ঢাকা, বাংলাদেশ   শুক্রবার ২৩ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ১০ ফাল্গুন ১৪৩০

অযথা বাড়াবাড়ি কেন

এম হাবীবুল্লাহ

প্রকাশিত: ২০:৪৬, ৩০ নভেম্বর ২০২২

অযথা বাড়াবাড়ি কেন

৪ বছর পর পর আসর বসে বিশ্বকাপ ফুটবলের

৪ বছর পর পর আসর বসে বিশ্বকাপ ফুটবলের। আর এটিকে বলা হয়, দ্য গ্রেটেস্ট শো অন আর্থ। ফুটবল ছাড়া আর কোনো খেলায় এত দর্শক নেই। বিশ্বকাপ ফুটবলকে  ঘিরে  আগ্রহের কমতি নেই বাংলাদেশসহ সারাবিশ্বের মানুষের মাঝে। এক আসর শেষ হতে না হতেই অপেক্ষার পালা শুরু“হয় আরেক আসরের। আর এই অপেক্ষা যেন আনন্দেরই অপেক্ষা। দেশে বিভিন্ন দলের সাপোর্টার থাকলেও ব্রাজিল এবং আর্জেন্টিনার সাপোর্টারই বেশি। এক পক্ষ আরেক পক্ষকে খেলা ছাড়া মনস্তাত্ত্বিকভাবেও যেন হারিয়ে দিতে চায়। এ বছর এশিয়ার কয়েকটি দেশ ভালো করছে। যেমন- প্রথম ম্যাচেই সৌদি আরব হারিয়েছে আর্জেন্টিনাকে আর জাপান হারিয়েছে শক্তিশালী জার্মানিকে।

এ নিয়ে আর্জেন্টাইন সাপোর্টারদের যেন ঘুম হারাম হওয়ার অবস্থা। তাদের প্রত্যাশা, মেসির নেতৃত্বে দলটি ঘরে তুলবে বিশ্বকাপের তৃতীয় শিরোপা। অন্যদিকে ব্রাজিলের সাপোর্টাররাও কাউকে ছেড়ে কথা বলছে না। র‌্যাংকিং-এ দলটি রয়েছে এক নম্বরে। দলে আছে নেইমারসহ বিশ্বের নামি-দামি ক্লাবে খেলা অনেক তারকা। কাজেই কাপের দিকে তাদের নজর অন্যদের তুলনায় একটু বেশি থাকবে এটাই স্বাভাবিক। তবে এ খেলাকে ঘিরে বাঙালিরা অনেক ক্ষেত্রে বাড়াবাড়ির পর্যায়ে চলে যায়। কেউ কেউ সামর্থের বাইরে গিয়ে দলীয় পতাকা দিয়ে শোভিত করে তাদের বাড়ির ছাদ বা ঘরের চাল।

পতাকার রঙে রাঙায় বাড়ির দেয়াল। এমনও শোনা যায়, কেউ কেউ জমিজমা বিক্রি করেও তাদের বিভিন্ন শখ পূরণে হয়ে ওঠে আগ্রাসী। কেউ কেউ তর্ক-বিতর্ক থেকে চলে যায় মারামারির পর্যায়ে। এ নিয়ে বিচার শালিস বা মামলা পর্যন্ত হয়ে থাকে। দলের হার সইতে না পেরে কেউ আবার আত্মহত্যা পর্যন্ত করে থাকে। সবই করে থাকে আবেগের বশে যা মোটেও শোভনীয় নয়। খেলাকে নিছক আনন্দের পর্যায়েই রাখা উচিত। অযথা অপচয় করলে পরে পস্তাতে হয়। ইসলামে অপচয়ের কোনো স্থান নেই। আল্লাহ তায়ালা বলেন, নিশ্চয়ই অপচয়কারী শয়তানের ভাই। অপচয়কারীরা পরিণামে আর্থিক কষ্টে পতিত হয় যা তাদের পরিবারের জন্য হতাশার কারণ হয়ে থাকে।
একই দিনে অনেকগুলো খেলা দেখতে গিয়ে অনেকের স্বাভাবিক কাজকর্মও ব্যাহত হয়। তাছাড়া স্কুল-কলেজের ছাত্র-ছাত্রীরা খেলার নেশায় বুদ হয়ে দীর্ঘ সময় পড়াশোনা থেকে দূরে থাকে যা পরীক্ষায় খারাপ রেজাল্টের জন্য অনেকাংশে দায়ী। অনেকে আবার খেলা নিয়ে অসাধু প্রতিযোগিতা বা জুয়ায় লিপ্ত হয়। আর এভাবে সর্বস্বান্ত হয়ে যায়। তাদের পরিণাম হয় খুবই ভয়াবহ। তাছাড়া এসব দলের সাপোর্ট করতে গিয়ে দেশের প্রতি অনেকেই উদাসীন হয়ে পড়ে যা মোটেও কাম্য নয়। সবার আগে নিজের দেশ ও দেশের মানুষকে গুরুত্ব দিতে হবে।

ঘাটাইল, টাঙ্গাইল থেকে

×