শনিবার ২০ অগ্রহায়ণ ১৪২৮, ০৪ ডিসেম্বর ২০২১ ঢাকা, বাংলাদেশ
প্রচ্ছদ
অনলাইন
আজকের পত্রিকা
সর্বশেষ

চার কোটি টাকার চাল ॥ ৮ কোটির ভাউচার

  • টিআর প্রকল্প

নিজস্ব সংবাদদাতা, পাবনা, ২৭ আগস্ট ॥ জেলার ২০১৪-২০১৫ অর্থবছরের শেষে বরাদ্দ পাওয়া এক হাজার ৩৮৪টি টিআর প্রকল্পে দুই হাজার ৭শ’ ১৮ টন চাল বাজার মূল্যের দিগুণেরও বেশি ভাউচার করা হয়েছে। অর্থাৎ এটিআর প্রকল্পের চাল চার কোটি ৪৩ লাখ টাকায় বিক্রি করা হলেও আট কোটি ৭০ লাখ টাকার ভাউচার দাখিল করেছেন প্রকল্প কমিটির সদস্যরা। এতে প্রকল্প বাস্তবায়নে সরকারী কোন নিয়ম-নীতিই মানা হয়নি বলে অভিযোগ উঠেছে।

পাবনা জেলা ত্রাণ অফিস সূত্রে জানা গেছে, দুর্যোগ ও ত্রাণ মন্ত্রণালয় থেকে গত ২০১৪Ñ২০১৫ অর্থবছরের শেষে জেলার নয়টি উপজেলার ৭৩টি ইউনিয়ন ও নয়টি পৌরসভা এলাকায় এক হাজার ৩৮৪টি টেস্ট রিলিফ (টিআর) প্রকল্পে দুই হাজার ৭শ’ ১৮ মেট্রিক টন চাল-গম বরাদ্দ দেয়া হয়। অভিযোগে জানা যায়, বিভিন্ন প্রকল্প বাস্তবায়নের জন্য ত্রাণ মন্ত্রণালয় থেকে বরাদ্দ দেয়া টেস্ট রিলিফের দুই হাজার ৭শ’ ৮১ টন চাল কথিত চাল ব্যবসায়ীদের কাছে বিক্রি করে চার কোটি ৪৩ লাখ টাকা পাওয়া গেছে। কিন্তু সরকারী নিয়ম মানতে গিয়ে প্রায় আট কোটি ৭০ লাখ টাকার ভাউচার দাখিল করা হয়েছে।

গত অর্থবছরের জুনের শেষ দিন পর্যন্ত বরাদ্দ পাওয়া চালের হিসাব মিলাতে গিয়ে প্রকল্প বাস্তবায়ন কমিটির সদস্যরা স্ব স্ব উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তার কার্যালয়ে ওই ভুয়া ভাউচার দাখিল করেন।

প্রকল্প কমিটিতে থাকা সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিরা অভিযোগ করেন, প্রকল্পের বিপরীতে বরাদ্দ দেয়া প্রতি টন চাল কথিত চাল ব্যবসায়ী সিন্ডিকেট সদস্যদের কাছে বিক্রি করতে হয়। চালের মূল্য নির্ধারণ করে দেয় সিন্ডিকেট সদস্যরা। সরকার প্রতিটন যে চাল ৩২ হাজার টাকায় ক্রয় করে, সেই চালই টিআর কাবিখা প্রকল্পের ডিও বিক্রিতে প্রতি টনের দাম দেয়া হচ্ছে ১৪ থেকে ১৫ হাজার টাকা। প্রতি টনে সরকারী হিসেবে ১৭ হাজার টাকা করে কম দেয়া হচ্ছে।

