ঢাকা, বাংলাদেশ   মঙ্গলবার ২৮ মে ২০২৪, ১৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১

ঈদে নিজেকে সাজাতে কেমন আকারের ভ্রু প্লাক করবেন

অনলাইন ডেস্ক

প্রকাশিত: ২২:২১, ৮ এপ্রিল ২০২৪; আপডেট: ১২:৩১, ৯ এপ্রিল ২০২৪

ঈদে নিজেকে সাজাতে কেমন আকারের ভ্রু প্লাক করবেন

ভ্রু প্লাক

নিজেকে পরিপাটি করে তুলতে ঈদের আগেই পার্লারে গিয়ে ভ্রু প্লাক করে থাকে মেয়েরা, তবে সঠিক নিয়ম জেনে ভ্রু প্লাক করলে মুখের তীক্ষ্ণতা বেড়ে যায় বহুগুন। আর রুপে যোগ হয় নতুন চমক। কার মুখে কেমন আকারের ভ্রু মানাবে, তা দক্ষ কোনও রূপসজ্জাকর্মী ছাড়া কেউ বলতে পারেন না। কী দেখে ভ্রুর আকার ঠিক করেন তাঁরা? পৃথিবীর যে প্রান্তেই ঘুরতে যান না কেন, নির্দিষ্ট পার্লার কর্মীকে ছাড়া অন্য কারও কাছে ভ্রু প্লাক করেন না, এমন নারীর সংখ্যা অনেক।

কারণ, তাঁর মুখের সঙ্গে মানিয়ে ভ্রুর আকার কেমন হওয়া উচিত, তা একমাত্র সেই দক্ষ কর্মীই নাকি বুঝতে পারেন। সৌন্দর্য বাড়িয়ে তুলতে চাইলে, জন্মগত মুখের আকার তো পাল্টে ফেলা সম্ভব নয়। তবে হাতের কারুকাজ দিয়ে মুখের ধার খানিক বাড়িয়ে তোলা যায়। ভ্রুর আকার কেমন হবে, তা সাধারণত ঠিক করা হয় মুখের আকার দেখে।

মুখের তীক্ষ্ণতা বাড়িয়ে তুলতে কেমন হবে ভ্রু ? মুখের আকার অনুযায়ী কেমন ভ্রুর আকার বেছে নেওয়া উচিত?

১) ডিম্বাকৃতি মুখ এই ধরনের মুখে তীক্ষ্ণতা আনতে গেলে কপাল, গাল, নাক এবং চোখের সঙ্গে ভারসাম্য রেখে ভ্রু তুলতে হয়। যেহেতু ডিম্বাকৃতি মুখে, কপালের গঠন কিছুটা চওড়া। তাই ভুরুতে এমন আকার দিতে হবে যাতে মুখ গোল না লাগে।

২) ছ’কোণা মুখ এই ধরনের মুখে হেয়ারলাইন, চোয়াল, গালের হাড়— এমনিতেই খুব তীক্ষ্ণ হয়। তাই আলাদা করে আর ভ্রুতে কোনও কারুকাজ করার প্রয়োজন পড়ে না। ভ্রুর আকার সামান্য গোলাকার হলেও ক্ষতি নেই।

৩) গোলাকার মুখ গোালাকার মুখে কিন্তু খুব একটা তীক্ষ্মতা থাকে না। তাই এ ক্ষেত্রে ভ্রুর আকার ভীষণই গুরুত্বপূর্ণ। গোলাকার মুখে ভ্রু তাই ‘আর্চ’ আকারে তুলতে পারলেই ভাল।

৪) চৌকো মুখ চৌকোণার মতো চৌকো মুখেও চোয়ালের হাড়ের গঠন বেশ চওড়া। কপালের আকার বেশ উন্নত। তাই এই ধরনের মুখেও ভ্রুর আকার সামান্য গোলকার হলে দেখেতে খারাপ লাগে না।

৫) পানপাতার মতো মুখ এই আকারের মুখে কপাল চওড়া হয়। কিন্তু গাল থেকে থুতনি ক্রমশ সরু। কারও ক্ষেত্রে গালের হাড় চওড়া হতে পারে। এই ধরনের মুখেও ভ্রু ‘আর্চ’হলে ভাল মানায়।

এস

×