মঙ্গলবার ২৩ আষাঢ় ১৪২৭, ০৭ জুলাই ২০২০ ঢাকা, বাংলাদেশ
প্রচ্ছদ
অনলাইন
আজকের পত্রিকা
সর্বশেষ

আর ২২ দিন

স্টাফ রিপোর্টার ॥ দেখতে দেখতে শেষ হচ্ছে দিনগণনা। বাকি আর ২২ দিন। এরপরই সূচনা হবে মুজিববর্ষের। আগামী ১৭ মার্চ জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মদিন। বড় উপলক্ষ বলেই পরের বছরের ১৭ মার্চ পর্যন্ত টানা উদযাপন করা হবে। অবশ্য তারও আগে থেকে বেশকিছু আয়োজন চলমান আছে। এই যেমন, অমর একুশে গ্রন্থমেলায় প্রতিদিনই আয়োজন করা হচ্ছে বিশেষ সেমিনার। সে ধারাবাহিকতায় শনিবার বিকেলে মেলা মঞ্চে ‘বঙ্গবন্ধুর ৭ মার্চের ভাষণ : বহুমাত্রিক বিশ্লেষণ’ বইয়ের উপর আলোচনা অনুষ্ঠিত হয়। প্রবন্ধ পাঠ করেন মফিদুল হক। আলোচনা করেন ড. সোনিয়া নিশাত আমিন, গোলাম কুদ্দুছ এবং মামুন সিদ্দিকী। সভাপতিত্ব করেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপ-উপাচার্য ড. মুহাম্মদ সামাদ।

প্রাবন্ধিক বলেন, মুজিব শতবর্ষে বিশ্লেষণ, পর্যবেক্ষণ, বিচার-বিবেচনার যে ভূমিতে দাঁড়িয়ে ইতিহাসের নিবিড় ও গভীর পাঠ আমাদের কাম্য তার এক উদাহরণ হতে পারে ৭ মার্চের ভাষণ নিয়ে প্রণীত বর্তমান গ্রন্থ। সব মিলিয়ে প্রায় আড়াই শ’ পৃষ্ঠার এই গ্রন্থ একান্তভাবে ৭ মার্চের ভাষণ ঘিরে আবর্তিত, তবে প্রায় দেড় দশক জুড়ে নিয়মিত বার্ষিক এই বঙ্গবন্ধু চর্চায় রয়েছে ধারাবাহিকতা এবং পরিবর্তনময়তা, সেই সঙ্গে নানা দৃষ্টিভঙ্গি ও বিশ্লেষণ-পদ্ধতি অনুসরণ করে ৭ মার্চের ভাষণ পর্যালোচনার প্রয়াস। বঙ্গবন্ধুর ৭ মার্চের ভাষণের উদ্দীপক ভূমিকা নিয়ে যেসব লেখালেখি রয়েছে তা এর সার্থকতারই প্রকাশ।

অন্য আলোচকরা বলেন, বাঙালির অধিকারের প্রশ্নে আজীবন আপোসহীন বঙ্গবন্ধুর ৭ মার্চের ভাষণে স্বাধীনতার মূলমন্ত্র উচ্চারিত হয়েছিল। শিল্প ও সংস্কৃতির নানা উপাদান সমৃদ্ধ এই অসাধারণ ভাষণ শুধু বাঙালী নয় বিশ্বের যে কোন ভাষার মানুষকে রোমাঞ্চিত করে। এই ভাষণে বঙ্গবন্ধু তার সামগ্রিক রাজনৈতিক দর্শনকে তুলে ধরেন। ৭ মার্চের ভাষণে বঙ্গবন্ধুর বজ্রকণ্ঠে প্রতিধ্বনিত হয় হাজার বছরের নিষ্পেষণ ও বঞ্চনার শিকার বাঙালী জাতির প্রতিবাদী উচ্চারণ। বঙ্গবন্ধুর এ ভাষণ জাতি গঠনের কাজে চিরদিন আমাদের উজ্জীবিত করে যাবে।

শীর্ষ সংবাদ:
সারাদেশে ১৫৮টি প্রতিষ্ঠানকে ৫ লাখ টাকা জরিমানা         দেশে গত ২৪ ঘণ্টায় করোনায় মৃত্যু ৫৫ জনের, নতুন শনাক্ত ৩০২৭         ওয়ারি লকডাউন আরো কঠোর হবে,এলাকাবাসী ধৈর্য্য ধরুন : মেয়র তাপস         একযুগ পর ট্রেনে কোরবানীর পশু পরিবহন করবে রেলওয়ে : রেলপথমন্ত্রী         ‘করোনা পরিস্থিতিতে গণমাধ্যমের ভূমিকা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ’: তথ্যমন্ত্রী         লঞ্চ দুর্ঘটনা : হত্যাকাণ্ড প্রমাণিত হলে ‘হত্যা মামলা’ হবে : নৌপ্রতিমন্ত্রী         বিজিবির ১১৯ মুক্তিযোদ্ধার গেজেট বাতিলের প্রজ্ঞাপন স্থগিত         সংসদের মুলতবি অধিবেশন বসছে বুধবার         ১৬ বছর বয়সীরাও অনলাইনে পাচ্ছে এনআইডি         রিজেন্ট হাসপাতাল সিলগালা         শুল্ক কমিয়ে বিদেশ থেকে চাল আমদানির সিদ্ধান্ত         করোনা ভাইরাস ॥ চিকিৎসক নিয়োগে আসছে বিশেষ বিসিএস         পাপুলকাণ্ডে রাষ্ট্রদূতের বিরুদ্ধে অভিযোগ খতিয়ে দেখা হবে ॥ পররাষ্ট্রমন্ত্রী         এক কোটি দুস্থ ১০ কেজি করে চাল পাবেন         উপনির্বাচন পেছানোর সুযোগ নেই ॥ ইসি সচিব         ২ হাজার চিকিৎসক নিয়োগের জন্য আসছে বিশেষ বিসিএস         হেফাজত ও ছেলের বিষয় নিয়ে মুখ খুললেন আল্লামা শফী         বান্দরবানে জনসংহতির সংস্কারপন্থি ছয়জনকে গুলি করে হত্যা         দাউদকান্দিতে প্রাইভেটকার খাদে পড়ে একই পরিবারের ৩ জন নিহত         ১২ জুলাই থেকে জাবিতে শুরু হতে যাচ্ছে অনলাইন ক্লাস        
//--BID Records