ঢাকা, বাংলাদেশ   শনিবার ২২ জুন ২০২৪, ৮ আষাঢ় ১৪৩১

মহাসড়কের আইল্যান্ডের ফুলে মন কেড়েছে যাত্রীদের

রাজিব মজুমদার, নিজস্ব সংবাদদাতা, মীরসরাই

প্রকাশিত: ১৮:০৪, ১৯ মে ২০২৪

মহাসড়কের আইল্যান্ডের ফুলে মন কেড়েছে যাত্রীদের

রাধাচূড়া, জারুল, সোনালু ফুলের আভায় সুশোভিত মহাসড়ক।

সারি সারি রাধাচূড়া, জারুল, সোনালু আর কৃষ্ণচূড়ার ফুলের আভায় সুশোভিত হয়ে উঠেছে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের আইল্যান্ড। মীরসরাই অংশে ছোট, বড় হরেক রকমের ফুলেল শোভায় সু-শোভিত ফোর লেনের আইল্যান্ড যেন মনোমুগ্ধকর একটি ফুলের বাগানে পরিণত হয়েছে। লাল, সাদা, হলুদ, বেগুনীসহ নানা রঙের ফুলের বর্ণিল ছোঁয়াই আলোকিত হয়ে উঠেছে মহাসড়কের মীরসরাই অংশ।     
                                                         
সরেজমিনে দেখা যায়, মীরসরাইয়ের মস্তাননগর বাইপাস, সোনাপাহাড়, ঠাকুরদিঘী, মিঠাছরা, মীরসরাই সদর, বড়তাকিয়া এলাকায় বিভিন্ন রঙের কৃষ্ণচূড়া, হৈমন্তি, টগর, রাধাচূঁড়া, কাঞ্চন ও সোনালু ফুলে ভরে গেছে। গাছগুলো ৫-৬ ফুটের মতো বড় হয়েছে। সড়কের সৌন্দর্য প্রসারে আইল্যান্ডে লাগানো এ গাছগুলোতে ফোটা ফুলের মন মাতানো রং মুহূর্তেই মন কাড়ছে দূর-দূরান্তের যাত্রীর পাশাপাশি স্থানীয় পথচারীদের। ফুলের বাগানে মোড়ানো মহাসড়কের এ সৌন্দর্য সুধা অবলোকন করে প্রতিদিন এই মহাসড়কে যাতায়াত করছেন যাত্রীরা। সড়ক দিয়ে গাড়িযোগে যাতায়াতে যাত্রীদের যেন অভ্যর্থনা জানাচ্ছে নানা বৃক্ষরাজি ও বর্ণিল ফুল। এই মনোরম পরিবেশে খুশি যাত্রী ও পরিবহন সংশ্লিষ্টরা।ঢাকা চট্টগ্রাম মহাসড়কের মিডইয়ানে লাগানো রাধাচূড়াগুলো এই ক’বছরে মাথার উপরের ছায়া হয়ে উঠেছে। ওয়াহেদপুর ইউনিয়নের কমলদহ এলাকায় গাছগুলো উপরে উঠে দুপাশে ঢাল ছড়িয়ে ফুলের মঞ্জুরিতে সেজেছে বরণডালার মতো। এছাড়া, কোথাও সোনালু, কোথাও জারুলসহ নানান জাতের ফুল। গাড়ির জানালা দিয়ে বাইরে চোখ পড়তেই যে কারও মনে প্রশান্তি আসে; সুবাসে মেতে ওঠে মন।মহাসড়কে চলাচলকারী নাছির উদ্দিন জানান, পিচঢালা ঢাকা-চট্টগ্রাম চারলেন মহাসড়কের বুকজুড়ে যেন রূপের পসরা সাজিয়ে বসেছে সবুজ প্রকৃতি। সড়ক বিভাজকে নানা প্রজাতির ফুল গাছে ফুটেছে রঙিন ফুল। যানবাহনের জানালা দিয়ে বাইরে চোখ পড়তে নিমেষেই যে কারও মনে প্রশান্তি চলে আসে। বাতাসে ভেসে আসে সুবাস।এই মহাসড়কে যাতায়াতকারী চাকুরীজীবি রিংকু দে বলেন, চাকরির সূত্রে বারইয়ারহাট থেকে থেকে চট্টগ্রামে যাতায়াত করি। মহাসড়কের মীরসরাই অংশে সৌন্দর্যমন্ডিত ফুলের বাগান দেখে পুলকিত হই। অনেক পথচারী ক্ষণিকের জন্য হলেও থমকে দাঁড়িয়ে প্রকৃতির অপার সৌন্দর্য প্রাণ খুলে উপভোগ করতে ও ছবি তুলতে দেখা গেছে। 

সড়ক ও জনপথ (সওজ) বিভাগ সূত্রে জানা গেছে, কুমিল্লার দাউদকান্দি থেকে চট্টগ্রাম সিটি গেইট পর্যন্ত  প্রায় ১৪৩ কিলোমিটার এলাকায় বিভিন্ন প্রজাতির ফুলের গাছ লাগায় সড়ক ও জনপথ (সওজ) বিভাগ। এর মধ্যে বেশি ফুলের দেখা মিলছে মীরসরাই, সীতাকুন্ড, কুমিল্লা ও ফেনী অংশে।  

সড়ক ও জনপথ (সওজ) বিভাগ কুমিল্লার নির্বাহী প্রকৗশলী সুনীতি চাকমা বলেন, ‘মহাসড়ক ডিভাইডারের মাঝখানে বিভিন্ন ফুলগাছ থাকে। তাই আমরাও পরিবেশের সৌন্দর্য রক্ষার জন্য এবং যানবাহনে থাকা ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে যাতায়াতকারী যাত্রীদের যাতে আনন্দ দেয় সেজন্য গাছ রোপণ করেছি।’
 
হাইওয়ে পুলিশ রিজিয়ন (চট্টগ্রাম) অতিরিক্ত ডিআইজি খাইরুল ইসলাম বলেন, ‘পরিবেশের ভারসাম্য রক্ষার পাশাপাশি বাহারি ফুলের সৌন্দর্য ভ্রমণকারীদের মুগ্ধ করে। ঢাকা চট্টগ্রাম মহাসড়কের ডিভাইডারে ফুলগাছগুলোর সৌন্দর্যে বিমোহিত হচ্ছেন ভ্রমণকারীরা।’

এম হাসান

×