য পরিশ্রম তো করতে হবেই। শরীরচর্চা ও ডায়েটের পাশাপাশি চিন্তা-ভাবনায়ও ইতিবাচক থাকতে হবে। তো চলুন জেনে আসি ফিটনেস ধরে রাখতে যা করা প্রয়োজন। শরীরচর্চা এমন সব শরীরচর্চা করুন, যেগুলোতে পায়ের শক্তি বৃদ্ধি পায়। সেইসঙ্গে পায়ের পেশীও থাকে টানটান। ফলে হাঁটা বা দৌড়ানো সহজ হয়। আমাদের শরীরের ভার বহন করে আমাদের দুই পা, তাই পায়ের জোর বেশি থাকলে তার প্রভাব পড়ে শরীরে। সাঁতার কাটা জিমে ওয়ার্কআউট করার পাশপাশি সাঁতার কাটা খুবই গুরুত্বপূর্ণ। নিজের ওজন ঠিক রাখতে নিয়মিত সাঁতার কাটতে হবে। পেটের মেদ কমাতেও সাঁতার ভালো কাজ করে। এটি পেশীকে শক্তিশালী করতে এবং শরীরকে সঠিক আকার দিতে কাজ করে। খাবার শুধু শরীরচর্চাই নয়, ফিট থাকার জন্য গুরুত্বপূর্ণ হলো সঠিক খাবার। সুস্থ ও ফিট থাকার জন্য খাবারের তালিকায় প্রয়োজন পুষ্টিকর খাবার। প্রতিদিনের খাবারে ডাল, সেইসঙ্গে প্রচুর সবুজ শাকসবজি, পালং শাক, ডিম, বাদাম ইত্যাদি নিয়মিত খেতে হবে। পানি খান বেশি বেশি সুস্থ থাকার জন্য ৮ থেকে ১০ গ্লাস পানি পান করা উচিত। পর্যাপ্ত পানি খেলে শরীরের সমস্ত টক্সিন অপসারিত হয়। কম পানি পান করলে কোষ্ঠকাঠিন্য, ত্বকে শুষ্কভাব ও কিডনির সমস্যা দেখা দিতে পারে। হাঁটা দিনে অন্তত ৫ হাজার স্টেপ হাঁটুন। স্বাস্থ্যের পক্ষে খাবার যতটা জরুরি, ততটাই জরুরি রোজ হাঁটাচলা করা। খাবার খাওয়ার পর কিছুক্ষণ হাঁটা উচিত। সকালে আধ ঘণ্টা জোর কদমে হাঁটলে উপকার পেতে পারেন। সকালে সময় না-পেলে রাতে খাবার খাওয়ার পর আধ ঘণ্টা অবশ্যই হাঁটুন।