ঢাকা, বাংলাদেশ   সোমবার ০৬ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, ২৪ মাঘ ১৪২৯

monarchmart
monarchmart

স্বেচ্ছাসেবায় নিবেদিতপ্রাণ স্বেচ্ছাসেবকরা-স্থানীয় সরকার মন্ত্রী

প্রকাশিত: ১৮:৫১, ৫ ডিসেম্বর ২০২২; আপডেট: ২০:৫৩, ৫ ডিসেম্বর ২০২২

স্বেচ্ছাসেবায় নিবেদিতপ্রাণ স্বেচ্ছাসেবকরা-স্থানীয় সরকার মন্ত্রী

আন্তর্জাতিক ভলান্টিয়ার অ্যাওয়ার্ড বাংলাদেশ ২০২২’ অনুষ্ঠান

বাংলাদেশে সেচ্ছাসেবকরা স্বেচ্ছাসেবায় বরাবর নিবেদিতপ্রাণ। জাতীয় পর্যায়ে যে কোনো দূর্যোগ মোকাবিলায় আরো সম্পৃক্ত হয়ে সেচ্ছাসেবায় বাংলাদেশকে রোলমডেল হিসেবে গড়ে তোলার আহ্বান জানিয়েছেন স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রী মোঃ তাজুল ইসলাম।

সোমবার রাজধানীর স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তরের মিলনায়তনে “আন্তর্জাতিক স্বেচ্ছাসেবক দিবস-২০২২” উপলক্ষে ইউএন ভলান্টিয়ার বাংলাদেশ, ইউএনএফপিএ, ওয়াটার এইড আয়োজিত 'স্বেচ্ছাসেবী কর্মের মাধ্যমে উন্নয়নের জন্য সংহতি জোরদার' শীর্ষক অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা জানান।

দেশের বিভিন্ন দূর্যোগ মোকাবিলার জন্য স্বেচ্ছাসেবায় জনসাধারণের প্রবেশ ও স্বেচ্ছাসেবার চর্চা খুবই গুরুত্বপূর্ণ উল্লেখ করে মন্ত্রী বলেন গ্রাম বাংলা ও শহরের যে কোন আবহাওয়া, মহামারি, সামাজিক বা অন্য যে কোন বিপর্যয় থেকে টেকসই উন্নয়ন সম্ভব হবে। জনসম্পৃক্ততা নগর ও গ্রামের মানুষের মধ্যে জলবায়ু পরিবর্তন, মহামারি, সামাজিক ও অন্যান্য যেকোন সংকট মোকাবিলায় সক্ষমতা বাড়াতে ভূমিকা রাখবে।

স্থানীয় সরকার মন্ত্রী উল্লেখ করেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের উন্নত দেশ বিনির্মাণে মিশন ও ভিশন এবং টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা-এসডিজি অর্জনে পথ নকশা ঠিক করেছেন। অষ্টম পঞ্চবার্ষিকী পরিকল্পনা, রূপকল্প ২০৪১, বাংলাদেশ বদ্বীপ পরিকল্পনা ২১০০ এর লক্ষ্যসমূহ অর্জনে স্বেচ্ছাসেবার ভূমিকা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ উল্লেখ করে তিনি বলেন এসব কার্যক্রমে যদি দেশের সব স্তরের মানুষকে যুক্ত করা না যায় তাহলে কাঙ্খিত লক্ষ্যে পৌঁছানো অনেক কঠিন হবে। যার ওপর যে দায়িত্ব অর্পিত তা যথাযথভাবে পালন করলেই লক্ষ্যমাত্রা অর্জিত হবে।

প্রধান অতিথি হিসেবে স্থানীয় সরকার মন্ত্রী, মহামারী পরবর্তী সহায়তা ও স্বেচ্ছাসেবী কাজের মাধ্যমে সংহতি জোরদারে গুরুত্বপূর্ণ ভুমিকা পালন করায় ২০ জন সেরা স্বেচ্ছাসেবককে ‘আন্তর্জাতিক ভলান্টিয়ার অ্যাওয়ার্ড বাংলাদেশ ২০২২’ পুরস্কার প্রদান করেন। এছাড়াও বাংলাদেশে জাতিসংঘের কর্মরত জাতিসংঘের আরও ২০জনকে পুরস্কার প্রদান করেন।

ওনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন স্থানীয় সরকার বিভাগের সচিব মুহম্মদ ইব্রাহিম, ইউএনডিপির ডেপুটি রেসিডেন্ট রিপ্রেজেন্টিটিভ ভ্যান গুয়েন। এছাড়াও অন্যদের মধ্যে আরও উপস্থিত ছিলেন কইকা’র কান্ট্রি ডিরেক্টর  দোহ ইওং আ,  স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তরের প্রধান প্রকৌশলী সেখ মোহাম্মদ মহসিন, দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণাল নয়ের অতিরিক্ত সচিব শিখা সরকা ও ইউএনভি বাংলাদেশের কান্ট্রি কোঅরডিনেটর মোহাম্মদ আকতার উদ্দিন।

 

আকাশ

monarchmart
monarchmart