২৩ নভেম্বর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই মাত্র  
Login   Register        
ADS

‘ড্র করা কিংবা কম গোল খাওয়াটাই হবে কৃতিত্বের’


‘ড্র করা কিংবা কম গোল খাওয়াটাই হবে কৃতিত্বের’

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ ‘অস্ট্রেলিয়া দলে ইনজুরি বা বকেয়া বেতন নিয়ে ফুটবলার-ফেডারেশন যতই দ্বন্দ্ব বা সমস্যা থাকুক, সেটা বাংলাদেশের সঙ্গে খেলায় সেটা কোন প্রভাব ফেলবে না বলেই মনে করি। যারা এর উল্টোটা ভাবছেন, তারা ভুল ধারণা পোষণ করছেন। কেননা অস্ট্রেলিয়া হচ্ছে চারবার বিশ্বকাপ খেলা দল, এশিয়ার এক নম্বর দল। সর্বোপরি তারা হচ্ছে চরম পেশাদার একটি দল। গত ২৫ মার্চ কাইজারসøদার্নে অনুষ্ঠিত একটি ফিফা প্রীতি ম্যাচে অস্ট্রেলিয়া ২-২ গোলে ড্র করে রুখে দিয়েছে ২০১৪ ফিফা বিশ্বকাপ চ্যাম্পিয়ন জার্মানিকে। এখন তাদের দলে যেগুলোকে সমস্যা বলে ধরা হচ্ছে, আমি মনে করি, সেগুলো তেমন কিছু না। মাঠে তারা সম্পূর্ণ অন্যরকম। কাজেই তাদের এসব সমস্যা থেকে বাংলাদেশ যে বাড়তি কোন সুবিধা আদায় করে নেবে, এমনটা ভাবার কোন কারণ নেই।’

কথাগুলো যার, তিনি বিপ্লব ভট্টাচার্য্য। ১৯৯৭-২০১৩ সাল পর্যন্ত বাংলাদেশ জাতীয় ফুটবল দলের গোলরক্ষক হিসেবে খেলেছেন। ১৯৯৯ সালে নেপালে সাফ ফুটবলে বিপ্লবের দুর্দান্ত পারফর্মেন্সে ফুটবলে প্রথমবারের মতো চ্যাম্পিয়ন হয়েছিল বাংলাদেশ।

২০১৮ রাশিয়া বিশ্বকাপ ফুটবলের বাছাইপর্বের ম্যাচ খেলতে বর্তমানে অস্ট্রেলিয়া অবস্থান করছে বাংলাদেশ জাতীয় ফুটবল দল। বৃহস্পতিবার বাছাইপর্বের দ্বিতীয় পর্বের ‘বি’ গ্রুপের ম্যাচে স্বাগতিক অস্ট্রেলিয়ার মুখোমুখি হবে অতিথি বাংলাদেশ। পার্থের পার্থ ওভাল স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত হবে ম্যাচ। এই গ্রুপে অন্যতম শক্তিশালী দল অস্ট্রেলিয়া। তবে ‘বেঙ্গল টাইগার্স’দের মুখোমুখি হওয়ার আগে ‘সকারুস’ শিবিরে দেখা দিয়েছে নানা ধরনের জটিলতা ও সঙ্কট। দলের গুরুত্বপূর্ণ চার খেলোয়াড়দের চোটের কারণে এমনিতেই দুশ্চিন্তায় অসি শিবির। যদিও মুখে তারা বিষয়টি স্বীকার করছে না। তার ওপর নতুন সমস্যা হচ্ছেÑ বেতন নিয়ে খেলোয়াড়দের সঙ্গে ফুটবল ফেডারেশন অস্ট্রেলিয়ার (এফএফএ) পুরনো দ্বন্দ্ব আবারও মাথাচড়া দিয়ে ওঠা। খেলোয়াড়দের সঙ্গে ফেডারেশনের দ্বন্দ্বের কারণে পৃষ্ঠপোষকদের সঙ্গে সব ধরনের আনুষ্ঠানিকতা বয়কট করছেন অস্ট্রেলিয়ার ফুটবলাররা। এই প্রেক্ষাপটেই বিপ্লবের উপরোক্ত মন্তব্য।

আজ সকারুসদের সঙ্গে কেমন খেলা উচিত বাংলাদেশের? বিপ্লবের অভিমত, ‘প্রত্যাশা থাকবে অন্তত ড্র করার কিংবা হারলেও ইতিবাচক খেলে কম গোল খাওয়া। ম্যাচে হার-জিত থাকবেই। আমি চাই বাংলাদেশ যেন অবশ্যই ভাল ফুটবল খেলে।’ আপনি যদি বাংলাদেশ দলের কোচ হতেন, তাহলে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে ম্যাচে কিভাবে খেলাতেন বাংলাদেশকে? বিপ্লবের কূটনৈতিক জবাব, ‘আমি এখনও ঘরোয়া পর্যায়ে খেলছি। যখন খেলা ছাড়ব, তখন কোচের মতো করে ভাবতে পারব। ক্রুইফ কোচ হিসেবে দলের সঙ্গে প্রায় দুই বছর ধরে আছেন। তিনি দলটাকে ভাল চেনেন-জানেন। কাজেই তিনিই ভাল বুঝবেন দলকে কিভাবে খেলাবেন। আমরা শুধু কোচের কাছে প্রত্যাশা করতে পারি ভাল ফলের জন্য।’

অস্ট্রেলিয়া যাওয়ার আগে মালয়েশিয়ায় গিয়ে গত ২৯ আগস্ট মালয়েশিয়া জাতীয় দলের সঙ্গে একটি ফিফা প্রীতি ম্যাচে রক্ষণাত্মক খেলে গোলশূন্য ড্র করে বাংলাদেশ। এ প্রসঙ্গে বিপ্লবের ভাষ্য, ‘অস্ট্রেলিয়ার মতো শক্তিশালী দলের সঙ্গে রক্ষণাত্মক ধরনের খেলার মহড়াই হয় তো বাংলাদেশ দিয়েছে মালয়েশিয়ার সঙ্গে।’ ওই ম্যাচে দুর্দান্ত কিছু সেভ করে বাংলাদেশকে হারের হাত থেকে রক্ষা করেন গোলরক্ষক শহীদুল আলম সোহেল। সোহেল প্রসঙ্গে বিপ্লব বলেন, ‘সোহেল যেভাবে খেলে নিজেকে প্রমাণ করেছে, তাতে মনে হচ্ছে এই মুহূর্তে ওই অন্যদের চেয়ে বেটার।’