সোমবার ১৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৮, ২৯ নভেম্বর ২০২১ ঢাকা, বাংলাদেশ
প্রচ্ছদ
অনলাইন
আজকের পত্রিকা
সর্বশেষ

হাইকোর্টের সামনে বিএনপি-পুলিশ সংঘর্ষ

হাইকোর্টের সামনে বিএনপি-পুলিশ সংঘর্ষ
  • ধাওয়া-পাল্টাধাওয়া গাড়ি ভাংচুর

স্টাফ রিপোর্টার ॥ কারাবন্দী খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে রাজধানীর হাইকোর্টের সামনে অবস্থান কর্মসূচী পালনকে কেন্দ্র করে বিএনপি-পুলিশ সংঘর্ষ, ধাওয়া-পাল্টাধাওয়া ও গাড়ি ভাংচুরের ঘটনা ঘটেছে। মঙ্গলবার দুপুরে ‘রণাঙ্গনের মুক্তিযোদ্ধা’ ও মুক্তিযোদ্ধা প্রজন্ম আয়োজিত কর্মসূচী পালনকালে এ ঘটনা ঘটে। এদিকে হঠাৎ করে এভাবে শোডাউন করে বিএনপির রাজপথ দখলের চেষ্টা নিয়ে রাজনৈতিক অঙ্গনে ব্যাপক জল্পনা-কল্পনা শুরু হয়েছে। কেউ কেউ এটাকে রহস্যজনক বলেও মনে করছেন।

দুপুর ১টায় জাতীয় প্রেসক্লাব থেকে বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান আব্দুল্লাহ আল নোমানের নেতৃত্বে বিএনপি ও বিভিন্ন অঙ্গ সংগঠনের বিপুলসংখ্যক নেতাকর্মী মিছিল নিয়ে হাইকোর্টের দিকে অগ্রসর হয়। বিএনপি চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে স্লোগান দিতে দিতে তারা হাইকোর্টের সামনে গিয়ে রাস্তায় অবস্থান নেয়।

হাইকোর্টের সামনের সড়কে প্রায় সোয়া ঘণ্টা অবস্থানের পর এক পর্যায়ে তারা সড়ক অবরোধ করে রাস্তায় আগুন জ্বালিয়ে খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে স্লোগান দিতে থাকে। এ পরিস্থিতিতে বিএনপি নেতাকর্মীদের ওপর পুলিশ টিয়ারশেল নিক্ষেপ করে তাদের ছত্রভঙ্গ করার চেষ্টা করে। এ সময় বিএনপি নেতাকর্মীরাও পুলিশকে লক্ষ্য করে ইটপাটকেল নিক্ষেপ করতে থাকে। পুলিশের সঙ্গে বিএনপি নেতাকর্মীরা ধাওয়া-পাল্টাধাওয়ায় লিপ্ত হয়। বিক্ষুব্ধ বিএনপি নেতাকর্মীরা প্রায় ৩০টি গাড়ি ভাংচুর করে। তবে লাঠি চার্জ ও টিয়ারশেলের মাধ্যমে এক পর্যায়ে বিএনপি নেতাকর্মীদের সেখান থেকে সরিয়ে দিয়ে পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।

রাস্তায় অবস্থান কর্মসূচী পালন ও পুলিশের সঙ্গে বিএনপি নেতাকর্মীদের সংঘর্ষকালে জাতীয় প্রেসক্লাব ও মৎস্যভবনসহ আশপাশের এলাকার রাস্তায় এক ঘণ্টা যান চলাচল বন্ধ থাকে। এর ফলে আশপাশের সড়কে ভয়াবহ যানজটের সৃষ্টি হয়। তাই ওই এলাকা দিয়ে চলাচলকারীদের চরম দুর্ভোগের শিকার হতে হয়। বেলা আড়াইটার দিকে যানজট কমে এলে পরিস্থিতি স্বাভাবিক হতে শুরু করে।

