শুক্রবার ৬ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯, ২০ মে ২০২২ ঢাকা, বাংলাদেশ
প্রচ্ছদ
অনলাইন
আজকের পত্রিকা
সর্বশেষ

তামিলনাডুতে পুলিশের নির্যাতনে পিতা-পুত্রের মৃত্যু ॥ ক্ষোভ

তামিলনাডুতে পুলিশের নির্যাতনে পিতা-পুত্রের মৃত্যু ॥ ক্ষোভ

অনলাইন ডেস্ক ॥ দক্ষিণ ভারতের তামিলনাডু রাজ্যে পুলিশের রাতভর নির্যাতনে পিতা-পুত্রের মৃত্যুর ঘটনা নিয়ে গোটা ভারতে বিক্ষোভ শুরু হয়েছে। রাজ্যজুড়ে জারি থাকা লকডাউন অমান্য করে নির্ধারিত সময়ের পর দোকান খোলা রাখায় ১৯ জুন ৫৮ বছর বয়সী পি জয়রাজ ও তার ৩৮ বছর বয়সী ছেলে ফেনিক্সকে আটক করেছিল পুলিশ।

বিবিসির এক প্রতিবেদনে জানানো হয়েছে, আটক করে নিয়ে যাওয়ার পর পিতা-পুত্রকে রাতভর পু্লিশি হেফাজতে রাখা হয়। দুইদিন বাবা-ছেলে কয়েকঘণ্টা ব্যবধানে মারা যান। নিহতের পরিবারের সদস্যরা অভিযোগ করেছেন, পুলিশের বর্বরোচিত নিপীড়নে কারণেই তাদের মৃত্যু হয়েছে।

আনন্দবাজার পত্রিকা বলছে, পি জয়রাজ পেশায় কাঠের ব্যবসায়ী। নির্দেশনা অনুযায়ী দোকান বন্ধের সময় রাত ৮টা। কিন্তু ওইদিন রাত ৮টা ১৫ মিনিটে দোকান বন্ধ করার সময় টহলরত পুলিশকর্মীদের সঙ্গে তার তর্ক হয়। পিতা-পুত্রের সঙ্গে তর্কে জড়ায় পুলিশ। কিছুক্ষণ পর বিষয়টি মিটে যায়। দু’জনে বাড়ি ফিরে যান।

কিন্তু পর দিন রাত পৌনে ৮টার দিকে একদল পুলিশ দোকানে হাজির হন। জয়রাজকে জোর করে গাড়িতে তোলে পুলিশ। বাবাকে পুলিশ নিয়ে যাচ্ছে দেখে ফেনিক্স আটকাতে যান। কিন্তু তাকে থানায় আসতে বলে জয়রাজকে নিয়ে চলে যায় পুলিশের গাড়ি। পরে সে থানায় গেলে তাকেও আটক করে হাজতে পুরে রাখা হয়।

বিরোধীদলীয় সাংসদরা এ ঘটনার প্রতিবাদে বিক্ষোভ করেছেন; ব্যবসায়ীদের একটি প্রভাবশালী সংগঠন পুলিশের বর্বরতার নিন্দা জানিয়েছেন, স্থানীয় আদালত পুলিশ হেফাজতে জয়রাজ-ফেনিক্সকে নির্যাতনের অভিযোগ খতিয়ে দেখার নির্দেশ দিয়েছে। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে সরব হয়েছেন অনেক রাজনীতিবিদ-তারকা।

পুলিশ হেফাজতে ‘রাতভর নির্যাতনে’ পিতা-পুত্রের এই মৃত্যুর ঘটনার বিচার চেয়ে ও পুলিশ সদস্যদের জবাবদিহিতার আওতায় আনার আহ্বান জানিয়ে টুইট করেছেন দেশটির প্রধান বিরোধী দল কংগ্রেস নেতা রাহুল গান্ধী। ক্রিকেটার শিখর ধাওয়ান থেকে শুরু করে আরও অনেক তারকাও এমন দাবি জানিয়েছেন।

শিখর ধাওয়ান লিখেছেন, ‘তামিলনাডুতে জয়রাজ ও ফেনিক্সের ওপর বর্বর নির্যাতনের কথা শুনে স্তম্ভিত হয়ে পড়েছি। আমাদের অবশ্যই আওয়াজ তুলতে হবে এবং পরিবারটির জন্য ন্যায়বিচার নিশ্চিত করতে হবে।’ তার মতো আরও অনেকেই এমন করে এই ঘটনার প্রতিবাদ জানিয়েছেন।

বিবিসির প্রতিবেদন অনুযায়ী, পুলিশি হেফাজতে মৃত্যু নিয়ে কাজ করে এমন একটি বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের (এনজিও) করা তালিকা অনুযায়ী, ভারতে শুধু ২০১৯ সালে পুলিশের হেফাজতে ১ হাজার ৭৩১ জন প্রাণ হারান। ওই বছর একদিনে সর্বোচ্চ পাঁচ জনও পু্লিশের হেফাজতে মারা গেছেন।

শীর্ষ সংবাদ:
যে অপরাধ করবে তাকেই শাস্তি পেতে হবে ॥ স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী         নিজস্ব অর্থায়নে পদ্মা সেতু নির্মাণ একটি মাইলফলক : সেতুমন্ত্রী         ইভিএম পদ্ধতির ভুল প্রমান করতে পারলে পুরস্কৃত করা হবে ॥ ইসি আহসান হাবিব         অভিবাসীদের জীবন বাঁচাতে প্রচেষ্টা বাড়াতে হবে         অস্ত্র মামলায় ছাত্রলীগ নেতা সাঈদী রিমান্ডে ॥ জোবায়েরের জামিন         ইসলাম বিদ্বেষ, নারী বিদ্বেষকে ঘুষি মেরে বক্সিং-এ বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন জারিন         স্ত্রীর কবরের পাশে চিরশায়িত হবেন আবদুল গাফ্ফার চৌধুরী         শিগগিরই সব দলের সঙ্গে সংলাপ : সিইসি         চাঁদপুরে ট্রাক-অটোরিকশা মুখোমুখি সংঘর্ষে প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগের দুই পরীক্ষার্থী নিহত         তীব্র জ্বালানি সংকটে শ্রীলঙ্কায় স্কুল ও অফিস বন্ধ         মঠবাড়িয়ায় যাত্রীবাহী বাস চাপায় মোটরসাইকেল আরোহী নিহত, আহত ২         নগর ভবনে দরপত্র জমা দেওয়ার চেষ্টা         রাজধানীর বাজারে প্রায় সব পণ্যের দাম বৃদ্ধি         শনিবার গ্যাস থাকবে না রাজধানীর যেসব এলাকায়         আজ ২০ সিনেমা হলে মুক্তি পেয়েছে ‘পাপ-পুণ্য’         সারাদেশে চলছে ভোটার তালিকার হালনাগাদ         দৌলতখানে বাবা-ছেলে চেয়ারম্যান প্রার্থী         হাইকোর্টের নির্দেশে ভারতে অবৈধ ভাবে নেওয়া চাকরি হারালেন মন্ত্রী কন্যা         আফগানিস্তানে নারী উপস্থাপকদের অবশ্যই মুখ ঢাকতে হবে, নির্দেশ তালিবানের         শাহজালালে ৯৩ লাখ টাকার স্বর্ণসহ যাত্রী আটক