সোমবার ২৫ শ্রাবণ ১৪২৭, ১০ আগস্ট ২০২০ ঢাকা, বাংলাদেশ
প্রচ্ছদ
অনলাইন
আজকের পত্রিকা
সর্বশেষ

আমরা নেটওয়ার্কের নিলাম শুরু ৫ ফেব্রুয়ারি

অর্থনৈতিক রিপোর্টার ॥ আমরা নেটওয়ার্কস লিমিটেডের শেয়ার কেনার জন্য নিলাম শুরু হবে আগামী ৫ ফেব্রুয়ারি। এ কার্যক্রম চলবে আগামী ৮ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত। এর আগে ২৬ জানুয়ারি পর্যন্ত তথ্য হালনাগাদের সুযোগ ছিল প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারীদের। ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই) সূত্রে এই তথ্য জানা গেছে।

বুক বিল্ডিং পদ্ধতির প্রাথমিক গণপ্রস্তাবে পুঁজিবাজারে আসছে তথ্য ও প্রযুক্তি খাতের এই কোম্পানি। এই পদ্ধতি অনুযায়ী প্রথমে প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারীদের কাছে নিলামের মাধ্যমে শেয়ার বিক্রি করা হবে। যে দামে তাদের জন্য সংরক্ষিত শেয়ার বিক্রি শেষ হবে; সেই দামে প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারীদের কাছে শেয়ার বিক্রির প্রস্তাব করা হবে। ওই দাম থেকে ১০ শতাংশ ছাড়ে সাধারণ বিনিয়োগকারীদের কাছে আইপিওর মাধ্যমে শেয়ার বিক্রির প্রস্তাব করা হবে।

গত মাসের শেষের দিকে আমরা নেটওয়ার্কস লিমিটেডকে নিলামের মাধ্যমে কাট অফ প্রাইস নির্ধারণের অনুমতি দেয় বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ এ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (বিএসইসি)।

প্রসঙ্গত, আমরা নেটওয়ার্কস হচ্ছে ২০১৫ সালে সংশোধিত পাবলিক ইস্যু রুলসের আওতায় বিডিংয়ের জন্য অনুমোদন পাওয়া প্রথম কোম্পানি। কোম্পানির ইস্যু ব্যবস্থাপনার দায়িত্বে রয়েছে লংকাবাংলা ইনভেস্টমেন্টস লিমিটেড।

বিএসইসির অনুমোদনের ফলে আমরা নেটওয়ার্কস লিমিটেড শেয়ারের কাট-অফ প্রাইস নির্ধারণ করার জন্য বিডিং করতে পারবে। নিলামে ১২ ক্যাটাগরির প্রায় আড়াই শ’ প্রতিষ্ঠান অংশ নিতে পারবে।

পুঁজিবাজার থেকে কোম্পানিটি ৫৬ কোটি ২৫ লাখ টাকা উত্তোলন করবে। এই টাকা দিয়ে কোম্পানির বিএমআরই (আধুনিকায়ন), ডাটা সেন্টার প্রতিষ্ঠা, দেশের বিভিন্ন স্থানে ওয়াই ফাই হটস্পট প্রতিষ্ঠা করা, আইপিওর কাজ ও ঋণ পরিশোধ করবে।

৩১ ডিসেম্বর, ২০১৫ সমাপ্ত বছরের নিরীক্ষিত বিররণী অনুযায়ী কোম্পানিটির শেয়ারপ্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ৩ টাকা ১৬ পয়সা। শেয়ারপ্রতি সম্পদ মূল্য ২১ টাকা ৯৮ পয়সা। আর ৫ বছরের ইপিএসের গড় করলে হয় ২ টাকা ৫২ পয়সা। আর ৩০ জুন ২০১৬ সমাপ্ত নিরীক্ষিত হিসাব (৬ মাসের) অনুযায়ী ইপিএস হয়েছে ১ টাকা ৬৮ পয়সা। আর এনএভি হয়েছে ২৩ টাকা ৬৬ পয়সা।