এদিকে হাইকোর্টের বাইরের রাস্তায় যখন বিএনপি নেতাকর্মীরা অবস্থান কর্মসূচী পালন করতে গিয়ে গাড়ি ভাংচুর ও পুলিশের সঙ্গে ধাওয়া-পাল্টাধাওয়ায় লিপ্ত হয় তখন জাতীয়তাবাদী আইনজীবীদের মধ্যে কিছু আইনজীবী বাইরে এসে এ কর্মসূচীতে শরিক হয়। আবার কিছু জাতীয়তাবাদী আইনজীবী হাইকোর্টের ভেতরে খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে বিক্ষোভ মিছিল করে।

অবস্থান কর্মসূচী পালনকালে বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান আব্দুল্লাহ আল নোমান বলেন, জনগণের অধিকার আদায়ের জন্য রাস্তায় নামাটা অসাংবিধানিক ও আইনবিরোধী নয়। বিএনপি চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে হাজার হাজার নেতাকর্মী ঘর ছেড়ে আজ রাজপথে নেমেছে। রাজপথই আমাদের ঠিকানা। যতক্ষণ পারি ততক্ষণ অবস্থান করব। পুলিশ যেন আমাদের উস্কানি না দেয়।

নোমান বলেন, দেশে পেঁয়াজ, চাল, তেলসহ দ্রব্যমূল্যের লাগামছাড়া উর্ধগতি। এ জন্য আমাদের বিরোধী দলের আন্দোলন করার অধিকার আছে। সরকারকে উদ্দেশ করে তিনি বলেন, অবিলম্বে খালেদা জিয়াকে মুক্তি দিন। নিত্যপপ্রয়োজনীয় দ্রব্যমূল্য ক্রমক্ষমতায় নামিয়ে আনুন। আর দেশ চালাতে ব্যর্থতার দায় নিয়ে পদত্যাগ করে নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে জাতীয় সংসদ নির্বাচন দিন।

বিএনপি ভাইস চেয়ারম্যান আব্দুল্লাহ আল নোমান ছাড়াও সেখানে উপস্থিত ছিলেন দলের অপর ভাইস চেয়ারম্যান মেজর (অব.) হাফিজউদ্দিন আহমেদ, শওকত মাহমুদ, গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠাতা ডাঃ জাফরউল্লাহ চৌধুরী, বিএনপির নির্বাহী কমিটির সদস্য শাহ মোহাম্মদ আবু জাফর, মুক্তিযোদ্ধা দলের সভাপতি ইশতিয়াক আজিজ উলফাত, সাদেক আহমেদ খান, ডাকসু নির্বাচনে ছাত্রদলের ভিপি প্রার্থী মোস্তাফিজুর রহমান প্রমুখ।

খালেদাকে মুক্ত করতে হলে সবাইকে একযোগে রাজপথে নামতে হবে- জাফরউল্লাহ : বিএনপি নেতাকর্মীদের উদ্দেশ করে গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠাতা ডাঃ জাফরউল্লাহ চৌধুরী বলেছেন, কারাবন্দী খালেদা জিয়াকে মুক্ত করতে হলে সবাইকে একযোগে রাজপথে নামতে হবে। মঙ্গলবার সকালে জাতীয় প্রেসক্লাব মিলনায়তনে খালেদা জিয়ার মুক্তি, সরকারের পদত্যাগ ও নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে নির্বাচনের দাবিতে ‘রণাঙ্গনের মুক্তিযোদ্ধা’ ও ‘মুক্তিযোদ্ধা প্রজন্ম’ আয়োজিত সমাবেশে বক্তব্য রাখতে গিয়ে তিনি এ কথা বলেন।

