ঢাকা, বাংলাদেশ   রোববার ২৯ জানুয়ারি ২০২৩, ১৬ মাঘ ১৪২৯

monarchmart
monarchmart

চাঁপাইনবাবগঞ্জ পৌরসভার মাস্টারপ্ল্যান তৈরি হচ্ছে

প্রকাশিত: ০৪:৫২, ২৫ ফেব্রুয়ারি ২০১৭

চাঁপাইনবাবগঞ্জ পৌরসভার মাস্টারপ্ল্যান তৈরি হচ্ছে

ডি. এম তালেবুন নবী, চাঁপাইনবাবগঞ্জ ॥ শতাব্দী পেরিয়ে যাওয়া পৌরসভা চাঁপাইনবাবগঞ্জে এবার উন্নয়নের বড় ধরনের পরিকল্পনা গ্রহণ করা হচ্ছে। যার কারণে তৈরি হচ্ছে মাস্টার প্ল্যান। এর ফলে পুরো পৌর এলাকায় জলবন্ধতা নিরসনে ও সুপেয় পানি সরবরাহ ব্যবস্থায় আসবে বড় ধরনের পরিবর্তন। এই প্রকল্প বাস্তবায়ন হলে চাঁপাইনবাবগঞ্জ পৌরসভা একটি আধুনিক পরিবেশবান্ধব হিসেবে গড়ে উঠবে বলে মনে করছে সংশ্লিষ্টরা। পৌরসভার আয়তন প্রায় ২৪৬০ বর্গ কিলোমিটার। জমির পরিমাণ ৬৫.১৬২ একর। লোকসংখ্যা প্রায় আড়াই লাখের কাছাকাছি। মোট ড্রেনের পরিমাণ পাকা ৪০.৯২ কিলোমিটার, কাঁচা ১০৫.৯৪ কিঃ মিটার। ভূর্গস্থ ড্রেন ৬.০০ কিলোমিটার, ব্রিজ ১৬টি, কালভার্ট ৪৭টি। হস্তচালিত নলকূপ ২ হাজার ১১০টি, গভীর নলকূপ ১৮টি। এর মধ্যে ১১টি আর্সেনিকের কারণে বন্ধ করে দেয়া হয়েছে। পানি সরবরাহ লাইন ৭০.৭৭ কিঃ মিঃ। গৃহ সংযোগের সংখ্যা পাঁচ হাজারের কাছাকাছি। ১৫টি ওয়ার্ড নিয়ে গঠিত এই পৌরসভায় সড়ক বাতির সংখ্যা প্রায় ৪ হাজার ৯৯৯। এর মধ্যে সোডিয়াম বাতির সংখ্যা ৬৮৫টি। সরকারী বেসরকারী মিলিয়ে হোল্ডিংয়ের সংখ্যা প্রায় ৩৪ হাজার। পরিবারের সংখ্যা ৪৪ হাজার। ১৯৮০ সালে পৌরসভাটি প্রথম শ্রেণীতে উন্নতি হয়। প্রতিষ্ঠাকাল ১ ফেব্রুয়ারি ১৯০৩। ফলে শতবর্ষ পেরিয়েছে অনেক আগেই। বর্ষকালে পুরো পৌরসভা চলে যায় পানির নিচে। প্রেসক্লাব এলাকা ও মেথরপাড়াসহ পুরো ইসলামপুর এলাকার রাস্তঘাট পানিতে তলিয়ে যাবার কারণে যানবাহনসহ মানুষ চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। এই অবস্থা থেকে বেরিয়ে আসতে ২০ বছর মেয়াদী মাস্টার প্ল্যান তৈরি করার কাজ শুরু করেছে পৌর কর্তৃপক্ষ। এশীয় উন্নয়ন ব্যাংকের আর্থিক সহায়তায় তৃতীয় নগর পরিকল্পনা ও অবকাঠামো উন্নতিকরণ প্রকল্পের আওতায় এখন চলছে মাস্টার প্ল্যান তৈরির কাজ। পুরো প্রকৌশল শাখা সার্বক্ষণিক মনোনিবেশ করে প্রকল্প তৈরি করছে। কর্তৃপক্ষ বলছে মাস্টার প্ল্যান তৈরির জন্য দফায় দফায় বৈঠকে বসছেন। এসব বৈঠকে এলাকার জনপ্রতিনিধি সুশীল সমাজ, সাধারণ নাগরিকসহ বিভিন্ন শ্রেণী-পেশার মানুষের সুচিন্তিত মতামত গ্রহণ করে মূল্যায়ন করা হচ্ছে। ইতোমধ্যেই এদের নিয়ে পৌর কর্তৃপক্ষ দুই দফা বৈঠক সেরেছেন। প্রয়োজনে আরও বৈঠকে বসবেন। বর্তমানে পৌর এলাকায় বিরাজমান সমস্যাগুলো চিহ্নিত করতে ব্যাপক হারে সার্ভে করা হচ্ছে। সার্ভে শেষ হওয়া মাত্র খসড়া মাস্টার প্ল্যান তৈরির কাজে হাত দেয়া হবে। যা প্রতিটি ওয়ার্ডে গণশুনানির মাধ্যমে পৌরবাসীর বা সাধারণ মানুষের মতামত গ্রহণ করা হবে। এরপরই চূড়ান্ত মাস্টার প্ল্যানের রূপরেখা তৈরি হবে। মাস্টার প্ল্যান তৈরি হওয়া মাত্র তিনটি ভাগে বিভক্ত করে কাজ শুরু হবে। প্রথমটি পাঁচ বছর মেয়াদী, দ্বিতীয়টি মধ্যকালীন, যার মেয়াদ হবে প্রায় ১০ বছর, সর্বশেষ যা দীর্ঘকালীন হিসেবে গণ্য হবে ২০ বছর। এর বাইরেও মেয়াদী পরিকল্পনা গ্রহণ করা হবে। প্রতিষ্ঠার শত বছর পর যে চাঁপাইনবাবগঞ্জ পৌরসভার মাস্টার প্ল্যান হচ্ছে বিষয়টি এখন পৌরবাসীর অহঙ্কারে পরিণত হয়েছে, বিধায় সুধীরা জানিয়েছে প্রাণঢালা শুভেচ্ছা। এতদিন যে সব উন্নয়নের কাজ হয়েছে তা ছিল খুবই অপরিকল্পিত। যার কারণে স্থায়িত্ব ছিল না। উন্নয়ন সমস্যা হিসেবে সামনে এনে দাঁড় হতো। যার কারণে এতদিন কাক্সিক্ষত নাগরিক সেবা দিতে পারছিল না পৌরসভা। মাস্টার প্ল্যান সম্পন্ন হওয়া সেই মোতাবেক কাজ বা উন্নয়ন হলে জনসাধারণ দারুণভাবে উপকৃত হবে। একইভাবে বর্তমান সরকারের বহুমাত্রিক সমাজসেবার ইচ্ছা থেকে বেরিয়ে এসেছে মাস্টার প্ল্যানের মাধ্যমে কাজ করার। যা দীর্ঘকালীন টেকসই হবে।
monarchmart
monarchmart