ঢাকা, বাংলাদেশ   রোববার ১৬ জুন ২০২৪, ২ আষাঢ় ১৪৩১

ফাঁস হল আলিয়া ভাটের স্কিন কেয়ার রুটিন

প্রকাশিত: ১৬:৫৯, ১৫ নভেম্বর ২০২২

ফাঁস হল আলিয়া ভাটের স্কিন কেয়ার রুটিন

আলিয়া ভাট

চলতি মাসের ৬ ই নভেম্বর এক ফুটফুটে কন্যা সন্তানের জন্ম দিয়েছেন আলিয়া ভাট। এনিয়ে গোটা বলিউডের পাশাপাশি আনন্দে মেতেছে ভাট ও কাপুর পরিবার। তবে মা হওয়ার পর আবার কবে অভিনেত্রীকে ক্যামেরার সামনে দেখা যাবে সে নিয়ে ব্যাপক আগ্রহী তাঁর অনুরাগীরা। সন্তান প্রসবের পর হাসপাতালে ভর্তি থাকাকালীন অবস্থায় সোশ্যাল মাধ্যমে ভাইরাল হয় অভিনেত্রীর বেশ কয়েকটি ছবি। আর সেই ছবিগুলি দেখে রীতিমতো অবাক প্রত্যেকে।

ছবিগুলিতে অভিনেত্রীর ত্বকের জৌলুস দেখে হতবাক হয়েছেন সকলে। মাতৃত্বকালীন অবস্থাতেও এটুকুও গ্ল্যামার কমেনি অভিনেত্রীর। মা হওয়ার আগে অভিনেত্রী যেমনটা ছিলেন সন্তান প্রসবের পরও সেরকমই রয়েছেন। কিন্তু কিভাবে সব সময় এতটা সুন্দর থাকলেন অভিনেত্রী আসুন সেই রহস্য সম্পর্কে জেনে নেওয়া যাক।

মুলতানি মাটি- আলিয়ার গালদুটো সবসময়ই জৌলুসে ভরপুর। তাঁর গাল থেকে সবসময়ই একটি উজ্জ্বল আভা বের হয়। আর তাঁর এই উজ্জ্বল আভার রহস্য হলো মুলতানি মাটি। জানা গিয়েছে, তিনি প্রতিদিনই নিজের গালে মুলতানি মাটির প্যাক লাগান। মুলতানি মাটি ত্বককে উজ্জ্বল করার পাশাপাশি কোনরকম ব্রণ ও দাগ মুখে ঘেঁষতে দেয় না।

মধুর মাস্ক- মুলতানি মাটি ছাড়াও আলিয়ার আরেকটি বিউটি সিক্রেট হলো মধুর মাস্ক। একটি সাক্ষাৎকারে অভিনেত্রী নিজের মুখেই জানান, যদি হাতে অনেকক্ষণ সময় থাকে তাহলে তিনি পেঁপে বা কমলালেবুর খোসার গুঁড়োর সাথে মধু মিশিয়ে মুখে লাগান। এছাড়াও শীত হোক কিংবা গ্রীষ্ম সবসময়ই তিনি ত্বকের খেয়াল রাখতে ব্যবহার করেন মশ্চারাইজার।

আইস কিউব- সময় পেলে মুখ, গলা ও ঘাড়ে নিয়মিত আইস কিউব দিয়ে মাসাজ করেন তিনি। এতে লোমের ছিদ্রের মধ্যে থাকা ময়লা দূর হয় ও ত্বকে তেলের পরিমাণ কমে যায়। এছাড়াও চোখের পাতাতেও আইস কিউব দিয়ে নিয়মিত মাসাজ করেন তিনি।

এগুলি ছাড়াও অভিনেত্রী কখনোই ঘুমোতে যাওয়ার আগে নাইট ক্রিম ব্যবহার করেন না। তিনি মনে করেন ত্বককে শ্বাস নেওয়ার জন্য সময় দেওয়া উচিত। এর পাশাপাশি চড়া মেকআপ হামেশাই এড়িয়ে চলেন তিনি। অভিনয়ের জন্য অথবা কোনো পার্টিতে গেলে হালকা মেকআপেই থাকতে বেশি পছন্দ করেন অভিনেত্রী।

এমএস

সম্পর্কিত বিষয়:

×