ঢাকা, বাংলাদেশ   রোববার ১৬ জুন ২০২৪, ২ আষাঢ় ১৪৩১

হত্যা নাকি দুর্ঘটনা? আ.লীগ নেতার রক্তাক্ত মরদেহ উদ্ধার

প্রকাশিত: ১০:৫৪, ২৮ ফেব্রুয়ারি ২০২৪

হত্যা নাকি দুর্ঘটনা? আ.লীগ নেতার রক্তাক্ত মরদেহ উদ্ধার

নকিব আকবর আলীর রক্তাক্ত মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে

নকিব আকবর আলীর (৭২) রক্তাক্ত মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। তিনি বাগেরহাট সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি ও সাবেক ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান। মঙ্গলবার (২৭ ফেব্রুয়ারি) রাতে মুনিগঞ্জ সেতু টোলপ্লাজা সংলগ্ন সড়কের ওপর থেকে রক্তাক্ত অবস্থায় তাকে উদ্ধার বাগেরহাট জেলা হাসপাতালে নিয়ে যান পথচারীরা। তাকে মৃত অবস্থায় হাসপাতালে নেওয়া হয়েছিল বলে জানিয়েছেন চিকিৎসকরা।

নকিব আকবর আলী বাগেরহাট সদর উপজেলার বিষ্ণুপুর এলাকার বাসিন্দা। তিনি দীর্ঘদিন ধরে বিষ্ণুপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি এবং ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান ছিলেন। তার স্ত্রী, এক মেয়ে ও দুই ছেলে রয়েছেন। 

আরও পড়ুন : ভাসানচরে বিস্ফোরণ: আরও এক রোহিঙ্গা শিশুর মৃত্যু

হাসপাতালে নিয়ে আসা পথচারীদের দাবি, হাজার পাটগাতি আঞ্চলিক মহাসড়কের ওপর রক্তাক্ত অবস্থায় নকিব আকবর আলী এবং তার মোটরসাইকেল পড়েছিল। পরে তারা একটি ইজিবাইকে করে নকিবকে এবং তার মোটরসাইকেলটি বাগেরহাট জেলা হাসপাতালে নিয়ে আসে। 

নকিব আকবর আলীর জামাতা অ্যাডভোকেট এনামুল হোসেন বলেন, এটা একটা হত্যাকাণ্ড হতে পারে। তার চোখ, কপাল ও মাথার পেছনে আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। তার অনেক শত্রু ছিল। তারাও এই ঘটনা ঘটাতে পারে। তদন্ত করে সঠিক ঘটনা উদ্ঘাটনের দাবি জানান তিনি। 

বাগেরহাট সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আক্তারুজ্জামান বাচ্চু বলেন, এটি হত্যা না দুর্ঘটনা স্পষ্ট করে বলতে পারছি না। তদন্তপূর্বক এই মৃত্যুর কারণ পুলিশকে উদঘাটন করতে হবে। অপরাধী অনেক বেশি ক্ষমতাধর হলেও তাকে আইনের আওতায় আনতে হবে। তার মৃত্যুতে সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের অপূরণীয় ক্ষতি হয়েছে।

বাগেরহাট জেলা হাসপাতালের জরুরী বিভাগের চিকিৎসক পার্শা সানজানা বলেন, নকিব আকবর আলীকে মৃত অবস্থায় হাসপাতালে নিয়ে আসা হয়েছিল। বিষয়টি পুলিশকে জানানো হয়েছে।

বাগেরহাট মডেল থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সুব্রত কুমার সরদার বলেন, মরদেহের সুরতহাল করা হয়েছে। ময়নাতদন্তের প্রস্তুতি চলছে। এ ঘটনায় একটি অপমৃত্যু মামল হয়েছে। ময়নাতদন্ত রিপোর্ট পেলে মৃত্যুর সঠিক কারণ জানা যাবে। 

এবি 

সম্পর্কিত বিষয়:

×