স্টক এক্সচেঞ্জের অনুমোদন সাপেক্ষে ইস্যুয়ার কোম্পানি তারিখ নির্ধারণ করে একটানা ৭২ ঘণ্টা বিডিংয়ের কার্যক্রম পরিচালনা করবে। প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারীদের কাছে শেয়ার বিক্রি করা শেষ হলে সাধারণ বিনিয়োগকারীদের কাছে শেয়ার বিক্রির জন্য নিয়ন্ত্রক সংস্থার কাছে ফের অনুমতি চাইতে হবে। অনুমতি পেলে শেয়ার আবেদন ও চাঁদা জমা নেয়ার সময়সূচী প্রকাশ করবে কোম্পানিটি।

উল্লেখ্য, পুঁজিবাজারে বড় ধরনের বিপর্যয়ের প্রেক্ষাপটে ২০১১ সালের ২০ জানুয়ারি বুক বিল্ডিং পদ্ধতির আইপিও অনুমোদন বন্ধ করে। পরে দেশীয় প্রেক্ষাপট বিবেচনা করে পদ্ধতিটি সংশোধন করে। সংশোধনের পর ইউনাইটেড পাওয়ার জেনারেশন প্রথম অনুমোদন পায়।

২০১৫ সালে বিএসইসি পাবলিক ইস্যু রুলস সংশোধন করে। এতে বুক বিল্ডিং পদ্ধতির নিয়মকানুনেও বেশ কিছু পরিবর্তন আসে।

শীর্ষ সংবাদ:
ঘুরে দাঁড়াচ্ছে অর্থনীতি ॥ শক্তিশালী হয়ে উঠছে সূচকগুলো         দেশের অভ্যন্তরীণ নিরাপত্তার জন্য বড় হুমকি হয়ে দাঁড়াতে পারে         রাজনৈতিক পরিচয় কোন অপরাধীর আত্মরক্ষার ঢাল হতে পারে না ॥ কাদের         বঙ্গবন্ধু হত্যায় জিয়াসহ যারা যুক্ত তাদের মুখোশ উন্মোচন করা প্রয়োজন ॥ তথ্যমন্ত্রী         সাবমেরিন কেবল কেটে ফেলেছে হাউজিং কোম্পানি         ওসি প্রদীপকে দেখানো দালিলিক প্রমাণই কাল হয় সিনহার         বিড়ম্বনা ছাড়াই শুরু হলো একাদশে ভর্তির অনলাইন আবেদন         লেনদেনের বিরোধের জেরে ব্যবসায়ী খায়েরকে খুন করে মিলন         বিশ্ব আদিবাসী দিবস পালিত         বরেণ্য সঙ্গীত পরিচালক আলাউদ্দিন আলী আর নেই         গীতিকার ও সুরকার আলাউদ্দিন আলী আর নেই         পোশাক রফতানিতে আবারো দ্বিতীয় বাংলাদেশ         সাবমেরিন কেবল লাইনে জটিলতা দেখা দেওয়ায় সারা দেশে ইন্টারনেটে ধীরগতি         স্বাধীনতাবিরোধীদের তালিকা তৈরি করবে সংসদীয় কমিটি         ডেঙ্গু মশা নিয়ন্ত্রণে ১৬ই অগাস্ট হতে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করবে ডিএসসিসি         কেরালায় চা বাগানে ভূমিধসে নিহতের সংখ্যা বেড়ে ৪৩         কোভিড-১৯ কালীন অনিশ্চিয়তায় ধান উৎপাদন বৃদ্ধি অব্যাহত রাখার বিকল্প নেই ॥ কৃষিমন্ত্রী         ন্যায়ভিত্তিক সমাজ প্রতিষ্ঠা করতে হলে অন্যায়ের প্রতিকার করতে হয় ॥ তথ্যমন্ত্রী         দেশে গত ২৪ ঘণ্টায় করোনায় মারা গেছেন ৩৪ জন, নতুন শনাক্ত ২৪৮৭         শেখ হাসিনা সরকার প্রতিটি হত্যাকাণ্ডের বিচারে সোচ্চার থেকেছে ॥ সেতুমন্ত্রী        
//--BID Records