বৃহস্পতিবার ৬ মাঘ ১৪২৮, ২০ জানুয়ারী ২০২২ ঢাকা, বাংলাদেশ
প্রচ্ছদ
অনলাইন
আজকের পত্রিকা
সর্বশেষ

রুসেফকে অভিশংসন ॥ সুবিধা নেবে দুর্নীতিবাজরা

  • জনগণের দৃষ্টি অন্য দিকে ফেরানো কৌশল

ব্রাজিল রবিবার প্রেসিডেন্ট দিলমা রুসেফকে অভিশংসন করার পথে এক বড় রকমের পদক্ষেপ নেয়। সেদিন কংগ্রেসের নিম্নকক্ষ তার অভিশংসনের প্রস্তাবটি উচ্চকক্ষ সিনেটে পাঠানোর পক্ষে ভোট দেয়। সিনেট যে তার বিচার অনুষ্ঠানের পক্ষে ভোট দেবে তা প্রায় নিশ্চিত। এখন মনে হয়, প্রেসিডেন্ট তার পদ থেকে অপসারিত হবেন এবং তার স্থলে তার ভাইস প্রেসিডেন্ট মিশেল তেমের অভিষিক্ত হবেন। রুসেফের সমর্থকরা ক্ষুব্ধ, তার বিরোধীরা আনন্দে আত্মহারা এবং ব্রাজিলের দুর্নীতিপরায়ণ রাজনীতিকরা স্বস্তির নিঃশ্বাস ফেলছেন।

রবিবার ঘণ্টার পর ঘণ্টা ধরে টেলিভিশনে সম্প্রচারিত অধিবেশনে কংগ্রেস সদস্যরা অভিশংসনের পক্ষে ভোট দিতে গিয়ে তাদের সিদ্ধান্তের কারণ ব্যাখ্যা করেন। কিন্তু খুব কমসংখ্যক সদস্যই প্রেসিডেন্টের বিরুদ্ধে বাস্তবে আনীত অভিযোগের ভিত্তিতে তাদের ভোট দেন। অভিযোগটি ছিল, তিনি সরকারী অর্থের ব্যবস্থাপনা সম্পর্কিত নিয়মকানুন লঙ্ঘন করেছেন।

বিরোধীরা দাবি করছেন, তারা সুশাসন সম্পর্কে একটি বার্তা পাঠাতে চান। কিন্তু প্রেসিডেন্টকে অভিশংসন চেষ্টার আসল কারণ হলো ব্রাজিলের রাজনৈতিক ব্যবস্থা ধ্বংসপ্রায়। রুসেফকে অভিশংসন জনগণের দৃষ্টি অন্যদিকে ঘুরিয়ে নেয়ার সুযোগ করে দেবে এবং তখন অন্য রাজনীতিক তাদের বিষয়াদি গুছিয়ে নেয়ার চেষ্টা করছেন।

অপারেশন কারওয়াশ নামে অভিহিত এক ব্যাপক দুর্নীতি বিষয়ক তদন্ত রাজনৈতিক ব্যবস্থার স্বরূপ উন্মোচিত করে। প্রথমে ২০১৪ সালে যখন তদন্ত শুরু করা হয়, তখন তদন্তকারীরা রুসেফের বামপন্থী ওয়ার্কার্স পার্টির সদস্যদের বিরুদ্ধে রাজনৈতিক সুযোগ-সুবিধার বিনিময়ে ঘুষ গ্রহণের জন্য রাষ্ট্রায়ত্ত তেল কোম্পানি পেট্রোব্রাসকে কাজে লাগানোর দায়ে অভিযুক্ত করে।

এ ধরনের রীতি ব্রাজিলের রাজনৈতিক দলগুলোর মধ্যে সাধারণভাবেই প্রচলিত বলে ক্রমশ প্রমাণ পাওয়া যায়। রাজনৈতিক দলমত নির্বিশেষে অনেক নেতাকে তদন্তের আওতায় আনা হয়। তাদের মধ্যে প্রায় ৫০ রাজনীতিক ও কয়েক ব্যবসায়ী নেতাও আছেন। অনেক ব্রাজিলীয় রাজনীতিকের সঙ্গে রুসেফের পার্থক্য এই যে, তার বিরুদ্ধে ঘুষ গ্রহণ বা সুযোগ-সুবিধার বিনিময়ে নগদ অর্থ গ্রহণের অভিযোগ আনা হয়নি। কিন্তু তিনি এক দুর্বল ও অজনপ্রিয় প্রেসিডেন্ট।

