ঢাকা, বাংলাদেশ   মঙ্গলবার ১৬ এপ্রিল ২০২৪, ৩ বৈশাখ ১৪৩১

কানাডা যাওয়া হলো না, আহারে শখ! হায়রে মোটরসাইকেল! 

প্রকাশিত: ১৮:১১, ১৭ নভেম্বর ২০২৩

কানাডা যাওয়া হলো না, আহারে শখ! হায়রে মোটরসাইকেল! 

নিহত মাহফুজুর রহমান

বয়স সবেমাত্র ১৭ হলো, বাবার কাছে বলেছিলেন শখের মোটরসাইকেল কিনে দেয়ার কথা। বাবাও ছেলের শখ পূরণে কিনে দিলেন মোটরসাইকেল। শখের সেই মোটরসাইকেল নিয়ে বৃদ্ধ নানা-নানিকে দেখতে ঢাকা থেকে গ্রামের বাড়ির উদ্দেশ্যে রওনা হয়েছিল সে। 

কিন্তু শখের সেই মোটরসাইকেলের কারণেই জীবন দিতে হলো মাহফুজকে। ঢাকা-মাওয়া মহাসড়কে মোটরসাইকেল দুর্ঘটনায় প্রাণ হারিয়েছে বাবা-মা এর একমাত্র ছেলে। ছেলে সন্তানকে হারিয়ে পরিবারে চলছে শোকের মাতম।

বৃহস্পতিবার (১৬ নভেম্বর) বিকেলে ঢাকা-মাওয়া মহাসড়কে দুর্ঘটনায় প্রাণ হারিয়েছে শরীয়তপুরের ছেলে মাহফুজ। 

নিহত মাহফুজুর রহমান শরীয়তপুরের নড়িয়া পৌরসভা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মিলন জমাদ্দারের একমাত্র ছেলে। পৌরসভার ১নং ওয়ার্ডে মিলন জমাদ্দারের বসতবাড়ি।

স্থানীয় ও পরিবার সূত্রে জানা যায়, মাহফুজ খুবই মেধাবী শিক্ষার্থী ছিল। গত বছর মাধ্যমিক পরীক্ষায় জিপিএ-৫ পাওয়ার পর বাবা মিলন জমাদ্দার তাকে আইফোন কিনে দিয়েছিলেন। কিছুদিন ধরে সে মোটরসাইকেলের জন্য বায়না করেছিল। মোটরসাইকেল দুর্ঘটনা নিয়ে বাবা জানতেন বলে প্রথমে কিনে দিতে চাননি। অনেক রাগ, অভিমানের পর দুই সপ্তাহ আগে ছেলেকে ৫ লাখ টাকা দিয়ে মোটরসাইকেল কিনে দিয়েছিলেন মিলন জমাদ্দার। শখের সেই মোটরসাইকেল নিয়ে বৃদ্ধ নানা-নানিকে দেখতে যাওয়ার পথে ঢাকা-মাওয়া মহাসড়কে দুর্ঘটনায় মারা গেছে মাহফুজ। ছেলের উজ্জ্বল ভবিষ্যতের জন্য এক সপ্তাহ আগে কানাডা যেতে সকল প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছিলেন মিলন জমাদ্দার। কিন্তু এক দুর্ঘটনা সব কিছু শেষ করে দিল। 

নড়িয়া থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) হাফিজুর রহমান গণমাধ্যমকে জানান, মিলন জমাদ্দারের ছেলে মোটরসাইকেল দুর্ঘটনায় মারা গেছেন বলে জানতে পেরেছি। পরিবারের একমাত্র সন্তানকে হারিয়ে পরিবারটিতে শোকের মাতম  চলছে। এমন দুর্ঘটনা হৃদয়বিদারক।

এবি 

×