মঙ্গলবার ৫ মাঘ ১৪২৮, ১৮ জানুয়ারী ২০২২ ঢাকা, বাংলাদেশ
প্রচ্ছদ
অনলাইন
আজকের পত্রিকা
সর্বশেষ

সাগরের নিচে মার্কিন আধিপত্য চ্যালেঞ্জ রুশ সাবমেরিনের

  • দুই বৃহৎ শক্তির প্রতিদ্বন্দ্বিতায় উত্তেজনা বাড়ছে

স্ক্যানডিনেভিয়া ও স্কটল্যান্ডের উপকূলে ভূমধ্যসাগর ও উত্তর আটলান্টিকে টহল দিয়ে বেড়াচ্ছে রুশ এ্যাটাক সাবমেরিন। পাশ্চাত্যের সামরিক কর্মকর্তারা বলেছেন, এ অঞ্চলে সাগরের নিচে আমেরিকান ও ন্যাটোর আধিপত্যের সঙ্গে প্রতিদ্বন্দ্বিতার উদ্দেশ্যে রুশ এ্যাটাক সাবমেরিনের উপস্থিতি গত দু’দশকে উল্লেখযোগ্যভাবে বেড়ে গেছে। খবর নিউইয়র্ক টাইমস অনলাইনের।

রাশিয়া এ সাবমেরিন বহর গড়ে তোলায় যুক্তরাষ্ট্রের উত্তেজনা বৃদ্ধি পাচ্ছে। ইউরোপে মার্কিন নৌবাহিনীর শীর্ষস্থানীয় কমান্ডার এ্যাডমিরাল মার্ক ফার্গুসন বলেছেন, রুশ ডুবোজাহাজের টহল গত বছর প্রায় ৫০ শতাংশ বৃদ্ধি পেয়েছে। রুশ নৌবাহিনীপ্রধান এ্যাডমিরাল ডিক্টর চিরকোভের প্রকাশ্য মন্তব্যের উদ্ধৃতি দিয়ে তিনি এ কথা বলেন। বিশ্লেষকরা বলেছেন, তারপর থেকে সে প্রবণতার পরিবর্তন হয়নি। প্রেসিডেন্ট ভøাদিমির ভি পুতিনের ডুবোজাহাজ যুদ্ধে নতুন আগ্রহের দৃশ্যত লক্ষণ হচ্ছে এ টহল। পুতিনের সরকার নতুন ধরনের ডিজেল ও পরমাণুচালিত এ্যাটাক সাবমেরিন নির্মাণে ব্যয় করেছে কোটি কোটি ডলার। প্রতিদ্বন্দ্বিতা ও সামরিক শক্তি সম্প্রসারণে উত্তেজনা বৃদ্ধি পাচ্ছে এবং যুক্তরাষ্ট্র ও রশিয়ার মধ্যে স্নায়ুযুদ্ধের প্রতিধ্বনির সৃষ্টি হচ্ছে। মস্কো কেবল উত্তর আটলান্টিকেই শক্তি প্রয়োগের চেষ্টা করছে না, তা করছে সিরিয়া ও ইউক্রেনেও। দেশটি পরমাণু অস্ত্র নির্মাণ করে যাচ্ছে এবং সাইবার যুদ্ধ সক্ষমতা অর্জন করছে। আমেরিকান সামরিক কর্মকর্তারা বলেছেন, বেশ কয়েক বছরের অর্থনৈতিক অবনতির পর রাশিয়ার এ প্রচেষ্টা তাদের সংশ্লিষ্ট শক্তিমত্তাই তুলে ধরে। নিরপেক্ষ মার্কিন সামরিক বিশ্লেষকরা রুশ ডুবোজাহাজের ক্রমবর্ধমান টহলকে দেখছেন যুক্তরাষ্ট্র ও ন্যাটোর প্রতি এক নীতিসম্মত চ্যালেঞ্জ হিসেবে। উপরন্তু দুর্ঘটনা ও ভুল ধারণা সৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে। কিন্তু যে ধরনের হুমকিই হোক না কেন পেন্টাগন রুশ টহলকে ডুবোজাহাজ ও ডুবোজাহাজ বিধ্বংসী যুদ্ধের জন্য বৃহত্তর বাজেটের পক্ষে আরও একটি যুক্তি হিসেবে খাড়া করছে। আমেরিকান নৌবাহিনীর কর্মকর্তা বলেছেন, স্বল্প মেয়াদে পাশ্চাত্যের জাহাজ ও ইউরোপীয় উপকূলগুলোকে কাছে থেকে এবং কখনও কখনও গোপনে অনুসরণ ও পর্যবেক্ষণে রুশ ডুবোজাহাজগুলোর সক্ষমতা সত্ত্বেও এগুলোর জন্য প্রয়োজন হবে আরও জাহাজ, বিমান ও সাবমেরিনের। প্রতিরক্ষা দফতর দীর্ঘ মেয়াদের জন্য ৯টি নতুন ভার্জিনিয়া-ক্লাস এ্যাটাক সাবমেরিনসহ সমুদ্র তলদেশে সামরিক সক্ষমতা অর্জনের নিমিত্তে পরবর্তী পাঁচ বছরের জন্য ৮শ’ ১০ কোটি ডলার ব্যয় নির্ধারণের প্রস্তাব করেছে।

শীর্ষ সংবাদ:
হাফ ভাড়া দেওয়ায় ঘড়ি-মানিব্যাগ রেখে তিতুমীরের দুই ছাত্রকে মারধর         বুধবার থেকে ভার্চুয়ালি চলবে সুপ্রিম কোর্ট         তৃণমূলের প্রকল্প বাস্তবায়নে আরও মনোযোগী হোন ॥ ডিসিদের প্রধানমন্ত্রী         পারিবারিক কলহের জেরে চিত্রনায়িকা শিমুকে হত্যা         বিচারকাজ ফের ভার্চ্যুয়ালি পরিচালনা করতে হবে ॥ প্রধান বিচারপতি         শাহজালাল বিশ্ববিদ্যালয়ে আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের পররাষ্ট্রমন্ত্রীর আশ্বাস         নাইকো দুর্নীতি মামলা ॥ খালেদার বিরুদ্ধে চার্জ শুনানি ৮ মার্চ         উখিয়ার ক্যাম্পে আগুন ধরিয়ে দিয়েছে সন্ত্রাসী রোহিঙ্গারা         আফগানিস্তান শক্তিশালী ভূমিকম্পের আঘাতে নিহত ২৬         হত্যা মামলায় বিজিবির বরখাস্ত সদস্যের মৃত্যুদন্ড         বাড়তে পারে শৈত্যপ্রবাহ         হাতিয়ার সংরক্ষিত বনের গাছ কেটে পাচার, চক্রের এক সদস্য আটক         মরক্কো উপকূলে নৌকাডুবিতে ৪৩ অভিবাসীর মৃত্যু         মেসি-সালাহকে হারিয়ে ফিফা বর্ষসেরা জিতলেন লেভানদোভস্কি