ঢাকা, বাংলাদেশ   বুধবার ০৮ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, ২৬ মাঘ ১৪২৯

monarchmart
monarchmart

ভাসানচরে ১৮০৪ রোহিঙ্গাকে বুঝিয়ে দেওয়া হল বাসস্থান

প্রকাশিত: ১৭:৪৮, ৩০ ডিসেম্বর ২০২০

ভাসানচরে ১৮০৪ রোহিঙ্গাকে বুঝিয়ে দেওয়া হল বাসস্থান

নিজস্ব সংবাদদাতা, হাতিয়া ॥ সবার মুখে উজ্জ্বল হাসি, কেউ ব্যস্ত ঘর গোছানো নিয়ে, কেউ বা দড়ি টাঙ্গিয়ে নিচ্ছে কাপড় শুকানোর জন্য, শিশুরা ছুটাছুটি করছে দিগবিদিক। ভবিষ্যতে কি হবে তা জানা নেয় কারো তবুও পাহাড়ের গিজ গিজ আবাস্থল থেকে অনেকগুন ভালো পরিবেশ পেয়ে আপাদত মহা খুশি সবাই। মঙ্গলবার ভাসাচরে দ্বিতীয় ধাপে আগত রহিঙ্গাদের দ্বিতীয় দিন আজ বুধবার কাটলো এভাবে। দ্বিতীয় দাপে আসা রোহিঙ্গাদের মধ্যে একজন রহিমা (৩৪)। স্বামী ও চার সন্তান নিয়ে তিনি বরাদ্ধ পেয়েছে ভাসানচরে ৫ নং ক্লাস্টারের ৭ নম্বর বাসা। আলাপকালে রহিমা জানান, প্রথম ধাপে আসা রোহিঙ্গা স্বজনরা মোবাইলে ভাসানচর সম্পর্কে অনেক ভালো বলেছে। অনেকে ভিডিও কল দিয়ে ভাসানচরের বিভিন্ন দৃশ্য দেখিয়েছে। বাস্তবে এসে তাই দেখলো রহিমা। তার মতে এখানে সবার খুবিই ভালো লাগবে। হাসপাতাল সহ আধুনিক অনেক সুযোগ সুবিধা রয়েছে এখানে। বিশেষ করে বাচ্চারা অনেক খুশি। তারা খেলাধুলার জন্য পেয়েছে মাঠ ও রয়েছে সুপ্রসস্থ রাস্তা। রহিমা আরো জানান, প্রথম দিন তাদেরকে নৌ- বাহিনীর সদস্যরা রান্না করা খিচুড়ি খেতে দিয়েছে। দ্বিতীয় দিন বুধবার সকালে দেওয়া হয়েছে ভাত, ডাল ও ডিম। আরো কয়েক দিন তাদেরকে রান্না করা খাওয়ার সরবারহ করা হবে বলে তিনি শুনেছেন বলে জানান। এদিকে ভাসানচরে অবস্থান করা রোহিঙ্গাদের বেকারত্ব দুর করা লক্ষ্যে চিন্তা ভাবনা করছে সরকার। এই লক্ষ্যে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের নির্দেশে সম্প্রতি ভাসানচর পরিদর্শন করেন কারিগরি শিক্ষা বোর্ডের একটি টিম। শিক্ষা মন্ত্রনালয়ের অতিরিক্ত সচিব (কারিগরি) ড: মো: ওমর ফারুকের নেতৃত্বে ৭ সদস্য বিশিষ্ট এই টিম ভাসানচর ঘুরে এসে একটি প্রতিবেদন দেওয়ার কথা। যাতে রহিঙ্গাদের তাদের মত করে কিছু কারিগরি শিক্ষা দেওয়া যেতে পারে। সরকারি তথ্য অনুযায়ী, রোহিঙ্গা স্থানান্তরের জন্য নিজস্ব তহবিল থেকে ৩ হাজার ৯৫ কোটি টাকা ব্যয়ে ভাসানচর আশ্রয়ন প্রকল্প বাস্তবায়ন করেছে সরকার। সেখানে এক লাখ রোহিঙ্গা বসবাসের উপযোগী ১২০টি গুচ্ছগ্রামের অবকাঠামো তৈরি করা হয়েছে। ভাসানচরের পুরো আবাসন প্রকল্পটি বাস্তবায়ন ও ব্যবস্থাপনার দায়িত্বে রয়েছে বাংলাদেশ নৌবাহিনী। উল্লেখ্য, মিয়ানমার সেনাবাহিনীর হত্যা ও নির্যাতনের মুখে ২০১৭ সালের ২৫ আগস্ট থেকে সীমান্ত পাড়ি দিয়ে বাংলাদেশে আশ্রয় নেয় সাড়ে ৭ লাখের বেশি রোহিঙ্গা। আগে আশ্রয় নেয়াসহ বর্তমানে ১১ লাখের বেশি রোহিঙ্গা কক্সবাজারের রোহিঙ্গা শিবিরগুলোতে আশ্রয় নিয়েছেন।
monarchmart
monarchmart