ঢাকা, বাংলাদেশ   সোমবার ২৮ নভেম্বর ২০২২, ১৪ অগ্রাহায়ণ ১৪২৯

monarchmart
monarchmart

ঢাকায় ৫০০ চুরিতে জড়িত আজিজুল গ্রেফতার

মাদারীপুরের মেম্বার রাজধানীতে চোরের হোতা

স্টাফ রিপোর্টার

প্রকাশিত: ০০:৪৩, ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২২

মাদারীপুরের মেম্বার রাজধানীতে চোরের হোতা

আজিজুল

রাজধানীতে চুরির ঘটনা বেড়েছে। গত মাসে বিভিন্ন থানায় ৭৩টি চুরির মামলা হয়েছে। তবে বাস্তব চিত্র এর চেয়েও বেশি। অল্প চুরির ঘটনায় আইনী জটিলতার কথা ভেবে ভুক্তভোগীরা থানায় মামলা করেন না। চুরি কমাতে ইতোমধ্যে চোরের ডাটাবেজ তৈরি করা হচ্ছে। ডিএমপির হাতে ৪ হাজার চোরের ডাটাবেজ তৈরি করা হয়েছে। অচিরেই তাদের বিরুদ্ধে অভিযান শুরু হবে। বুধবার বিকেল সাড়ে ৩টার দিকে ডিএমপি মিডিয়া সেন্টারে এক সংবাদ সম্মেলনে অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার (ক্রাইম এ্যান্ড অপারেশনস) এ কে এম হাফিজ আক্তার এসব কথা জানান।
অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার হাফিজ আক্তার জানান, মঙ্গলবার রাতে চুরির বিভিন্ন যন্ত্রসহ রাজধানীর কাফরুল সেনপাড়া পর্বতা ঈদগাহ মাঠ এলাকা থেকে চোর চক্রের হোতা মাদারীপুরের শিরখাড়া ইউনিয়নের ৯ নম্বর ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য মোঃ আজিজুল হক ফকিরকে (৪৭) গ্রেফতার করে থানা পুলিশ। এ সময় তার কাছ থেকে একটি লোহার শাবল (খুন্তি), একটি বোল্ড কাটার, দুটি মেট্রো-গ-১৩-৮৫৮৯ লেখা গাড়ির নম্বর প্লেট, একটি তালা, একটি বড় স্কু ড্রাইভার, ১২টি শাড়ি, একটি প্লাস, একটি সাদা রংয়ের প্রাইভেটকার (ঢাকা মেট্রো-গ ১৭-৬৫৬৯), একটি মোবাইল ফোন, একটি  প্রেসার মাপার যন্ত্র রাখার ব্যাগ, নগদ টাকা, হ্যান্ডব্যাগ ও ৪৩৯ টাকার কয়েন উদ্ধার করা হয়। এ ঘটনায় তার বিরুদ্ধে ডিএমপির কাফরুল থানায় একটি মামলা হয়েছে। তিনি জানান, মাদারীপুরের জনপ্রতিনিধি। অথচ তিনি চুরি করেন। তাও আবার ঢাকায় এসে। চুরির জন্য তিনি কিশোর গ্যাং নিয়ে চোরের দল গঠন করেন। তাদের নিয়ে রাতের আঁধারে বিভিন্ন বাসাবাড়ি ও দোকানে চুরি করেন তিনি। চোরের  হোতা জনপ্রতিনিধি গ্রেফতারের পরই বেরিয়ে আসে চাঞ্চল্যকর কাহিনী।
ঢাকায় ৫০০ জায়গায় চুরির হোতা মেম্বার আজিজুল ॥ এ কে এম হাফিজ আক্তার জানান, চোর চক্রের হোতা গ্রেফতারকৃত  মোঃ আজিজুল হক ফকির মাদারীপুরের শিরখাড়া ইউনিয়নের ৯ নম্বর ওয়ার্ডের বর্তমান ইউপি সদস্য (মেম্বার)। অথচ তিনি চুরি করেন। তাও আবার ঢাকায় এসে। চুরির জন্য কিশোরদের নিয়ে একটি দলও গঠন করেন। তাদের নিয়ে রাতের আঁধারে বিভিন্ন বাসাবাড়ি ও দোকানে চুরি করেন তিনি। ২০১৬ সাল থেকে এখন পর্যন্ত আজিজুল হক রাজধানীতে ৫০০টি চুরির ঘটনা ঘটিয়েছেন। সবশেষ মঙ্গলবার চুরির বিভিন্ন যন্ত্রসহ কাফরুলের সেনপাড়া থেকে তাকে গ্রেফতার করে থানা পুলিশ । গ্রেফতারের ঠিক আগে  বেনারসিপল্লীতে একটি শাড়ির দোকানে চুরি করেন আজিজুল হক। তিনি বলেন, গোয়েন্দা তথ্যের ভিত্তিতে পুলিশ জানতে পারে যে, একদল লোক গাড়ি নিয়ে মিরপুরের বিভিন্ন এলাকায় চুরি করছে। এরপর কাফরুল থানা এলাকায় মঙ্গলবার রাতে চেকপোস্ট বসায় পুলিশ। অভিযানের একপর্যায়ে সেনপাড়া পর্বতা ঈদগাহ মাঠ এলাকা থেকে তাকে প্রাইভেটকারসহ গ্রেফতার করা হয়।
প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদের গ্রেফতারকৃত ইউপি সদস্য আজিজুলের বরাতে অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার হাফিজ আক্তার বলেন, এই ইউপি সদস্যের নেতৃত্বে চার সদস্যের কিশোর একটি চোর চক্র রয়েছে। তারা প্রাইভেটকার নিয়ে সারা ঢাকা শহরে ঘুরে বেড়ায়। তারা নম্বর প্লেট পরিবর্তন করে প্রায়ই চুরি করে। গ্রিল কাটা যন্ত্রাংশ তাদের সঙ্গেই থাকে। ছোটখাটো যা পায় টার্গেট করে দ্রুত গ্রিল কেটে বা দরজা ভেঙ্গে চুরি করে।
চুরির টাকা দিয়ে স্ত্রীর জন্য কেনাকাটা ॥ এক রাতে চারটি চুরির ঘটনার পর চোর চক্র স্ত্রীদের জন্য কেনাকাটাও করে উল্লেখ করে হাফিজ আক্তার বলেন, তারা চুরি শেষে  বেনারসি পল্লীতে মিলিত হয়। সেখানে চোরচক্র তাদের স্ত্রীদের জন্য লেহেঙ্গা কেনে। যদি পছন্দ না হয়! সেজন্য তারা শাড়িও কিনে। আবার বলেও যায়, যদি পছন্দ না হয় তাহলে এসে পরিবর্তন করে নিয়ে যাবে। কতটা কনফিডেন্টলি তারা চলছিল।
চুরির ঘটনা কমাতে স্পেশাল ড্রাইভ ॥ ছোট হোক বড় হোক চুরির ঘটনা কমাতে হবে উল্লেখ করে হাফিজ আক্তার বলেন,  চোর ও ছিনতাইয়ের ওপর স্পেশাল ড্রাইভ দেয়া হচ্ছে। সবগুলো ডিভিশন ও ডিবি ড্রাইভ দিচ্ছে। কারণ এ ধরনের উপদ্রবে বিরক্ত সাধারণ মানুষ। আমরা আশ্বস্ত করব এসব ঘটনা কমবে। ইতোমধ্যে আজিজুল হাকিম গ্রেফতার হয়েছে। তার বাকি সহযোগীদের গ্রেফতার করা হবে।

monarchmart
monarchmart