ঢাকা, বাংলাদেশ   বুধবার ০১ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, ১৯ মাঘ ১৪২৯

monarchmart
monarchmart

রাশিয়া-চীনের যৌথ টহল

দক্ষিণ কোরিয়ার পাল্টা প্রস্তুতি

প্রকাশিত: ২০:৫৮, ৩০ নভেম্বর ২০২২

রাশিয়া-চীনের যৌথ টহল

রাশিয়া-চীন বোমারু বিমানের যৌথ টহল

জাপান সাগর ও পূর্ব চীন সাগরে বুধবার যৌথ টহল চালিয়েছে রাশিয়া ও চীন। এই টহলে টুপোলেভ-৯৫ নামের দূরপাল্লার বোমারু অংশগ্রহণ করে। বুধবার রুশ প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় এই তথ্য জানিয়েছে। দক্ষিণ কোরিয়ার সেনাবাহিনী জানিয়েছে, চীনের দুটি ও রাশিয়ার ছয়টি যুদ্ধবিমান তাদের আকাশ প্রতিরক্ষা সীমায় প্রবেশ করার পর দেশটিও যুদ্ধবিমান উড্ডয়ন করেছে। খবর আরটির।
রাশিয়ার প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় জানায়, টহলের রুটে নির্দিষ্ট পর্যায়ে কৌশলগত ক্ষেপণাস্ত্রবাহী উড়োজাহাজ বিদেশী যুদ্ধবিমানকে সঙ্গ দিয়েছে। মন্ত্রণালয় দাবি করেছে, রুশ ও চীনা উড়োজাহাজ আন্তর্জাতিক আইনের ধারা মেনে টহল দিয়েছে এবং কোন দেশের আকাশসীমা লঙ্ঘন করা হয়নি। রুশ মন্ত্রণালয় আরও জানিয়েছে, এই প্রথম রাশিয়া ও চীনের সামরিক উড়োজাহাজ যৌথ টহলের অংশ হিসেবে একে অপরের বিমান ঘাঁটিতে অবতরণ করেছে। টুপোলেভ টিইউ-৯৫ বোমারুকে ন্যাটো বিয়ার নামে আখ্যায়িত করে।

এটি এবং টিইউ-১৬০ কে রাশিয়ার পরমাণু বাহিনীর দূরপাল্লার বিমান হামলার মেরুদ- বলে মনে করা হয়। শীতল যুদ্ধের সময় যুক্তরাষ্ট্রে পারমাণবিক বোমা নিক্ষেপের জন্য এটি নক্সা করা হয়েছিল। দক্ষিণের জয়েন্ট চিফস অব স্টাফ (জেসিএস) জানায়, বুধবার ভোরে চীনের দুটি বোমারু বিমান দক্ষিণ এবং দক্ষিণ-পূর্ব উপকূলের কাছে কোরিয়া আকাশ প্রতিরক্ষা শনাক্তকরণ অঞ্চলে (কাদিজ) একাধিকবার প্রবেশ ও পরে বের হয়ে যায়। কয়েক ঘণ্টা পর বিমান দুটি আরও ছয়টি রুশ যুদ্ধবিমানকে সঙ্গে নিয়ে জাপান সাগর থেকে ফের কাদিজে ঢুকে পড়ে এবং ১৮ মিনিট পর ওই এলাকা ছাড়ে। রুশ বিমানগুলোর মধ্যে বোমারু বিমান ও এসইউ-৩৫ জঙ্গিবিমান ছিল বলে জানিয়েছে জেসিএস। জাপান সাগর দক্ষিণ কোরীয়দের কাছে পূর্ব সাগর হিসেবে পরিচিত।
জেসিএস এক বিবৃতিতে বলেছে, কাদিজে রুশ ও চীনা উড়োজাহাজের প্রবেশের আগেই সম্ভাব্য আকস্মিক কোন ঘটনার প্রস্তুতিতে কৌশলগত ব্যবস্থা কার্যকরে বিমান বাহিনীর যুদ্ধবিমানকে প্রস্তুত থাকতে বলে আমাদের সামরিক বাহিনী। তবে আকাশ প্রতিরক্ষা অঞ্চলে রুশ ও চীনা যুদ্ধবিমান ঢুকলেও কোন বিমানই দক্ষিণ কোরিয়ার আকাশসীমা লংঘন করেনি। কোন দেশের আকাশ প্রতিরক্ষা অঞ্চল হচ্ছে সেই এলাকা যেখানে দেশটি বিদেশী উড়োজাহাজকে নিজেদের পরিচয় নিশ্চিতে বিশেষ পদক্ষেপ নিতে বলতে পারে।

monarchmart
monarchmart