ঢাকা, বাংলাদেশ   সোমবার ২০ মে ২০২৪, ৬ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১

যা যা জানা দরকার কাতারের আমির সম্পর্কে

প্রকাশিত: ১৩:০০, ২৩ এপ্রিল ২০২৪

যা যা জানা দরকার কাতারের আমির সম্পর্কে

শেখ তামিম

কাতারের আমির শেখ তামিম বিন হামাদ আল থানি দুই দিনের সরকারি সফরে ঢাকায় এসেছেন। 

আজ মঙ্গলবার প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে বৈঠক করছেন। সেই বৈঠক শেষে বাংলাদেশের সঙ্গে কূটনৈতিক সম্পর্ক আরও জোরদার করতে ১১ টি সহযোগিতা চুক্তি স্বাক্ষর করবেন তিনি। 

কে এই শেখ তামিম?

কাতারের প্রয়াত আমির শেখ হামাদ বিন খলিফা আল থানির চতুর্থ সন্তান শেখ তামিম বিন হামাদ আল থানির জন্ম ১৯৮০ সালের ৩ জুন। পিতা-মাতার চতুর্থ সন্তান হওয়ায় কাতারের সিংহাসনের উত্তরাধিকারী তার হওয়ার কথা ছিল না, কিন্তু বড় ভাই শেখ জসিম বিন হামাদ আল থানি সিংহাসনে আসীন হতে অনাগ্রহ প্রকাশ করায় কাতারের শাসনক্ষমতা তার হাতে আসে। ২০১৩ সালে তিনি আনুষ্ঠানিকভাবে কাতারের আমির হন।

আরও পড়ুন : অভিবাসনপ্রত্যাশীদের রুয়ান্ডায় পাঠানো হচ্ছে: ঋষি সুনাক

নিজের বিলাসবহুল জীবনের জন্য সুপরিচিত শেখ তামিম বিশ্বের অষ্টম ধনীতম রাজা। বিভিন্ন বিদেশি সংবাদমাধ্যমের প্রতিবেদন অনুসারে, আল থানি পরিবারের মোট ব্যাক্তিগত সম্পদের পরিমাণ প্রায় ৩ হাজার ৩৫০ কোটি ডলার এবং শেখ তামিমের ব্যক্তিগত সম্পত্তির পরিমাণ ২৪০ কোটি ডলার।

লন্ডনের বিখ্যাত হ্যারো স্কুলে পড়াশোনা শেষ করে রয়েল মিলিটারি অ্যাকাডেমি অব ইংল্যান্ডে যোগ দেন শেখ তামিম। সেখান থেকে স্নাতক ডিগ্রি নেওয়ার পর ১৯৯৮ সালে কাতারে ফিরে এসে দেশটির সেনাবাহিনীর সেকেন্ড লেফটেন্যান্ট হিসেবে যোগ দেন শেখ তামিম।

২০০৩ সালে থেকে কাতারের ভবিষ্যত রাজা বা শাসক হিসেবে বিবেচনা করা হচ্ছিল শেখ তামিমকে। ওই বছরই কাতারের সেনাবাহিনীর ডেপুটি কমান্ডার ইন চিফ পদ পান তিনি। তারপর দেশটির নিরাপত্তা ও অর্থনৈতিক খাত সংক্রান্ত বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ পদে দায়িত্ব পালন করেছেন।

আল থানি পরিবার থেকে শেখ তামিমের আগে আরও তিন জন কাতারের আমির হয়েছেন। তবে তাদের প্রত্যেকেই ক্ষমতায় এসেছিলেন সামরিক অভ্যুত্থানের মাধ্যমে। শেখ তামিম আল থানি পরিবারের প্রথম ব্যক্তি, যিনি শান্তিপূর্নভাবে সিংহাসনে আরোহন করেছেন।

শেখ তামিম বিন হামাদ আল থানি বিয়ে করেছেন তিন বার, তার সন্তানের সংখ্যা ১৩ জন। রাজধানী দোহার যে বিলাসবহুল প্রাসাদে তিনি থাকেন, সেটির মূল্য প্রায় ১০০ কোটি ডলার। কয়েকটি গ্র্যান্ড বলরুম রয়েছে তার প্রসাদে এবং সেটির গ্যারেজে প্রায় ৫০০ গাড়ি রাখার মতো জায়গা রয়েছে। প্রসাদের ভেতরে বিভিন্ন জায়গায় স্বর্ণের কারুকাজ রয়েছে।

বিশ্বের সবচেয়ে দামী প্রমোদতরীগুলোর একটি মালিক কাতারের আমির। তার সেই প্রমোদতরীটির মূল্য ৩৯৫ কোটি ডলার। ১২৪ মিটার লম্বা এই চমৎকার প্রমোদতরীটি অনায়াসে ক্রু ও অতিথি সহ ১২৫ জনকে ধারণ করতে পারে। এতে একটি হেলিপ্যাডও রয়েছে।

কাতার আমিরি এয়ারলাইন নামে একটি বিমান পরিষেবা সংস্থারও মালিক শেখ তামিম। এই সংস্থার বহরে মোট ১৪টি উড়োজাহাজ রয়েছে। সেগুলোর মধ্যে রাজপরিবারের সদস্যদের জন্য বিশেষভাবে তৈরি তিনটি বোয়িং ৭৪৭ বিমান রয়েছে।

তাসমিম

×