বিশ্বে পণ্যমূল্য হ্রাস পাওয়া এবং তার প্রথম মেয়াদকালে অর্থনৈতিক অব্যবস্থাপনার কারণেই বহুলাংশে অর্থনীতি স্থবির হয়ে রয়েছে। তিনি সরকারী ব্যয় কমাতে এবং কষ্টকর কৃচ্ছ্রনীতি অবলম্বন করতে বাধ্য হন। সংক্ষেপে বলতে গেলে, তিনি সহজেই লোকজনের ক্ষোভের শিকারে পরিণত হন। দুর্নীতির মূল তদন্তের সঙ্গে সম্পর্কহীন এমন সব অভিযোগেও যদি রুসেফকে ক্ষমতাচ্যুত করা হয়, তবে সেটি অপারেশন কারওয়াশের এক চমৎকার উপযুক্ত পরিসমাপ্তি হবে; ব্যাপক অসন্তোষের অবসান হবে। এটি কংগ্রেসের বেশিরভাগ সদস্য-দুর্নীতিপরায়ণ ডানপন্থী রাজনীতিকদের জনগণের নজরদারি থেকে সাময়িক অব্যাহতি দেবে। এ কৌশলের উদ্ভাবক হলেন ব্রাজিলের নিম্নকক্ষের প্রধান এদুয়ার্দো কুনা। তিনিই অভিশংসন অভিযোগ পরিচালনায় নেতৃত্ব দেন। যখন তিনি রুসেফের বিরুদ্ধে অভিশংসন প্রক্রিয়া শুরু করছিলেন, ঠিক তখনই তার নিজের বিরুদ্ধেই অর্থপাচার ও ঘুষ গ্রহণসহ দুর্নীতির অভিযোগের তদন্ত চলছিল। এ পর্যন্ত তার পানি ঘোলা করার কৌশল ঠিকভাবেই কাজে এসেছে, অভিশংসন কার্যক্রম চালু রয়েছে এবং মানুষের দৃষ্টি কুনার নিজস্ব আইনগত সমস্যা থেকে অন্যদিকে সরিয়ে নিয়ে গেছে। রবিবার অভিশংসনের পক্ষে ভোট দিয়েছিলেন এমন অনেক কংগ্রেস সদস্যও একই সৌভাগ্য ভোগ করবেন বলে আশা করছেন। অপারেশন কারওয়াশের দায়িত্বপ্রাপ্ত টাস্কফোর্সের সদস্যরা উদ্বিগ্ন। বিবিসি ব্রাজিলের সঙ্গে এক সাক্ষাতকারে অপারেশন কারওয়াশের প্রধান পাবলিক প্রসিকিউটর দেলতান দালাগনল অভিশংসনের পর রাজনীতিকরা তদন্তের বিরুদ্ধাচরণ করতে পারেন বলে আশঙ্কা ব্যক্ত করেন।

রুসেফের সমর্থকরা তার অত্যাসন্ন অভিশংসন এক অভ্যুত্থানেরই অংশ বলে দাবি করছেন। এটি অভ্যুত্থান নয়। আইনগত পদ্ধতি অনুসরণ করা হচ্ছে এবং সম্ভবত রুসেফ আইন ভঙ্গ করেছিলেন। কিন্তু তার অর্থ এই নয় যে, এটি সঠিক। অপারেশন কারওয়াশ কেলেঙ্কারি যে সঙ্কট বয়ে এনেছে, তা ব্রাজিলে এক কার্যকর বিচার বিভাগ প্রতিষ্ঠা এবং দুর্নীতি রোধ করার কষ্টকর ও অসাধারণ প্রক্রিয়ার অংশ হওয়া উচিত ছিল। কিন্তু রুসেফের পতন সেই সুখদায়ক কাহিনীর যুক্তিসঙ্গত পরিণতি নয়। এক নতুন যুগের সূচনা হওয়া তো দূরের কথা, বরং এটি দেশের ওপর পুরনো রাজনীতিক শ্রেণীর নিয়ন্ত্রণ পুনর্ব্যক্ত করা এবং কারাগার এড়িয়ে যাওয়ার পথ বলে প্রতিপন্ন হতে পারে। -ইন্টারন্যাশনাল নিউইয়র্ক টাইমস

শীর্ষ সংবাদ:
বিধিনিষেধে তোয়াক্কা নেই ॥ করোনা সংক্রমণ বেড়েই চলেছে         অগ্রযাত্রা কেউ থামিয়ে দিতে পারবে না         চিকিৎসার নামে অপচিকিৎসা         ঢাকা, রাঙ্গামাটির পর ঝুঁকিপূর্ণ আরও ১০ জেলা         বিএনপি-জামায়াতের লবিস্ট নিয়োগ তদন্তে গোয়েন্দারা         লাভজনক থেকে রুগ্ন ॥ গাজী ওয়্যারসের আধুনিকায়ন প্রকল্পে ২০ কোটি টাকা লোপাট         বিএনপি জনমনে বিভ্রান্তি সৃষ্টির পাঁয়তারা চালাচ্ছে ॥ কাদের         ওমক্রিন প্রতেিরাধে ডসিদিরে র্সবােচ্চ সর্তক থাকার নর্দিশে         শিমুকে সরিয়ে দেয়ার সুযোগ খুঁজতে থাকে ঘাতক স্বামী         দাবি আদায় না হওয়া পর্যন্ত অনশন চলবে         কেটে গেছে শৈত্যপ্রবাহ তিনদিনের মধ্যে বৃষ্টি হতে পারে         অস্ট্রেলিয়ায় চাকরির নামে বিপুল অর্থ আত্মসাত         খাস জমির অর্ধেক উদ্ধার করে ১০ লাখ ভূমিহীনকে আশ্রয় দেয়া সম্ভব         ‘বাংলাদেশের অপ্রতিরোধ্য অগ্রযাত্রা কেউ থামাতে পারবে না’         একদিনে করোনায় ১২ মৃত্যু, শনাক্ত ৯৫০০         ‘মাসুদ রানা’খ্যাত কাজী আনোয়ার হোসেন আর নেই         গ্যাসের দাম বাড়ানোর বিরুদ্ধে ব্যবসায়ীরা         বাংলাদেশ ব্যাংকের ৪ কর্মকর্তাকে দুদকে তলব         ই-কমার্সে আস্থা ফেরাতে ফেব্রুয়ারিতে চালু হচ্ছে নিবন্ধন : পলক         করোনার সংক্রমণের উচ্চ ঝুঁকিতে ১২ জেলা