এভাবেই সিন্ডিকেট সদস্যরা ডিও কেনা-বেচায় কোটি কোটি টাকা হাতিয়ে নিয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে। বেড়া উপজেলার রূপপুর, ঢালারচর, চাকলা, হাটুরিয়া-নাকালিয়া ও সাঁথিয়া উপজেলার নাগডেমরা, গৌরিগ্রাম, ধুলাউড়ি ইউনিয়নের টেস্ট রিলিফ (টিআর) প্রকল্পের সভাপতিরা নামপ্রকাশ না করার শর্তে বলেন, জেলার প্রতিটি উপজেলায় রাজনৈতিক ছত্রছায়ায় চাল ব্যবসায়ী সিন্ডিকেট তৎপর রয়েছে। তাদের বেঁধে দেয়া দামে প্রকল্প কমিটিকে ডিওর চাল বিক্রি করতে। অন্যথ্যায় হয়রানির শিকার হতে হয়। ফলে এক টন চাল ১৪ হাজার টাকা দরে বিক্রি করে সরকারী নিয়ম মানতে গিয়ে অনৈতিকভাবে ৩২ হাজার টাকার ভুয়া ভাউচার দাখিল করতে হয়েছে।

এ বিষয়টি ওপেন সিক্রেট। কিন্তু প্রশাসন থেকে এই সিন্ডিকেট চক্রের বিরুদ্ধে আইনানুগ কোন ব্যবস্থা হচ্ছে না। সাঁথিয়া উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা মফিদুল ফারুক জানিয়েছেন, শুধু সরকারী নিয়ম মানতে গিয়ে প্রকল্প কমিটিগুলোকে প্রাপ্ত অর্থের দ্বিগুণের বেশি টাকার ভাউচার দাখিল করতে হয়েছে। পাবনা জেলা ত্রাণ কর্মকর্তা সিদ্দিকুর রহমান জানিয়েছেন, সরকারী নিয়ম মেনেই প্রকল্প কমিটিগুলোকে কাজ করতে হয়।

শীর্ষ সংবাদ:
কুয়েটের শিক্ষকের মৃত্যু ॥ ৯ শিক্ষার্থী সাময়িক বহিষ্কার         শেখ ফজলুল হক মণির জন্মদিন ॥ যুবলীগের শ্রদ্ধা নিবেদন         চলতি বছরের নবেম্বর মাসে দেশে ৪১৩ জনের প্রাণহানি         ৪ ডিসেম্বর ঝিনাইগাতী মুক্ত দিবস         কাটাখালিতে মেয়র আব্বাসের অবৈধ দুই ভবন গুড়িয়ে দিল প্রশাসন         শরীয়তপুরে বীর মুক্তিযোদ্ধাদের সংবর্ধনা         টঙ্গীতে হাফ ভাড়া ও নানা দাবিতে ছাত্রদের মহাসড়ক অবরোধ         রাজনৈতিক উস্কানি আছে শিক্ষার্থীদের আন্দোলনে ॥ কাদের         নীলফামারীতে জঙ্গী আস্তানায় র্যাবের অভিযান ॥ আটক ৫         নিরাপদ সড়ক ॥ আগামীকাল প্রতীকী লাশের মিছিল করবে শিক্ষার্থীরা         কুয়েট শিক্ষকের মৃত্যু ॥ ৫ সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন         সড়কের দুর্নীতির বিরুদ্ধে ‘লাল কার্ড’ দেখাল শিক্ষার্থীরা         মুন্সীগঞ্জের ভবনে বিস্ফোরণে দগ্ধ ভাইবোনের মৃত্যু পর এবার বাবার মৃত্যু         রায়পুরায় শিশু অপহরণের পর হত্যার ঘটনায় গ্রেফতার ৪         মিরপুর টেস্টে প্রথম সেশনে তাইজুলের দাপট         খালেদার চিকিৎসার দাবিতে ছাত্রদলের সমাবেশ চলছে         ইউনেস্কোর স্বীকৃতি পেয়েছে কেরানীগঞ্জের দোলেশ্বর হানাফিয়া জামে মসজিদ         ট্রাকের ধাক্কায় মোটরসাইকেল আরোহী নিহত         ‘অর্থনৈতিক উন্নয়নে বস্ত্রখাত উল্লেখযোগ্য অবদান রাখছে’         ওমিক্রন নিয়ে আতঙ্কিত না হয়ে প্রস্তুত থাকা উচিত ॥ সৌম্য স্বামীনাথন