মঙ্গলবার ২৭ শ্রাবণ ১৪২৭, ১১ আগস্ট ২০২০ ঢাকা, বাংলাদেশ
প্রচ্ছদ
অনলাইন
আজকের পত্রিকা
সর্বশেষ

আমানত ও ঋণের সুদহার ৫ শতাংশের নিচে

অর্থনৈতিক রিপোর্টার ॥ চলতি অর্থবছরের মার্চ শেষে ব্যাংক খাতের আমানত ও ঋণের সুদের গড় ব্যবধান (স্প্রেড) ৫ শতাংশের নিচে নেমে এসেছে। এ মাসে ব্যাংকগুলোর গড় স্প্রেড দাঁড়িয়েছে ৪ দশমিক ৮৭ শতাংশীয় পয়েন্ট। যা আগের মাস ফেব্রুয়ারিতে ছিল ৫ দশমিক শূন্য ৪ শতাংশীয় পয়েন্ট। বাংলাদেশ ব্যাংকের স্প্রেড সংক্রান্ত হালনাগাদ প্রতিবেদন থেকে এ তথ্য জানা গেছে।

প্রতিবেদনে দেখা গেছে, মার্চ শেষে ঋণ ও আমানত উভয় ক্ষেত্রেই কিছুটা সুদহার কমিয়েছে ব্যাংকগুলো। ফলে দেশের ৫৬টি ব্যাংকের ঋণের গড় সুদহার দাঁড়িয়েছে ১১ দশমিক ৯৩ শতাংশীয় পয়েন্টে, যা আগের মাসে ছিল ১২ দশমিক ২৩ শতাংশ। আমানতের গড় সুদহারও কিছুটা কমে ৭ দশমিক শূন্য ৬ শতাংশে দাঁড়িয়েছে, যা আগের মাসে ছিল ৭ দশমিক ১৯ শতাংশ। প্রতিবেদনে আরও দেখা যায়, বিদেশী ব্যাংকগুলোর স্প্রেড হার সবচেয়ে বেশি থাকলেও বেসরকারী বাণিজ্যিক ব্যাংকগুলোর ক্ষেত্রে এটি অনেকটাই কমেছে। যার প্রভাবেই মূলত গড় স্প্রেড ৫ শতাংশের নিচে নেমে এসেছে।

প্রতিবেদনের তথ্য মতে, বিদেশী ব্যাংকগুলোর স্প্রেড সবচেয়ে বেশি। এদের গড় স্প্রেড দাঁড়িয়েছে ৭ দশমিক ৮৫ শতাংশীয় পয়েন্ট। ব্যাংকগুলো মাত্র ৩ দশমিক ৩৯ শতাংশ হারে আমানত সংগ্রহ করে ১১ দশমিক ২৪ শতাংশ সুদের ঋণ বিতরণ করেছে। এদের মধ্যে ৬টি ব্যাংকেরই স্প্রেড কেন্দ্রীয় ব্যাংকের নীতিমালা অমান্য করেছে। এখানে স্ট্যান্ডার্ড চার্টার্ড ব্যাংকের স্প্রেড ১০ দশমিক ২৯ শতাংশ, স্টেট ব্যাংক অব ইন্ডিয়ার ৫ দশমিক ৩৫ শতাংশ, সিটি ব্যাংক এন এ ৭ দশমিক ৯২ শতাংশ, কমার্শিয়াল ব্যাংক অব সিলন ৬ দশমিক ৬৭, উরি ব্যাংক ৮ দশমিক ৩০ শতাংশ এবং দ্য হংকং এ্যান্ড সাংহাই ব্যাংক কর্পোরেশন লিমিটেডের (এইচএসবিসি) স্প্রেড দাঁড়িয়েছে ৬ দশমিক ৮৩ শতাংশীয় পয়েন্টে।

