সোমবার ১১ মাঘ ১৪২৮, ২৪ জানুয়ারী ২০২২ ঢাকা, বাংলাদেশ
প্রচ্ছদ
অনলাইন
আজকের পত্রিকা
সর্বশেষ

প্রতিবন্ধী কার্তিক করুণা নয় চাকরি চান

স্টাফ রিপোর্টার, যশোর অফিস ॥ মণিরামপুরের কার্তিক দাস। শারীরিক প্রতিবন্ধী। উচ্চতা মাত্র ৩২ ইঞ্চি। শারীরিক প্রতিবন্ধী হলেও হার মানেননি লেখাপড়ায়। জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের সর্বোচ্চ ডিগ্রী অর্জন করেছেন। কিন্তু তার চাকরি হচ্ছে না। উচ্চতা কমের কারণে কেউ তাকে চাকরি দিতে চায় না। জীবনে প্রতিষ্ঠার জন্য চাকরির কাছে হার মানতে হচ্ছে তাকে। তার কথা করুণা ভিক্ষা নয়, চাকরি চাই।

মণিরামপুর উপজেলার দহাকুলা গ্রামের হত-দরিদ্র রামপদ দাস ও মালঞ্চ রানী দাসের ছেলে কার্তিক দাস। জন্মের পর থেকে অষ্টিওলাইস্সি রোগে আক্রান্ত হয়ে শারীরিকভাবে পঙ্গুত্ব বরণ করেন কার্তিক দাস। অনেক চেষ্টা করেও ছেলের রোগ সারাতে পারেননি রামপদ দাস। তার হাঁটু থেকে পায়ের তলা পর্যন্ত শুকিয়ে শীর্ণকায় হয়ে যায়। মাত্র ৩২ ইঞ্চি উচ্চতার শারীরিক প্রতিবন্ধী কার্তিক দাসের বয়স এখন ৩০। প্রতিবন্ধী হয়েও দমেননি তিনি। ২০০৩ সালে এসএসসি ও ২০০৬ সালে এইচএসসি পাসের পর জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় অধীন মণিরামপুর কলেজ থেকে রাষ্ট্রবিজ্ঞান বিষয়ে অনার্স ও যশোর সরকারী এমএম কলেজ থেকে ওই বিষয়ে এমএ ডিগ্রী অর্জন করেন। একই সঙ্গে কারিগরি শিক্ষা বোর্ড থেকে কম্পিউটারের ওপর ডিপ্লোমা ডিগ্রীও অর্জন করেছেন। কখনও ভ্যানে, কখনও অন্যের সাহায্যে বাড়ি থেকে ১৫ কিলোমিটার পথ নিয়মিত যাতায়াত করে জীবনের এত পথ পাড়ি দিয়েছেন। বিশ্ববিদ্যালয়ের সর্বোচ্চ ডিগ্রী অর্জন করেও জীবন প্রতিষ্ঠার দ্বারপ্রান্তে চাকরির কাছে হার মানতে হচ্ছে তাকে।

কার্তিক দাসের মা মালঞ্চ দাস বলেন, ডাক্তাররা বলেছেন অপারেশন করালে কার্তিক কিছুটা শক্তি ফিরে পাবে। কিন্তু আমাদের দিন চলে খেয়ে না খেয়ে, অপারেশন করার টাকা পাব কোথায়? কার্তিকের বাবা রামপদ দাস বলেন, ছোট বেলা থেকেই তার ছেলের পড়ালেখার প্রতি খুব আগ্রহ। অনেক কষ্ট করে লেখা-পড়া করেছে সে। অভাবের সংসারে আজ যদি ও একটা চাকরি পেত তাহলে আমাদের কষ্ট কিছুটা দূর হতো। কার্তিকের শিক্ষক অধ্যাপক বাবুল আকতার বলেন, অদম্য ইচ্ছা শক্তির কাছে হার মেনেছে প্রতিবন্ধী কার্তিকের শারীরিক প্রতিবন্ধকতা। সে সমাজসেবা অধিদফতর, জেলা পরিষদ, সিভিল সার্জন অফিসসহ বিভিন্ন দফতরে চাকরির আবেদন করেছেন। সরকারী/বেসরকারী, ব্যক্তি প্রতিষ্ঠানের পক্ষ থেকে তাকে সহযোগিতা করতে পারলে সে আমাদের বোঝা নয়, বরং সম্পদ। কার্তিক বলেন, প্রতিবন্ধী হয়েছি বলে কারও করুণা ভিক্ষা চাই না, চাই সম্মানজনক চাকরি। চাকরি পেয়ে বাবা-মার টানাটানির সংসারের কিছুটা দায়িত্ব নিতে চাই।

শীর্ষ সংবাদ:
শিক্ষকদের বরখাস্তের ১৮০ দিনের মধ্যে অভিযোগ নিষ্পত্তির নির্দেশ         ঢাকায় ওমিক্রনের নতুন ৩ সাব-ভ্যারিয়েন্ট         করোনায় মৃত্যু ১৫, শনাক্ত ১৪৮২৮         আন্দোলনকারীদের অর্থ সংগ্রহের ৬ ‘অ্যাকাউন্ট বন্ধ’         ভূমি নিয়ে আসছে নতুন আইন         বিধিনিষেধের বিষয়ে পরবর্তী নির্দেশনা এক সপ্তাহ পর : জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী         আওয়ামী লীগ ইনডেমনিটি দেয় না : আইনমন্ত্রী         ৬ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত বন্ধ থাকবে মাদরাসা         মুজিববর্ষ উপলক্ষে ২৬ মার্চ বিশেষ কর্মসূচি পালন নিয়ে ভাবছে কমিটি         বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যালের আগুন নিয়ন্ত্রণে         ব্যাংক-আর্থিক প্রতিষ্ঠান ৬ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত অর্ধেক জনবলে চলবে         শিগগীরই সংসদে উঠবে শিক্ষা আইন : ডা. দীপু মনি         টাকা ফেরত পেলেন ই-কমার্স কোম্পানি কিউকমের ২০ গ্রাহক         জাবি শিক্ষার্থীদের কাছে ক্ষমা চেয়েছেন শাবি ভিসি         পদত্যাগ করলেন আর্মেনিয়ার প্রেসিডেন্ট         পুলিশের কাজ ‘পেশা’ নয় ‘সেবা’: বেনজীর আহমেদ         সরকারকে বিব্রত করতেই ইসি আইনের বিরোধিতা ॥ হানিফ         ঢাবিতে শিক্ষকদের প্রতীকি অনশন         ৮৫ বার পেছাল সাগর-রুনি হত্যা মামলার প্রতিবেদন         সুগন্ধা ট্রাজেডি ॥ একমাসেও অভিযান লঞ্চের ৩২ যাত্রীর খোঁজ মেলেনি