ঢাকা, বাংলাদেশ   শুক্রবার ১৪ জুন ২০২৪, ৩০ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১

চাকরির পরীক্ষা হতে হবে পরিশ্রমী ও কৌশলী

চাকরি বাজার ডেস্ক

প্রকাশিত: ০১:৫৯, ১৯ মে ২০২৩

চাকরির পরীক্ষা হতে হবে পরিশ্রমী ও কৌশলী

চাকরির প্রতিযোগিতায় টিকে থাকতে হলে বদলাতে হবে নিজেকে

চাকরির প্রতিযোগিতায় টিকে থাকতে হলে বদলাতে হবে নিজেকে। সঠিক সময়ে সঠিক সিদ্ধান্ত নিতে হবে। তা হলেই আসবে সাফল্য। এখনকার সময়গুলোতে পরীক্ষা হচ্ছে ফ্যাকাল্টি বেইজড। তাই গতানুগতিক ধারায় পড়তে থাকলে যে কোনো পরীক্ষার প্রিলিমিনারিতে পাস করাই অসম্ভব হয়ে পড়বে। তাই শিক্ষার্থীদের পড়াশোনার পাশাপাশি ফ্যাকাল্টি বেইজড প্রশ্নও পড়তে হবে। যেমন আইবিএ, বুয়েট, আর্টস ফ্যাকাল্টির বিগত সালের প্রশ্নগুলো ভালো করে আগে পড়ে নিতে হবে একটা ধারণার জন্য। এরপর গতানুগতিক ধারায় পড়া চালিয়ে যেতে হবে। আর পড়তে হবে মূল বই। এর সঙ্গে বিষয় ও ধারণাগুলো পরিষ্কার থাকাটাও জরুরি।
অনেকেই চাকরির জন্য শর্টকাট পড়তে গিয়ে ছোট একটা চাকরি পেতেই দীর্ঘ সময় কাটিয়ে ফেলেন। এতে হতাশা বেড়ে যায়। প্রথমে সামর্থ্য অনুযায়ী লক্ষ্য নির্ধারণ করে সেই অনুযায়ী পড়া চালিয়ে যেতে হবে। প্রতিযোগিতামূলক পরীক্ষার জন্য প্রস্তুতি নিতে হবে প্রতিনিয়ত। কিছুদিন সময় দিয়ে মূল বই ও বেসিক বই আগে পড়ে ফেলতে হবে। এরপর বাজারের গতানুগতিক বই পড়া শুরু করাটাই ভালো। সাধারণত বিসিএস বাদে অন্যান্য পরীক্ষাগুলোয় যে ধরনের প্রশ্ন আসেÑ
১. সেকশন এ : বাংলা ১৫-১৮টি প্রশ্ন
২. সেকশন বি : ইংরেজি ১৫-১৬টি প্রশ্ন
৩. সেকশন সি : গণিত ২০-২২টি প্রশ্ন
৪. সেকশন ডি : সাধারণ জ্ঞান ২০-২২টি ও কম্পিউটার ৮-১০টি প্রশ্ন আসে।
প্রতিযোগিতামূলক পরীক্ষার জন্য বাংলা, ইংরেজি, গণিত, সাধারণ জ্ঞানের পাশাপাশি কম্পিউটারের ওপরও বেশি জোর দিতে হবে। সঠিক দিকনির্দেশনা, পরিশ্রম ও বেসিক ক্লিয়ার না থাকলে প্রিলিমিনারিতে পাস করা সম্ভব নয়। অনেকটাই জটিল হয়ে যাবে, যেমনটা হয়েছিল ৪০তম বিসিএসে। প্রিলিমিনারি মানে শুধু মুখস্থ বিদ্যা নয়, কিছু টেকনিকও অবলম্বন করতে হবে। তা হলেই এ যাত্রায় পার পাওয়া যাবে। যেটুকু দরকার, সেটুকু গুছিয়ে ভালো করে পড়ুন। তবে হ্যাঁ, কোন বই কীভাবে পড়বেন, সেটা একটা বড় বিষয়।

তাই সঠিক তথ্যের বই একটা গুরুত্বপূর্ণ বিষয়। যার ওপর নির্ভর করে পরীক্ষার কক্ষে যাওয়া উচিত শিক্ষার্থীদের। ব্যাংক, বিসিএস, অন্যান্য সরকারি চাকরি শিক্ষার্থীদের জন্য একটা ক্ষেত্র। সময়টাকে কাজে লাগানো শুরু করতে হবে এখনই। মনে রাখতে হবে, শর্টকাটে বিসিএস প্রিলিমিনারি পার করা যাবে না, তবে শর্ট টেকনিক অবলম্বন করা যেতে পারে। বেশি বই পড়ার চেয়ে ভালো মানের অল্প বই বারবার পড়ে মেমোরাইজ জোন তৈরি করতে হবে।
কীভাবে পড়তে হবে
কীভাবে পড়াশোনা চালিয়ে যেতে হবে! বাংলা, ইংরেজি, গণিত, সাধারণ জ্ঞানের পাশাপাশি কম্পিউটারের ওপর জোর দিতে হবে বেশি। মুখস্থ নয়, বুঝে পড়তে হবে। দ্রুত অধ্যায় শেষ করার চিন্তা না করে সময় দিয়ে মনে রাখার চেষ্টা করতে হবে। প্রতিটি বিষয়কে আলাদা সময়ের স্লটে ভাগ করে নিতে হবে। নিজের সময়, সুযোগ ও সাধ্যমতো একটা প্ল্যান করে পড়তে হবে। আর কেউ যদি চাকরির পাশাপাশি প্রস্তুতি নিতে চান। পুরো অবসর সময় সম্পূর্ণ কাজে লাগাতে হবে। পড়তে থাকলে এক সময় অন্যদের সঙ্গে সামঞ্জস্য হয়ে যাবে। বেসিক ক্লিয়ার করে বই পড়লে, জয় হবেই। বেশি বই পড়ে মনে না রাখার চেয়ে, ভালো মানের অল্প বই বারবার পড়লে মনে থাকবে বেশি। মনে রাখতে হবে, একটি ভালো বই ও পরিশ্রম বদলে দিতে পারে সম্ভাবনার দুয়ার। তাই নিজের প্রতি আত্মবিশ্বাস রেখে শুরু করতে হবে। সাফল্য আপনার কাছে ধরা দিতে বাধ্য।
চাকরি বাজার ডেস্ক 

×