বেসরকারী ব্যাংকগুলোর স্প্রেড দাঁড়িয়েছে ৫ দশমিক ২৫ শতাংশীয় পয়েন্টে, যা আগের মাসে ছিল ৫ দশমিক ২৮ শতাংশ। ব্যাংকগুলো ৭ দশমিক ৩৩ শতাংশে আমানত সংগ্রহ করে ১২ দশমিক ৫৮ শতাংশে ঋণ বিতরণ করেছে। আর ১৫টি ব্যাংক তাদের স্প্রেড সীমা অতিক্রম করেছে। যার মধ্যে ব্র্যাক ব্যাংকের স্প্রেড ৯ দশমিক ৭৩ শতাংশ, যা সবচেয়ে বেশি। এরপরই রয়েছে ডাচ বাংলা ব্যাংক। যার স্প্রেড ৭ দশমিক ৪৭ শতাংশ। রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাংকগুলো ৭ দশমিক শূন্য ৮ শতাংশ হারে আমানত সংগ্রহ করে ১১ দশমিক ২৩ শতাংশ হারে ঋণ বিতরণ করেছে। ফলে স্প্রেড দাঁড়িয়েছে ৪ দশমিক ১৫ শতাংশীয় পয়েন্টে। অন্যদিকে, বিশেষায়িত ব্যাংকগুলো ৮ দশমিক ১৭ শতাংশে আমানত সংগ্রহ করে বিতরণ করেছে ৯ দশমিক ৪৩ শতাংশ হারে। ফলে তাদের স্প্রেড দাঁড়িয়েছে ১ দশমিক ২৬ শতাংশীয় পয়েন্টে। বিশেষজ্ঞদের মতে, বিনিয়োগবান্ধব পরিবেশ সৃষ্টির লক্ষ্যে ঋণের সুদহার যৌক্তিক পর্যায়ে নির্ধারণ এবং স্প্রেড ৪ শতাংশের কাছাকাছি নামিয়ে আনার জন্য বাংলাদেশ ব্যাংক নজরদারি অব্যাহত রেখেছে। বর্তমানে বিচার বিবেচনাপূর্বক প্রকৃত ঋণগ্রহীতা নির্বাচন করে ঋণ সম্প্রসারণের মতো পর্যাপ্ত তারল্যও ব্যাংকগুলোর হাতে রয়েছে।

শীর্ষ সংবাদ:
গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে করোনায় মারা গেছেন ৩৩ জন, নতুন শনাক্ত ২৯৯৬         দেশের উন্নয়নে প্রয়োজন অভ্যন্তরীণ স্থিতিশীলতা ॥ সেতুমন্ত্রী         প্রণব মুখার্জির দ্রুত আরোগ্য কামনা করেছেন বাংলাদেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রী         দেশে এক মাসে ১০৭ জন নারী ও শিশু ধর্ষণের শিকার         মাথাপিছু আয় বেড়ে এখন ২০৬৪ ডলার         বাতিল হচ্ছে পিইসি-জেএসসি পরীক্ষা         মন্দির প্রাঙ্গণেই জন্মাষ্টমীর সব আয়োজন         গাজীপুরে পোশাক শ্রমিকদের বিক্ষোভ, আড়াই ঘন্টা মহাসড়ক অবরোধ         ব্রাজিলে কমেছে সংক্রমণ, বেড়েছে সুস্থতা         বিতর্কিত নির্বাচনে উত্তাল বেলারুশ         করোনার ‘প্রকৃত তথ্য’ জানানোয় ইরানে পত্রিকা বন্ধ !         টিকটকে ব্যক্তিগত তথ্য হাতিয়ে নেওয়ার প্রমাণ নেই ॥ সিআইএ         তাইওয়ানে যুক্তরাষ্ট্রের মন্ত্রীর সফরে নিয়ে ক্ষুব্ধ চীন         ব্রিটেনে মহাত্মা গান্ধীর চশমা নিলামে         বিশ্বে ২৪ ঘণ্টায় ৪ হাজার মৃত্যু, ২ লাখের বেশি শনাক্ত         করোনা কোনো মৌসুম মানে না : বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা         ক্রমবর্ধমান চাপের মুখে লেবাননের প্রধানমন্ত্রীর পদত্যাগ         ট্রাম্পের ব্রিফিংকালে হোয়াইট হাউসের বাইরে গোলাগুলি         বার্মিংহামে প্লাস্টিক ফ্যাক্টরিতে ভয়াবহ আগুন         হায় স্বাস্থ্যবিধি! অস্তিত্ব শুধু কাগজে কলমে        
//--BID Records