ঢাকা, বাংলাদেশ   সোমবার ০৩ অক্টোবর ২০২২, ১৮ আশ্বিন ১৪২৯

গীতাঞ্জলি সম্মাননা পদক প্রদান ও সাংস্কৃতিক আয়োজন

প্রকাশিত: ০৩:৩৩, ২৮ অক্টোবর ২০১৮

গীতাঞ্জলি সম্মাননা পদক প্রদান ও সাংস্কৃতিক আয়োজন

স্টাফ রিপোর্টার ॥ ঐতিহ্যবাহী সাংস্কৃতিক চর্চা ও বিকাশ কেন্দ্র গীতাঞ্জলি ললিতকলা একাডেমি প্রতিষ্ঠার চৌদ্দ বছর পূর্তি উপলক্ষে তিনদিনব্যাপী সাংস্কৃতিক উৎসব শুক্রবার শুরু হয়। উদ্বোধনী দিন দেশের শিল্প, সাহিত্য ও সংস্কৃতিতে গুরুত্বপূর্ণ অবদানের স্বীকৃতিস্বরূপ বরেণ্য চিত্রশিল্পী মুর্তজা বশীর, কবি নির্মলেন্দু গুণ ও সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব মফিদুল হককে ‘গীতাঞ্জলি সম্মাননা পদক ২০১৮’ প্রদান করা হয়। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন গীতাঞ্জলির উপদেষ্টা বরেণ্য শিক্ষাবিদ জাতীয় অধ্যাপক ড. রফিকুল ইসলাম। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন হুয়ারেন লিনেন গ্রুপের ব্যবস্থাপনা পরিচালক সাহেদ চৌধুরী ও এনন টেক্সের পরিচালক কাজী মোঃ মোস্তফা সারোয়ার। গীতাঞ্জলি ললিতকলা একাডেমির চতুর্দশ বর্ষপূর্তি উৎসব আয়োজনের পৃষ্ঠপোষকতায় ছিল সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রণালয়। উত্তরার বিসিক অডিটরিয়ামে বিকাল ৫টায় আয়োজিত এ উৎসবের উদ্বোধনীতে জাতীয় সঙ্গীত পরিবেশনার পরপরই স্বাগত বক্তব্য রাখেন গীতাঞ্জলি ললিতকলা একাডেমির পরিচালক (প্রধান নির্বাহী) মাহবুব আমিন মিঠু। সম্মাননা পদকের পাশাপাশি সম্মাননা অর্থ ২৫ হাজার টাকার তিনটি চেক তিন গুণীর হাতে তুলে দেন স্পন্সরকারী প্রতিষ্ঠান হুয়ারেন লিনেন গ্রুপের ব্যবস্থাপনা পরিচালক সাহেদ চৌধুরী ও এনন টেক্সের পরিচালক কাজী মোঃ মোস্তফা সারোয়ার। আলোচনা ও পদক প্রদানের পর গীতাঞ্জলির শিল্পীদের বর্ণাঢ্য সাংস্কৃতিক পরিবেশনা উপস্থিত দর্শকদের মুগ্ধ করে। উৎসবের দ্বিতীয়দিন ২৭ অক্টোবর শনিবার সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান, চিত্র প্রদর্শনী, বার্ষিক পুরস্কার বিতরণীতে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন জাতীয় অধ্যাপক আনিসুজ্জামান। বিশেষ অতিথি ছিলেন নাট্যজন রামেন্দু মজুমদার, বাংলাদেশ কর্মকমিশন সচিব আকতারী মমতাজ এবং গোল্ডেন ড্রিমস্ এ্যাসোসিয়েশনের চেয়ারম্যান সাইফুল ইসলাম। সভাপতিত্ব করেন দেশবরেণ্য শিক্ষাবিদ জাতীয় অধ্যাপক রফিকুল ইসলাম। এদিকে আগামী ২ নবেম্বর উৎসবের সমাপনী দিন শহীদ বুদ্ধজীবী মুনীর চৌধুরীর জীবন ও কর্মের ওপর নির্মিত মঞ্চ নাটক নাট্যদল থিয়েটার অঙ্গনের দশম প্রযোজনা প্রবীর দত্ত রচিত ও নির্দেশিত ‘মুনীর চৌধুরী’ নাটকের মঞ্চায়ন হবে। প্রসঙ্গত গীতাঞ্জলি শুদ্ধ সংস্কৃতি চর্চা ও বিকাশে গত ১৫ বছর ধরে সাংস্কৃতিক কার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছে। দেশের শিল্প, সাহিত্য ও সংস্কৃতিতে গুরুত্বপূর্ণ অবদানের স্বীকৃতিস্বরূপ প্রতিষ্ঠা সাল ২০০৪ থেকে গীতাঞ্জলি সম্মাননা পদক প্রদান করে আসছে।