ঢাকা, বাংলাদেশ   মঙ্গলবার ২১ মে ২০২৪, ৬ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১

যন্ত্রদানব!

প্রকাশিত: ২১:৩৫, ১৯ এপ্রিল ২০২৪

যন্ত্রদানব!

.

সড়কে মৃত্যুর মিছিল যেন থামছেই না। ঈদের ছুটির পর ফাঁকা সড়কে দুর্ঘটনার সংখ্যা বেড়েছে। ফরিদপুরে মঙ্গলবারের সড়ক দুর্ঘটনায় ১৪ জন নিহত হওয়ার পর ২৪ ঘণ্টা না পেরোতেই  বুধবার ঝালকাঠিতে অন্য এক সড়ক দুর্ঘটনায় প্রাণ গেল আরও ১৪ জনের। বুধবার পৌর এলাকার পশ্চিমপ্রান্তে পঞ্চম চীন-বাংলাদেশ মৈত্রী গাবখান সেতুর টোল প্লাজায় নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে বেপরোয়া গতিতে একটি ট্রাক টোল দেওয়ার অপেক্ষায় থাকা তিনটি অটোরিকশা, একটি  মাইক্রোবাস পিকআপ ভ্যান এবং টোল আদায়কারী পথচারীকে চাপা দিয়ে পাশের খাদে পড়ে যায়। এতে ওই পাঁচটি গাড়ি দুমড়ে মুচড়ে ঘটনাস্থলে সাতজনের মৃত্যু হয়। আহত হন অন্তত ২০ জন। পরে তাদের হাসপাতালে নিলে আরও ছয়জনের মৃত্যু হয়।

এছাড়া দেশের বিভিন্ন স্থানে পৃথক সড়ক দুর্ঘটনায় নিহতের সংখ্যা বেড়েই চলেছে। গণমাধ্যমে প্রকাশিত সংবাদ বাংলাদেশ যাত্রী কল্যাণ সমিতির দুর্ঘটনা মনিটরিং সেলের পর্যবেক্ষণ প্রতিবেদনে উঠে এসেছে, চলতি বছরের মার্চে দেশে ৫৫২টি সড়ক দুর্ঘটনায় ৫৬৫ জন নিহত হয়েছেন। বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন কর্তৃপক্ষ (বিআরটিএ) সূত্র জানিয়েছে, বর্তমানে সারাদেশে যানবাহন আছে ৬০ লাখের মতো। এর মধ্যে ছয় লাখের বেশি যানবাহন চলছে অবৈধভাবে, যাদের হালনাগাদ ফিটনেস সনদ নেই। ফিটনেস সনদ ছাড়াই অবৈধভাবে এসব যান সড়কে চলাচল করছে। সড়কে এর প্রভাবও সুস্পষ্ট। বেসরকারি হিসাবের চেয়ে সরকারি হিসাবে দেশে সড়ক দুর্ঘটনায় প্রাণহানি কম। এরপরও সরকারি বেসরকারিÑ দুই হিসাবেই সড়কে প্রাণহানি প্রতিবছরই বাড়ছে।

২০১২ সালের পর ১১ বছরে সড়ক পরিবহন মন্ত্রণালয় লাখ ৬২ হাজার কোটি টাকার বেশি ব্যয় করেছে। সড়ক সম্প্রসারণ, নতুন নতুন সেতু টানেল নির্মাণ করা হয়েছে। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, বিপুল অর্থ ব্যয়ে অবকাঠামো উন্নয়ন হলেও সড়কে শৃঙ্খলা ফেরানোর চেষ্টা কম। সড়কে অবকাঠামো উন্নয়নে বিপুল ব্যয় হলেও যানবাহনের ফিটনেস চালকের লাইসেন্স নিশ্চিত করা, বেপরোয়াভাবে যানবাহন চালানো শ্রমিকদের মাদক গ্রহণ বন্ধ করা, নিরাপত্তা সরঞ্জাম ব্যবহার করা, সড়কের ত্রুটি দূর করা, অবৈধ যান চলাচল বন্ধ করাসহ অনেক কিছুই এখনো নিশ্চিত করা যায়নি। ফলে, সড়কে দুর্ঘটনা না কমে  বরং মৃত্যু বাড়ছে।

সড়ক দুর্ঘটনা এখন নৈমিত্তিক ঘটনা। সড়ক দুর্ঘটনার পরিসংখ্যান উদ্বেগজনক হলে তা রোধে বিভিন্ন সময় নানা কর্মপরিকল্পনার কথা শোনা গেলেও কার্যকর উদ্যোগ খুব কমই চোখে পড়ে। তাছাড়া অনেক সময় সড়কে যান চলাচল নির্বিঘ্ন করতে আইনের ব্যবহার প্রয়োগেও ঘাটতি দেখা যায়। রাস্তা বড় আর মসৃণ করলেই সড়ক দুর্ঘটনা কমবে, এমনটি নয়। পাশাপাশি সড়কে অবৈধ যানবাহন চলাচল বন্ধসহ নৈরাজ্য দূর করা আবশ্যক।

×