ঢাকা, বাংলাদেশ   বুধবার ০১ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, ১৯ মাঘ ১৪২৯

monarchmart
monarchmart

ভাঙনের কবলে আমরাজুড়ী বাজার

নিজস্ব সংবাদদাতা, পিরোজপুর

প্রকাশিত: ১৭:২২, ১ ডিসেম্বর ২০২২

ভাঙনের কবলে আমরাজুড়ী বাজার

সন্ধ্যা নদীর তীরে আমরাজুড়ী বাজার। ছবি: জনকণ্ঠ

পিরোজপুরের কাউখালী শহর সংলগ্ন সন্ধ্যা নদীর ত্রিমোহনা ভাঙনের মুখে পড়েছে। ভাঙন ঠেকাতে সম্প্রতি জিও ব্যাগ ফেলা হয়েছিল। ওই জিও ব্যাগ গত এক বছরে সন্ধ্যার গ্রাসে চলে গেলে নতুন করে সেখানে ভাঙন দেখা দিয়েছে। 

ভাঙনে কাউখালী-আমরাজুড়ী-স্বরূপকাঠি সড়কের ফেরীঘাট ও সড়ক হুমকির মুখে পড়েছে। সম্প্রতি পাউবো ভাঙন দায়সারাভাবে কিছু জিও ব্যাগ ফেলে ভাঙন ঠোকানো উদ্যোগ নেয়। তবে ত্রিমোহনার ভাঙন ঠেকানোর জিও ব্যাগ সন্ধ্যার নদীতে ধসে যায়। এতে আমরাজুড়ী ফেরিঘাট এলাকা ও সড়ক নতুন করে ভাঙনের মুখে পড়েছে। 

ফরীঘাট জামে মসজিদের খতিব মাওলানা গাজী আনোয়ার হোসেন, নতুন করে ভাঙন শুরু হওয়ার ফলে আরো অনেক দোকান, বাড়িঘর, রাস্তা, মসজিদসহ বিভিন্ন ব্যবসা প্রতিষ্ঠান বিলীন হয়ে যাবার পথে। নদী ভাঙনের কারনে ফেরিঘাট স্থানান্তর করতে হয়েছে। এই ফেরিঘাট থেকে পিরোজপুর থেকে গড়িয়ার পাড় হয়ে বরিশাল-ঢাকা-বানারিপাড়া-নেছারাবাদ-কাউখালী-পিরোজপুর-বাগেরহাট সহ খুলনা যাতায়াত করে থাকেন। 

আমরাজুড়ী ফেরীঘাট বাজার কমিটির সভাপতি কায়েস হাওলাদার বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, দায়সারা জিও ব্যাগ ফেলে ত্রিমোহনা এ ভাপঙন ঠেকানো সম্ভব না। জিও ব্যাগ নদী  ধসে গিয়ে নতুন করে ভাঙন দেখা দিয়েছে। 
তিনি আরো জানান, স্থায়ী বাধ নির্মাণের দ্রুত কার্যকর কোন পদক্ষেপ না না নিলে আমরাজুড়ী বাজার ও ফেরিঘাট এলাকার ব্যবসা প্রতিষ্ঠান ও মানুষের বসতি সন্ধ্যা গ্রাস করবে। এছাড়া আমরাজুড়ী ইউনিয়নের কাউখালী-শেখেরহাট সংযোগ সড়কটি বিলীন হয়ে যাবে। 

এ ব্যাপারে উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আবু সাঈদ মিয়া মনু জানান,  জিও ব্যাগ ফেলেও ভাঙন রোধ করা যাচ্ছে না। জিও ব্যাগ নদী গর্ভে চলে যাওয়ার বর্তমানে মসজিদসহ প্রায় ৩০/৩৫টি দোকান ঝুকির মধ্যে রয়েছে।  ভাঙন রোধে কার্যকর পদক্ষেপ না নেয়া হলে বাজার ও ফেরীঘাট রক্ষা করা সম্ভব হবে না। বিষয়টি স্থানীয় এমপি মহোদয় এবং পাউবো কর্তৃপক্ষকে অবহিত করা হয়েছে । 

এসআর

monarchmart
monarchmart