ঢাকা, বাংলাদেশ   বুধবার ০৬ জুলাই ২০২২, ২২ আষাঢ় ১৪২৯

পরীক্ষামূলক

জাতীয়

ঊর্ধ্বমূল্যের প্রভাব রিকশা ভাড়ায়

প্রকাশিত: ১২:৪৭, ২১ মে ২০২২

ঊর্ধ্বমূল্যের প্রভাব রিকশা ভাড়ায়

অনলাইন ডেস্ক ॥ হু হু করে বাড়ছে নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যের দাম। জীবনযাত্রার ব্যয় বাড়ার প্রভাব পড়েছে রিকশা ভাড়ায়ও। টিকে থাকার তাগিদে তারাও যাত্রীদের কাছ থেকে ভাড়া কিছুটা বাড়িয়ে নিচ্ছেন। শনিবার (২০ মে) সকালে রাজধানীর বেশ কয়েকজন রিকশাচালকদের কথায় এমন চিত্র ওঠে আসে। সাতরাস্তা থেকে নিউইস্কাটন পর্যন্ত ৫০ টাকা ভাড়া চাচ্ছেন একজন রিকশাচালক। অথচ তিনি নিজেই জানিয়েছেন, আগে এ পথটুকুর ভাড়া নিতেন ৩০ টাকা। সেগুনবাগিচা থেকে ফকিরাপুল মোড় পর্যন্ত ভাড়া জানতে চাইলে ৪০ টাকা ভাড়া চান অন্য রিকশাচালক। আগে ৩০ টাকা ভাড়াতেই যেতেন। শাহবাগ মোড় থেকে হাইকোর্ট মাজার গেট পর্যন্ত ৪০ টাকা ভাড়া চাচ্ছেন এক রিকশাচালক। প্রেস ক্লাব গেলেই ভাড়া ৫০ টাকা। দু-তিন মাস আগে কতো নিতেন, জানতে চাইলে হাইকোর্ট গেলে ৩০ টাকা আর প্রেস ক্লাব গেলে ৪০ নিতেন বলে জানান। মালিবাগ রেলগেট থেকে বাড্ডা লিংরোড পর্যন্ত ৭০ থেকে ৮০ টাকা পর্যন্ত নেওয়া হচ্ছে রিকশা ভাড়া। আগে এ পথের ভাড়া ছিল ৪০-৫০ টাকা। ‘সেই দিন নাই ভাই। এখন সবকিছুর দাম বাড়ছে’ বলেন একজন রিকশাচালক। শাহবাগ থেকে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ভেতর দিয়ে নীলক্ষেত যাবেন এক যাত্রী। তার কাছে ভাড়া চাওয়া হচ্ছে ৫০ টাকা। ওই যাত্রী বলেন, আগে ক্যাম্পাসের ভেতর দিয়ে গেলে ২০ টাকা ভাড়া নিতো। কিছুদিন আগেও ৩০ টাকায় গেলাম। এখন ৫০ হয়ে গেছে। ভাড়া বিষয়ে কথা বলে মিশ্র প্রতিক্রিয়া পাওয়া গেছে রিকশাচালকদের কাছ থেকে। কেউ বলছেন, আগের তুলনায় ভাড়া একটু বেড়েছে। জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে দাঁড়িয়ে থাকা এক রিকশাচালক বলেন, আগের চাইতে সবখানেই এখন ১০ টাকা বেশি চাই। তবে কোথাও কোথাও যাত্রীদের হয়রানিও শিকার হতে হচ্ছে। কোনো কোনো রিকশাচালক সুযোগ বুঝে দ্বিগুণ বা তারও বেশি ভাড়া হাঁকাচ্ছেন। বাস ভাড়ার মতো রিকশা ভাড়াও নিয়ন্ত্রণ করা প্রয়োজন বলে মনে করেন যাত্রী কল্যাণ সমিতির মহাসচিব মোজাম্মেল হক। তিনি বলেন, রিকশা ভাড়া লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে। আগে দুই কিলোমিটার রাস্তা ২০ টাকায় যাওয়া যেতো, এখন ভাড়া দ্বিগুণ বা তারও বেশি। তিনি আরও বলেন, দ্রব্যমূল্যের দাম বাড়লে রিকশাচালকদেরও তো খরচ বাড়ে। সেজন্য তারাও ভাড়া বেশি চাইবেন। তারা তো খেটে খাওয়া মানুষ। অসুবিধাটা হচ্ছে সাধারণ যাত্রীদের ক্ষেত্রে। কারণ, ভাড়া বাড়লে সীমিত আয়ের মানুষের জন্য কষ্ট।