ঢাকা, বাংলাদেশ   শুক্রবার ২১ জুন ২০২৪, ৮ আষাঢ় ১৪৩১

দুবাই প্রবাসীর স্ত্রীকে গলা কেটে হত্যা

প্রকাশিত: ১২:১৫, ২৪ মে ২০২৪

দুবাই প্রবাসীর স্ত্রীকে গলা কেটে হত্যা

বৃহস্পতিবার (২৩ মে) দিবাগত রাত ৩টার দিকে এ ঘটনা ঘটেছে

ঝিনাইদহে প্রবাসীর স্ত্রীকে গলা কেটে হত্যার ঘটনা ঘটেছে। এ সময় নিহতের ছেলের স্ত্রীকেও গুরুতর আহত করা হয়। বৃহস্পতিবার (২৩ মে) দিবাগত রাত ৩টার দিকে সদর উপজেলার খালকুলা গ্রামে এ ঘটনা ঘটেছে।

নিহত ফাতেমা বেগম (৪৫) ঝিনাইদহ সদর উপজেলার গান্না ইউনিয়নের খালকোলা গ্রামের প্রবাসী আবেদ আলীর স্ত্রী। আহত বিথি খাতুন (১৮) আবেদ আলীর ছেলে প্রবাসী মেহেদী হাসানের স্ত্রী।

এ ঘটনায় দুইজনকে আটক করেছে পুলিশ। আটকরা হলেন- সদর উপজেলার গান্না ইউনিয়নের বেতাই দুর্গাপুর গ্রামের বাদল মিয়ার ছেলে সাগর হোসেন ও ছোট ঝিনাইদহ গ্রামের ফেলু সরকারের ছেলে সুশান্ত সরকার।

প্রতিবেশী ওবাইদুল ইসলাম গণমাধ্যমকে জানান, আমি ফজরের নামাজ পড়ে বাড়িতে এসে দেখি একজন নারী উঠানে গড়াগড়ি করছেন। আমার পরিবারের লোকজন ভয় পেয়ে ঘরে ঢুকে যায়, পরে আমি ওই মেয়েকে কি কারণে এখানে এসেছে জিজ্ঞাসা করতে সে মাথা ঘুরালেই দেখতে পাই মেহেদীর স্ত্রী। পরে তাদের বাড়িতে গিয়ে দেখি ফাতেমার গলাকাটা মরদেহ ঘরের মধ্যে পড়ে আছে। তখন দ্রুত লোকজনদের ডাকি এবং পাশের বেতাই পুলিশ ক্যাম্পে খবর দিই। বিথীকে উদ্ধার করে দ্রুত সদর হাসপাতালে পাঠানো হলে তার অবস্থার অবনতি হওয়ায় ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে রেফার্ড করেন ডাক্তার। এ অবস্থায় বিথির হাতে লেখা একটি চিরকুট উদ্ধার করে পুলিশ। সেখানে দুইজনের নাম উল্লেখ থাকায় তাদের আটক করা হয়েছে।

গান্না ইউপি মহিলা সদস্য মোছা. নার্গিস সুলতানা বলেন, প্রবাসী আবেদ আলী দীর্ঘ ১৫ বছর যাবত দুবাই থাকেন। তার ছেলে মেহেদীকে গত দুই বছর আগে মালয়েশিয়ায় পাঠিয়েছেন। এরপর থেকে আবেদ আলীর স্ত্রী ও পুত্রবধূ গ্রামে বসবাস করেন। এই বাড়িতে তারা দুইজনই থাকেন। কোনো পুরুষ মানুষ ছিল না। গত বেশ কিছুদিন যাবত এই বাড়িতে মিস্ত্রিরা নির্মাণের কাজ করছেন। মিস্ত্রিদের টাকাসহ বড় অঙ্কের টাকা বিদেশ থেকে আসবে জানতে পারে মিস্ত্রিরা। সেই লোভে বৃহস্পতিবার ভোররাতে বাড়ির বারান্দার দেয়াল ভেঙে তারা ডাকাতির উদ্দেশ্যে প্রবেশ করে। এরপর ডাকাতদের উপস্থিতি টের পাওয়ার কারণে আবেদ আলীর স্ত্রীকে জবাই করে ও পুত্রবধূকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে মারাত্মকভাবে আহত করে।

এ বিষয়ে ঝিনাইদহ সদর সার্কেলের সহকারী পুলিশ সুপার মীর আবিদুর রহমান জানান, ঘটনা শুনে পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে এবং ক্রাইম সিনের দল আলামত সংগ্রহ করেছে। পুত্রবধূ বিথির হাতে লেখা চিরকুটটি উদ্ধার করা হয়েছে। তার সূত্র ধরে আমরা দুইজনকে আটক করেছি। পরে বিস্তারিত জানাতে পারব।

বারাত

×