ঢাকা, বাংলাদেশ   শনিবার ২৪ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ১১ ফাল্গুন ১৪৩০

চায়ের দোকানে নির্বাচনী আমেজ

সংবাদদাতা, তালতলী, বরগুনা

প্রকাশিত: ১৭:১৪, ১ ডিসেম্বর ২০২৩; আপডেট: ১৭:১৭, ১ ডিসেম্বর ২০২৩

চায়ের দোকানে নির্বাচনী আমেজ

চায়ের দোকান। ছবি: জনকণ্ঠ

আগামী ৭ জানুয়ারি অনুষ্ঠিত হতে হচ্ছে জাতীয় দ্বাদশ সংসদ নির্বাচন। ইতিমধ্যে বরগুনা-১ আসনে (বরগুনা সদর-আমতলী-তালতলী) আওয়ামী লীগসহ ১১ জন মনোনয়ন পত্র দাখিল করেছেন। 

এই নির্বাচনকে সামনে রেখে ভোটারদের মধ্যে জল্পনা-কল্পনার শেষ নেই। সরকার গঠনের নির্বাচন হওয়ায় আমেজ ছড়িয়ে পড়েছে প্রত্যন্ত অঞ্চলে। প্রত্যাশা শুধু একটাই অবাধ, সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ ভোটের পরিবেশ চান ভোটররা। এই আলোচনা এখন সকল চায়ের দোকানে দোকানে।
    
জানা যায়, বরগুনা-১ আসনে (বরগুনা সদর-আমতলী-তালতলী) ছয় বারের সংসদ সদস্য অ্যাডভোকেট ধীরেন্দ্র দেবনাথ শম্ভু আবারও নৌকার মাঝি হয়েছেন। তাকে ঠেকাতে মাঠে আওয়ামী লীগের হেভিওয়েট তিন জন প্রার্থী স্বতন্ত্র হিসেবে মনোনয়ন পত্র দাখিল করেছেন। 

তারা হলেন- জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক গোলাম সরোয়ার টুকু, জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সদস্য গোলাম সরোয়ার ফোরকান ও কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক খলিলুর রহমান। 

এছাড়াও জাতীয় পার্টির এইচ এম খলিলুর রহমান, জাকের পার্টির মো. জাহাঙ্গীর কবির, ন্যাশনাল পিপলস্ পাটির মাহবুবুর রহমান, বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী আন্দোলনের মাসুদ কামাল, তৃনমূল বিএনপির ইউনুস সোহাগ, বাংলাদেশ তরিকত ফেডারেশনের শাহ মো. আবুল কালাম ও স্বতন্ত্র মো. নুরুল ইসলাম মনোনয়ন দাখিল করেন। এই ১১ জন মনোনয়ন দাখিল করার পর পরই শুরু হয়েছে চায়ের দোকানে নির্বাচনী আমেজ। 

কেউ তার পছন্দের  প্রার্থীর পক্ষে কথা বলে তার সাফাই গাইছেন আবার অপর একজন অন্য প্রার্থীর ভূয়সী প্রশংসার করছেন। দোকান গুলোতে চা-সিগারেট পান করতে করতে অনেকেই নির্দ্বিধায় কোন একটি প্রার্থীর পক্ষে নিজের অবস্থান জানান দিচ্ছেন। তবে সকল ভোটারদের একটাই প্রত্যাশা অবাধ, সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ পরিবেশে ভোট গ্রহণ।
  
বরগুনা-১ আসনে তিনটি উপজেলার ভেতরে বরগুনা সদর উপজেলায় আওয়ামীলীগ প্রার্থীসহ ৮ জন প্রার্থী রয়েছে। আমতলীতে দুই জন স্বতন্ত্র প্রার্থী ও তালতলীতে মাত্র একজন জাতীয় পার্টির প্রার্থী রয়েছে। এজন্য যেই সংসদ সদস্য নির্বাচিত হবে তাকে তালতলী উপজেলার ভোটারদের ওপরেই নির্ভর করতে হবে বলে জানান স্থানীয় ভোটাররা।

তালতলী উপজেলার লাউপাড়া বাজারের বিভিন্ন চা দোকানে গিয়ে দেখা যায় চা সেবীদের আড্ডা। বাজারের দক্ষিণ পাশের একটি চা দোকানে অন্তত ১০-১২জন বিভিন্ন বয়সী ভোটার নির্বাচন নিয়ে আলোচনা করছেন। ভোটাররা কেউবা এগিয়ে রাখছেন আওয়ামী লীগ প্রার্থীকে আবার কেউবা এগিয়ে রাখছেন আওয়ামী লীগের স্বতন্ত্র প্রার্থীকে। ভোটাররা বর্তমান সংসদ সদস্যর উন্নয়ন নিয়েও বেশ আলোচনা করছেন। অবাধ, সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ ভোটের মধ্য দিয়ে সৎ ও আদর্শবান প্রার্থীকে নির্বাচিত করতে চায় সাধারণ ভোটাররা।

ভোটার হাইরাজ মাঝি বলেন, এ উপজেলায় বিভিন্ন শিল্প কারখানা সহ পর্যটন খাতেও উন্নয়ন হয়েছে। তবে সড়কগুলোতে তেমন সংস্কার হয়নি। আমরা সাধারণ ভোটার হিসেবে দাবি আগামীতে যে সরকার আসুক আমাদের রাস্তাঘাট গুলো ভালোভাবে নির্মাণ করে।

চায়ের দোকানে বসে সাধারণ ভোটার নয়ন সাজ্জাল বলেন, বর্তমান সরকারের আমলে যে উন্নয়ন তালতলীতে হয়েছে তাতে আবারও নৌকায় ভোট দিবে বলে আমি আশাবাদী।

তালতলী উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মু. তৌফিকুজ্জামন তনু বলেন, এই সরকারের আমলে তালতলীতে ব্যাপক উন্নয়ন হয়েছে। আগামীতে আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় আসলে তালতলী উপজেলা একটি মডেল উপজেলা হবে।
 

এসআর

×