ঢাকা, বাংলাদেশ   শুক্রবার ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২২, ১৫ আশ্বিন ১৪২৯

ডেল্টা লাইফের প্রশাসক প্রত্যাহার

অর্থনৈতিক রিপোর্টার

প্রকাশিত: ০০:৪৮, ২০ সেপ্টেম্বর ২০২২

ডেল্টা লাইফের প্রশাসক প্রত্যাহার

ডেল্টা লাইফ

অবশেষে পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত জীবন বীমা কোম্পানি ডেল্টা লাইফ ইন্সু্যুরেন্স থেকে প্রশাসক প্রত্যাহার করে নিয়েছে বীমা উন্নয়ন ও নিয়ন্ত্রণ কর্তৃপক্ষ (আইডিআরএ)। সেই সঙ্গে ডেল্টা লাইফ পরিচালনায় নতুন পর্ষদকে দায়িত্ব দেয়া হয়েছে। সোমবার দুটি পৃথক আদেশে প্রশাসক প্রত্যাহার এবং কোম্পানিটি পরিচালনার নতুন পর্ষদের দায়িত্ব দেয়া হয়েছে। দুটি আদেশেই সই করেছেন আইডিআরএর নির্বাহী পরিচালক শাকিল আখতার। আজ মঙ্গলবার থেকে নতুন পর্ষদ দায়িত্ব পালন করবে। ডেল্টা লাইফের নতুন পরিচালনা পর্ষদের চেয়ারম্যান হিসেবে হাফিজ আহমেদ মজুমদার এবং ভাইস চেয়ারম্যান হিসেবে অধ্যাপক ড. মোঃ জুনায়েদ শফিক দায়িত্ব দেয়া হয়েছে।

এ ছাড়া পরিচালক হিসেবে দায়িত্ব পেয়েছেন ডেল্টা লাইফের সাবেক মুখ্য নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) আদিবা রহমান, ডেল্টা লাইফের সাসপেন্ডেড পরিচালনা পর্ষদে থাকা সুরাইয়া রহমান ও জেয়াদ রহমান। এদের পাশাপাশি সাকিব আজিজ চৌধুরী, চাকলাদার রেজানুল আলম এবং সাকিব আজাদ কোম্পানিটির নতুন পরিচালনা পর্ষদে রয়েছেন। এদিকে কোম্পানি পরিচালনায় নতুন পর্ষদকে বেশ কিছু শর্ত দেয়া হয়েছে। এর মধ্যে রয়েছে- প্রচলিত আইন অনুযায়ী পরিচালনা পর্ষদ কর্তৃক সব কার্যক্রম সম্পাদন করতে হবে।

কোম্পানির আর্থিক বিবাদী সম্পর্কিত তথ্যাদি উদঘাটনে নতুন করে অডিট ফার্মের মাধ্যমে কার্যক্রম সম্পাদন করতে হবে। ইতোপূর্বে নিরীক্ষিত বিষয়াবলি শুনানি সাপেক্ষে নিষ্পত্তি করতে হবে। পুনর্গঠিত পরিচালনা পর্ষদ কর্তৃক দ্রুততম সময়ের মধ্যে এক বছরের ব্যবসায়িক কৌশলপত্র প্রদান করতে হবে এবং তার অগ্রগতি প্রতিমাসে কর্তৃপক্ষের কাছে দাখিল করতে হবে। বীমা আইন ও অন্যান্য আরোপিত বিধিনিষেধ পুঙ্খানুপুঙ্খ অনুসরণ করে অতি দ্রুত একজন দক্ষ এবং গ্রহণযোগ্য মুখ্য নির্বাহী কর্মকর্তা নিয়োগ করতে হবে। পূর্বে যদি কোন অনিয়ম চিহ্নিত হয়ে থাকে তার পুনরাবৃত্তি যাতে না ঘটে সে মতে ব্যবস্থা গ্রহণ করতে হবে। কর্তৃপক্ষ কর্তৃক পূর্বে আরোপিত জরিমানা আইন অনুযায়ী বিবেচিত হবে।

পুনর্গঠিত পরিচালনা পর্ষদ কোম্পানির পরবর্তী বার্ষিক সাধারণ সভা আগামী ৩১ ডিসেম্বর মধ্যে আয়োজনের ব্যবস্থা গ্রহণ করতে পারে। পরিচালনা পর্ষদে পর্যবেক্ষক হিসেবে মন্ত্রণালয়ের একজন উপযুক্ত প্রতিনিধিকে (যুগ্ম সচিবের নি¤েœ নয়)। নিয়োজিত করা হবে। অনিয়মের অভিযোগ তুলে গত বছরের ১১ ফেব্রুয়ারি ডেল্টা লাইফের পরিচালনা পর্ষদ সাসপেন্ড করে নিয়ন্ত্রক সংস্থা আইডিআরএ। সেই সঙ্গে আইডিআরএর সাবেক সদস্য সুলতান-উল-আবেদীন মোল্লাকে প্রশাসক নিয়োগ দেয়া হয়। পরে গত দেড় বছরে ৩ দফায় প্রশাসক পরিবর্তন করা হয়।

বর্তমানে প্রশাসক হিসেবে দায়িত্বে আছেন আইডিআরএর সাবেক সদস্য কুদ্দুস খান। অবশ্য প্রশাসক নিয়োগের আগেই আইডিআরএর সাবেক চেয়ারম্যান এম মোশাররফ হোসেনের বিরুদ্ধে ঘুষ দাবি করার অভিযোগ তোলে ডেল্টা লাইফ কর্তৃপক্ষ। ২০২০ সালের ৮ ডিসেম্বর ডেল্টা লাইফের পক্ষ থেকে দুর্নীতি দমন কমিশনে (দুদক) অভিযোগ করা হয়, আইডিআরএ চেয়ারম্যান এম মোশাররফ হোসেন ৫০ লাখ টাকা ঘুষ দাবি করেছেন।
দুদকে অভিযোগ করার পর ২০২১ সালের ৭ ফেব্রুয়ারি সংবাদ সম্মেলন করেও একই অভিযোগ করা হয়। ডেল্টা লাইফে প্রশাসক থাকা অবস্থায় কোন দরপত্র আহ্বান ছাড়া নিয়মবহির্ভূতভাবে মাস্ক কেনার অভিযোগে তাকে কারাগারেও যেতে হয়েছে। আর ডেল্টা লাইফের নিয়ে জড়ানো বিতর্কের জেরে আইডিআরএর চেয়ারম্যান পদ ছাড়তে হয়েছে এম মোশাররফ হোসেনকে।

২০১৮ সালের ৪ এপ্রিল আইডিআরএ সদস্য (লাইফ) হিসেবে নিয়োগ পাওয়া মোশাররফকে ২০২০ সালের ২৭ সেপ্টেম্বর ৩ বছরের জন্য সংস্থাটির চেয়ারম্যান নিযুক্ত করে অর্থ মন্ত্রণালয়ের আর্থিক প্রতিষ্ঠান বিভাগ। সে হিসেবে ২০২৩ সালের ২৬ সেপ্টেম্বর তার মেয়াদ শেষ হওয়ার কথা। মেয়াদ শেষ হওয়ার এক বছর আগেই চলতি বছরের ১৫ জুন তিনি পদত্যাগ করেন।