বিএনপি নেতাকর্মীদের উদ্দেশে ডাঃ জাফরউল্লাহ বলেন, যতক্ষণ না পর্যন্ত খালেদা জিয়ার মুক্তি হবে ততক্ষণ পর্যন্ত চলুন রাজপথে সর্বাত্মক আন্দোলন গড়ে তুলি। চলুন একযোগে রাজপথে নামি। আজ দেশের যে অবস্থা তাতে মুক্তিযুদ্ধের গৌরব ভূলণ্ঠিত হয়ে গেছে। মুক্তিযোদ্ধাদের সেই গৌরব ফিরিয়ে আনতে হলে এবং খালেদা জিয়াকে মুক্ত করতে চাইলে রাজপথে নামতে হবে।

অবিলম্বে খালেদাকে মুক্তি না দিলে রাজপথে আন্দোলন : অবিলম্বে বিএনপি চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়াকে মুক্তি না দিলে রাজপথে দুর্বার আন্দোলন হবে বলে জানিয়েছেন দলটির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী। তিনি বলেন, বিচার বিভাগকে ব্যবহার করে খালেদাকে কারাগারে আটকে রেখে ধীরে ধীরে হত্যার চক্রান্ত চলছে। এই চক্রান্তের দায় কেউ এড়াতে পারবে না। মঙ্গলবার দুপুরে নয়াপল্টন বিএনপি কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ কথা জানান।

রিজভী বলেন, পেঁয়াজ ও চালের দাম বেড়েই চলেছে। পেঁয়াজ নিয়ে এখন স্বল্প আয়ের মানুষের জন্য আতঙ্কের। মাসের পর মাস পার হলেও নিত্যপণ্যের বাজারের কোন উন্নতি হয়নি। বাজারে পর্যাপ্ত শাক-সবজি সরবরাহ থাকলেও শুধু সিন্ডিকেটের কারণে পাল্লা দিয়ে দাম বাড়ছে। পেঁয়াজের জন্য চলছে হাহাকার। ৩৮ টাকায় পেঁয়াজ কিনে সিন্ডিকেটের সদস্যরা তা বিক্রি করছেন দুইশ টাকার উপরে। ১৯৭৪ সালেও এমন হাহাকার ছিল লবণের জন্য।

শীর্ষ সংবাদ:
দেশ এগিয়ে যাচ্ছে, এগিয়ে যাবে         ব্যাটিং ব্যর্থতায় ম্লান বোলিং সাফল্য         মিল্কি ওয়ের প্রথম ‘পালক’         সরকারী কাস্টডিতে নেই খালেদা, তিনি মুক্ত         ঢাকায় বিশ্ব শান্তি সম্মেলন ৪ ডিসেম্বর শুরু         ওমিক্রন প্রতিরোধে সতর্ক অবস্থায় সারাদেশ         সাদা পোশাকে দেশে সবার ওপরে মুশফিক         সাগরে জলদস্যুতায় যাবজ্জীবন দন্ড         গ্রুপ থিয়েটার ফেডারেশন, ৪১ বছর পূর্তির আয়োজন         কুয়েতে পাপুলের সাত বছরের কারাদন্ড         পাকি প্রেম দূরে রাখুন         বিনিয়োগবান্ধব পরিবেশ তৈরিতে আমরা প্রতিশ্রুতিবদ্ধ         ‘মোকাবেলা করে বাংলাদেশ এগিয়ে যাচ্ছে ’         তৃতীয় ধাপের সহিংসতাহীন নির্বাচন সম্পন্ন হয়েছে দাবি ইসির         করোনা : গত ২৪ ঘন্টায় মৃত্যু ৩         করোনার নতুন ভ্যারিয়েন্ট ওমিক্রন নিয়ে স্বাস্থ্য অধিদফতরের সতর্কবার্তা         পরিবহন সেক্টর কার নিয়ন্ত্রণে : জি এম কাদের         সংসদে নির্বাচন কমিশন গঠনে আইন আনা হচ্ছে শিগগিরই ॥ আইনমন্ত্রী         বাংলাদেশে বিনিয়োগে আগ্রহী সৌদির ৩০ কোম্পানি         আগামী ১ ডিসেম্বর থেকে নগর পরিবহন চালু সম্ভব নয় : মেয়র তাপস