ঢাকা, বাংলাদেশ   শুক্রবার ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২২, ১৫ আশ্বিন ১৪২৯

ভূমি বিরোধ নিষ্পত্তি আইন নিয়ে ফের উত্তপ্ত রাঙ্গামাটি!

প্রকাশিত: ০৮:৩১, ২৩ ডিসেম্বর ২০১৯

ভূমি বিরোধ নিষ্পত্তি আইন নিয়ে ফের উত্তপ্ত রাঙ্গামাটি!

নিজস্ব সংবাদদাতা, রাঙ্গামাটি ॥ পার্বত্য চট্টগ্রাম ভূমি বিরোধ নিষ্পত্তি কমিশনের চেয়ারম্যান ও অবসরপ্রাপ্ত বিচারপতি মোহাম্মদ আনোয়ারুল হক বলেছেন, পার্বত্য চট্টগ্রাম ভূমি বিরোধ নিষ্পত্তি কমিশন আইনে সাংবিধানিকভাবে পাহাড়ি-বাঙালির কারো অধিকার ক্ষুণœ হবে না। এই কমিশন পার্বত্যবাসীর জন্য। এটি একক কোনো গোষ্ঠির কমিশন নয়। পার্বত্যবাসীর ডকুমেন্টের জন্য এ কমিশন। যদিও বিভিন্ন গোষ্ঠির প্রতিনিধি আছেন, এখানে কিন্তু তারা যখন সিদ্ধান্ত নেবেন, তখন পার্বত্যবাসীর পক্ষেই সিদ্ধান্ত নেবেন। আইন মতে নাগরিকদের অধিকার প্রতিষ্ঠার সিদ্ধান্ত নেবে। ইতিমধ্যে বিরুধ নিস্পত্তি দরখাস্তগুলো যাচাই-বাচাইয়ের কার্যক্রম চলছে। সোমবার দুপুরে রাঙ্গামাটি পার্বত্য জেলা পরিষদে নতুন করে স্থাপিত কমিশনের অফিস কক্ষে আয়োজিত পার্বত্য চট্টগ্রাম ভূমি বিরোধ নিষ্পত্তি কমিশনের ৭ম বৈঠক শেষে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি এসব কথা বলেছেন। এসময় উপস্থিত ছিলেন, পার্বত্য আঞ্চলিক পরিষদের চেয়ারম্যান জ্যোতিরিন্দ্র বোধিপ্রিয় লারমারা (ওরফে সন্তু লারমা), পার্বত্য চট্টগ্রাম ভূমি বিরোধ নিষ্পত্তি কমিশনের সচিব,মোঃ আলী মনছুর, রাঙ্গামাটি জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান বৃষকেতু চাকমা,বান্দরবান জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ক্য শৈ হ্লা, চাকমা সার্কেল চীফ ব্যারিষ্টার দেবাশীষ রায়,বান্দরবান বোমং সার্কেল চীফ উ চ প্রু চৌধুরী প্রমুখ। এর আগে পার্বত্য চট্টগ্রাম ভূমি বিরোধ নিষ্পত্তি কমিশনের চেয়ারম্যান ও অবসরপ্রাপ্ত বিচারপতি মোহাম্মদ আনোয়ারুল হক এর সাথে সৌজন্য সাক্ষাৎ করে পার্বত্য চট্টগ্রাম নাগরিক পরিষদ নেতাকর্মীরা। চেয়ারম্যান নেতাকর্মীদের বলেন,এই আইন নিয়ে যতই ঘাটবেন ,ততই জটিলতা বাড়বে। আর এই আইন হলে বাঙালি এবং পাহাড়িদের উভয়ের জমি রেকর্ড হবে এবং একটি ডকুমেন্টেশন হবে। তিনি আরও বলেন, পাহাড়ি-বাঙালি আমরা সবাই বাংলাদেশী। কিন্তু আপনারা অন্যায় করে যেমন ওদের ভিটামাটি থেকে উচ্ছেদ করতে পারবেন না,তেমনি পাহাড়িরাও আপনাদের ভিটামাটি থেকে উচ্ছেদ করতে পারবে না। যদিও পাহাড়িরা জোর করে কাউকে উচ্ছেদ করে, এটি যেমন সহ্য করবো না,তেমনি আপনাদেরকেও। এই সময়ে তারা একটি স্মারক লিপি তাকে প্রদান করেছেন । তিনি এই স্মারকলিপি প্রধানমন্ত্রী বরাবর পৌছে দেবেন বলে আশ^াস দেন। এসময় উপস্থিত ছিলেন, পার্বত্য চট্টগ্রাম নাগরিক পরিষদের স্টিয়ারিং কমিটির সদস্য মোঃ সোলাইমান, আবু বক্কর সিদ্দিকী,মোঃ শাহাজাহান ও মোঃ হাবিব প্রমূখ। এদিকে সকাল থেকে পার্বত্য চট্টগ্রাম ভূমি বিরোধ নিষ্পত্তি কমিশন (সংশোধন) আইন ২০১৬ সংশোধনের দাবিতে রাঙ্গামাটি শহরের বিক্ষোভ সমাবেশ করেছেন পার্বত্য চট্টগ্রাম নাগরিক পরিষদ। এসময় প্রায় ২ ঘন্টা শহরে যানবাহন চলাচল বন্ধ থাকে।