মঙ্গলবার ৩ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯, ১৭ মে ২০২২ ঢাকা, বাংলাদেশ
প্রচ্ছদ
অনলাইন
আজকের পত্রিকা

ফাইনালে এক পা লিভারপুলের

  • ইংলিশ লীগ কাপ, স্টোক সিটি ০-১ লিভারপুল

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ আধিপত্য বিস্তার করে খেলেও ভাগ্যবিড়ম্বনায় হারতে হয়েছে স্টোক সিটিকে। ইংলিশ লীগ কাপ (ক্যাপিটাল ওয়ান কাপ) ফুটবলের সেমিফাইনালের প্রথম লেগের ম্যাচে ঘরের মাঠে লিভারপুলের কাছে ১-০ গোলে হেরেছে স্বাগতিক স্টোক সিটি। ব্রিটানিয়া স্টেডিয়ামে দ্য রেডসদের হয়ে জয়সূচক গোলটি করেন জর্ডান আইবে।

এই জয়ে ফাইনালে এক পা দিয়ে রেখেছে লিভারপুল। আগামী ২৬ জানুয়ারি নিজেদের মাঠ এ্যানফিল্ডে শেষ চারের দ্বিতীয় লেগের ম্যাচ খেলবে জার্গেন ক্লপের দল। ওই ম্যাচে ড্র করলেই ফাইনালের টিকেট পাবে আসরের সর্বোচ্চ ৮ বারের শিরোপাধারী লিভারপুল। এবারের লীগ কাপে ফাইনালে লিভারপুল ও ম্যানচেস্টার সিটির দ্বৈরথ হওয়ার সম্ভাবনা জোরালো। ইতোমধ্যে দ্য রেডসরা সেমির প্রথম লেগ জিতে ফাইনালের পথে। বুধবার রাতে আরেক সেমির প্রথম লেগে এভারটনের বিরুদ্ধে সিটি জয় পেলেই কাক্সিক্ষত মহারণের প্রেক্ষাপট সৃষ্টি হবে। পুরো ম্যাচে বল দখলের লড়াইয়ে এগিয়ে ছিল স্বাগতিক স্টোক। কিন্তু গোল মিসের মহড়ার কারণে হারতে হয়েছে তাদের। খেলার ধারার বিপরীতে ৩৭ মিনিটে একমাত্র গোলটি করেন বদলি খেলোয়াড় জর্ডান আইবে। এ্যাডাম লালানার কাট ব্যাক থেকে জো এ্যালেনের পাসে গোলটি করেন ইংলিশ এই মিডফিল্ডার। এই গোলটি ধরে রেখে জয় নিয়ে মাঠ ছাড়ে সফরকারীরা। বিরতির পর ম্যাচে ফিরতে একের পর এক আক্রমণ শানিয়েও জাল খুঁজে পায়নি স্বাগতিক ফুটবলাররা। ম্যাচ শেষে জয়ের জন্য স্বস্তি প্রকাশ করলেও গোল মিসের কারণে অস্বস্তির কথা জানান লিভারপুল কোচ জার্গেন ক্লপ। তিনি বলেন, আবারও আমাদের ফিনিশিং ভাল হয়নি। আমাদের লক্ষ্য ঠিক ছিল, ভাল ফুটবল খেলেছে ছেলেরা। তবে আরও গোল পাওয়া উচিত ছিল। স্টোক সিটির কোচ মার্ক হিউজেস বলেন, প্রথমার্ধের মাসুল দিতে হয়েছে আমাদের। এ অর্ধে প্রতিপক্ষকে আমরা সুযোগ করে দিয়েছি। দ্বিতীয়ার্ধে ভাল খেললেও লিভারপুল তাদের রক্ষণ ভালমতোই সামলেছে। এর আগে কোয়ার্টার ফাইনালে বিশাল জয় নিয়ে সেমিতে নাম লেখায় লিভারপুল। গত ডিসেম্বরে হাফডজন গোল করে শেষ চার নিশ্চিত করে দ্য রেডসরা। কোয়ার্টার ফাইনালে দ্য রেডসরা ৬-১ গোলের বিশাল ব্যবধানে পরাজিত করে সাউদাম্পটনকে। ওই ম্যাচে বিজয়ী দলের হয়ে দৃষ্টিনন্দন হ্যাটট্রিক করেন ডিভক অরিজি। ইনজুরি থেকে ফিরেই জোড়া গোল করেন ড্যানিয়েল স্টারিজ। এক গোল করেন জর্ডান আইবে। যিনি সেমির প্রথম লেগেও গোল করেছেন। সেমির পর লন্ডনের বিখ্যাত ওয়েম্বলি স্টেডিয়ামে ২৮ ফেব্রুয়ারি শিরোপা নির্ধারণী ফাইনাল মহারণ অনুষ্ঠিত হবে। শেষ আটে লিভারপুলের হয়ে গোলের খাতা খোলাটা হ্যাটট্রিক দিয়েই স্মরণীয় করে রাখেন বেলজিয়ামের ডিভক অরিজি। দ্য রেডসদের জন্য বড় স্বস্তি হয়ে আসে ড্যানিয়েল স্টারিজের গোল দুটি। দায়িত্ব নেয়ার পর থেকেই এই ইংলিশ স্ট্রাইকারকে চোটে আক্রান্ত দেখেছেন কোচ ক্লপ। তার ফিরে আসায় স্বস্তি জানান তিনি। ২৬ বছর বয়সী স্ট্রাইকারকে নিয়ে উচ্ছ্বাসের সুরে ক্লপ বলেন, ম্যাচ শেষ হওয়ার পর আমি ওকে (স্টারিজ) বলছিলাম, এখন বুঝতে পারছি সবাই কী নিয়ে কথা বলছিল। অবশ্যই ওর মান সম্পর্কে ধারণা আছে আমার। এমন স্ট্রাইকারদের দলে পাওয়াটা বেশ স্বস্তির। স্টারিজকে শুরু থেকেই খেলানোর সিদ্ধান্তটা যে সঠিক ছিল, তাতে নিজেই যেন নিজের পিঠ চাপড়ে দিয়েছেন ক্লপ।

এ প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ড্যানিয়েলের ব্যাপারে যে সমস্যাটা ছিল, তা হচ্ছে আমরা নিশ্চিত ছিলাম না যে ও কতক্ষণ খেলতে পারবে। প্রাক-মৌসুমটা খুব একটা ভাল কাটেনি ওর। তবে ওকে শুরু থেকেই দলে রাখাটা বেশ ভাল সিদ্ধান্ত ছিল।

শীর্ষ সংবাদ: