ঢাকা, বাংলাদেশ   শুক্রবার ১৪ জুন ২০২৪, ৩০ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১

সংস্কৃতি সংবাদ

আবেগহীন জীবনের গল্পময় নাটক ‘কহে ফেসবুক’

সংস্কৃতি প্রতিবেদক

প্রকাশিত: ২৩:৫৯, ১৮ সেপ্টেম্বর ২০২৩

আবেগহীন জীবনের গল্পময় নাটক ‘কহে ফেসবুক’

শিল্পকলায় মঞ্চস্থ ‘কহে ফেসবুক’ নাটকের দৃশ্য

ভার্চুয়াল দুনিয়ায় ক্রমশ কাছের মানুষ যেন দূরে সরে যাচ্ছে। আপনজনের পরিবর্তে অদেখা ব্যক্তির প্রতি তৈরি হচ্ছে কৃত্রিম আকর্ষণ। পরিবার থেকে বন্ধুদের আড্ডাÑ সর্বত্রই এমন অবস্থা বিরাজ করছে। উদাহরণ হিসেবে তিন বন্ধুর এক আড্ডার কথা বলা যায়। এক টেবিলে বসেও তাদের কারো মুখে কোনো কথা নেই। আলাপচারিতার কোনো বালাই নেই। পরস্পরের সঙ্গে হচ্ছে না ভাব বিনিময়। প্রত্যেকেই ব্যস্ত মুঠোফোন নিয়ে। কাছের মানুষকে ছাপিয়ে তাদের পুরো মনোযোগ ফেসবুক, টুইটারসহ নানা সোশ্যাল মিডিয়ায়।

একইরকম দৃশ্যের দেখা মিলছে পরিবার কিংবা ঘরে ঘরে। আপনজনের সঙ্গে সম্পর্কের নৈকট্য ঘুচে গিয়ে ভাব জমছে দূরের মানুষের সঙ্গে। অন্তর্জালের মোহময় সেই জগতে হারিয়ে যাচ্ছে আবেগ-অনুভূতি। আর প্রযুক্তির এই আগ্রাসনের দৃশ্যকল্প মেলে ধরা নাটক ‘কহে ফেসবুক’। আরণ্যক নাট্যদলের ৬২তম প্রযোজনাটি সোমবার সন্ধ্যায় মঞ্চস্থ হয় শিল্পকলা একাডেমির জাতীয় নাট্যশালা মিলনায়তনে। রচনার পাশাপাশি নাটকের নির্দেশনা দিয়েছেন মামুনুর রশীদ।
প্রযোজনাটি প্রসঙ্গে নাট্যকার ও নির্দেশক মামুনুর রশীদ বলেন, ছোটবেলায় স্কুলে পড়ার সময় একটা কথা শুনেছিলাম, বিজ্ঞান দিয়েছে বেগ, কেড়ে নিয়েছে আবেগ। ওই সময় গ্রামীণ জীবনে বিজ্ঞানের কোনো সুফল পৌঁছায়নি। কিন্তু পরবর্তীতে প্রযুক্তির বিকাশ ঘটাল। একে একে দেশে প্রবেশ করল টেলিভিশন, মুঠোফোন, ফেসবুক, টুইটারসহ আরও কত কী! এর মধ্যে বিপুল জনপ্রিয়তা পেল ফেসবুক। স্মার্টফোনে জায়গা নেওয়া ফেসবুক জীবনের গতিকে বাড়িয়ে দিল বিপুলভাবে। এই গতি সারা পৃথিবীকে ছুড়ে দিল ভয়ংকর সব সমস্যার মধ্যে। পৃথিবী হয়ে উঠল স্পর্শহীন। মানুষের আদিম আকাক্সক্ষা স্পর্শ বা ছোঁয়া। সেই স্পর্শের জন্য মানুষ তাই আর্তনাদ করে ওঠে। সেই সন্ধিক্ষণে দাঁড়িয়ে একটা ছোট্ট প্রচেষ্টা ‘কহে ফেসবুক।’
দুনিয়াজুড়ে এখন প্রযুক্তির জয়-জয়কার। শয়ন কক্ষ, ড্রইং রুম থেকে কবরস্থানÑ সব জায়গার দখল নিয়েছে ইন্টারনেট। ইন্টারনেট মানুষকে দিয়েছে ভিন্ন মাত্রার গতিবেগ, কেড়ে নিয়েছে আবেগ। অন্তর্জালীয় এই যোগাযোগ ব্যবস্থার অথৈ সমুদ্রে সবচেয়ে জনপ্রিয় মাধ্যম ফেসবুক। তুমুল জনপ্রিয় এই সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমকে কেন্দ্র করে এগিয়েছে নাটকের ঘটনাকাহিনী। সেই কাহিনীতে দৃশ্যমান জগতের অন্তরালে ফেসবুক তৈরি করে এক অদৃশ্য জগৎ, যা ভার্চুয়াল ওয়ার্ল্ড নামে পরিচিত। এর ব্যাপ্তি এবং ঘাত এতটাই তীব্র যে পরিবার, সমাজ সর্বোপরি মানবিক জীবন থেকে আবেগ-অনুভূতি ও ভালোবাসা বিলুপ্ত করে মানুষকে পরিণত করে জৈবিক রোবটে। ইন্টারনেট এবং সোশ্যাল মিডিয়ানির্ভর করপোরেট জগতের প্রতিটি মানুষ ও তাদের যাপিত জীবন তার চাক্ষুস উদাহরণ। অতি সহজে ও স্বল্প সময়ে সেখানে সবকিছু মিললেও একটি জিনিসের বড্ড অভাব- সেটি হলো ‘স্পর্শ’। তেমনই এক স্পর্শহীন ও আবেগবিবর্জিত জীবনের গল্প কহে ফেসবুক। 
প্রযোজনাটির বিভিন্ন চরিত্রে রূপ দিয়েছেন অভিনয় করেছেন কামরুল হাসান, রুবলী চৌধুরী, আরিফ হোসেন, জোবায়ের জাহিদ, সুরভী রায় প্রমুখ।

×