শনিবার ১৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯, ২৮ মে ২০২২ ঢাকা, বাংলাদেশ
প্রচ্ছদ
অনলাইন
আজকের পত্রিকা
সর্বশেষ

বগুড়ায় পুলিশের নির্যাতনের প্রতিবাদ করায় অসহায় পরিবারকে মামলা দিয়ে হেনস্তা

বগুড়ায় পুলিশের নির্যাতনের প্রতিবাদ করায় অসহায় পরিবারকে মামলা দিয়ে হেনস্তা

স্টাফ রিপোর্টার, বগুড়া অফিস॥ বগুড়ার দুপচাঁচিয়া উপজেলায় এক ব্যক্তি পুলিশী নির্যাতনের প্রতিবাদ করায় ওই ব্যক্তিসহ তার পরিবারকে মামলা দিয়ে নানাভাবে হয়রানী করার অভিযোগ পাওয়া গেছে। এমনকি ওই পরিবারের ৪ ভাইয়ের বিরুদ্ধে ভাংচুর ,নারী নির্যাতন ও ধর্ষন মামলা দেয়া হয়েছে। দুপচাঁচিয়া থানার ওসি এবং এক এসআই আই’র বিরুদ্ধে থানায় ডেকে এনে নির্যাতানের পর অর্থ আদায়ের প্রতিবাদ করায় পরিবারটি হেনস্তার শিকার হচ্ছে বলে অভিযোগ। সংবাদ সন্মেলনের মাধ্যমে এই অভিযোগ জানিয়েছেন, দুপচাঁচিয়া উপজেলার চকসুখানগাড়ি এলাকার মটরসাইকেল মেকার দরিদ্র নুরে আলমের পরিবার। নুরে আলম পুলিশের নির্যাতনের প্রতিবাদ করেছিলেন। তিনি এখন কারাগারে রয়েছেন বলে পরিবারের পক্ষ থেকে জানান হয়। তার স্ত্রী রাজিয়া সুলতানা সোমবার সাংবাদিকদের নিকট নির্যাতনের ঘটনা তুলে পুরো পরিবারের অসহায়ত্ব বর্ণনা করেন। তবে দুপচাঁচিয়া থানার ওসি জানিয়েছেন, তাদের বিরুদ্ধে আনা অভিযোগ মিথ্যা বানোয়াট ও ভিত্তিহীন। মহল বিশেষের স্বার্থের ব্যাঘাত ঘটায় এ ধরনের অভিযোগ করা হচ্ছে।

নির্যাতনের শিকার নুরে আলমের পরিবারের পক্ষ থেকে তার স্ত্রী জানান, তারা অসহায় দরিদ্র। তার স্বামী মটরসাইকেলে মেরামতের কাজ করেন। তার দেবর একজন অটোরিক্সা চালক। গত ২৯ আগস্ট নুরে আলমকে থানার এক এস আই থানায় ডেকে নিয়ে যান। সেখানে তাকে ‘মিথ্যা মামলার হুমকি’ দিয়ে ৫০ হাজার টাকা চাওয়া হয়। এসময় তাকে নির্যাতন করা হয়। পরে পরিবারের পক্ষ থেকে ৫০ হাজার টাকা দিয়ে থানা থেকে ছাড়িয়ে আনা হয়।

এর কয়েক দিন পরে নুরে আলম পুলিশের উর্দ্ধতন কর্মকর্তাদের নিকট এর বিচার চেয়ে লিখিত অভিযোগ করেন। এর পরেই তারা হেনস্তার শিকার হন। নুরে আলমের পরিবারের পক্ষ থেকে অভিযোগ করা হয়, এঘটনার পর অভিযোগ তুলে নেয়ার জন্য ওসির পক্ষ থেকে নানা চাপ ও হুমকি দেয়া হয়। পরবর্তীতে ১৬ অক্টোবর দুপচাঁিচয়ার মিনি ট্রাক অফিস ভাংচুর ও অগ্নিসংযোগ ঘটনায় দায়েরকৃত মামলায় নুরে আলমসহ তার ৪ ভাইকে অভিযুক্ত করা হয়।

এর পর ১৯ অক্টোবর আদালতে এই ৪ জনসহ নুরে আলমের চাচা বেলাল হোসেনের বিরুদ্ধে দায়ের হয় ধর্ষন ও নারী নির্যাতন মামলা। নির্যাতিত পরিবারের অভিযোগ পুলিশের বিরুদ্ধে অভিযোগ করার কারণেই তাদের বিরুদ্ধে থানার ওসির প্রভাবে মামলা ও হয়রানী করা হচ্ছে। এতে এক বালু ব্যবসায়ীকে ব্যবহার করা হয়েছে বলে তারা অভিযোগ করেন। নুরে আলমের স্ত্রী তাদের হেনস্তাকারী ও তার স্বামীকে নির্যাতনকারীদের বিচার দাবি করে ন্যায় বিচার কামনা করেন। পরিবারের অন্য সদস্যরাও একই দাবি জানিয়েছেন।

অভিযোগের বিষয়ে দুপাচাঁচিয়া থানার ওসি জানান. তার বিরুদ্ধে আনা সব অভিযোগ মিথ্যা ও ভিত্তিহীন। অভিযুক্ত নুরে আলম একটি গ্যাং এর সদস্য। তবে তার বিরুদ্ধে ইতোপুর্বে আর কোন মামলার বিষয় তার জানা নেই বলে জানান।

শীর্ষ সংবাদ:
আস্থা অর্জনই চ্যালেঞ্জ ॥ ইভিএম নিয়ে ব্যাপক পরীক্ষা-নিরীক্ষা ইসির         অগ্রাধিকার সুবিধা অব্যাহত রাখতে সহযোগিতা চাই         মাদক কারবারিদের চিহ্নিত করে ধরিয়ে দিন ॥ স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী         টিকে থাকার ক্ষমতা হারাচ্ছে গাছ উপড়ে পড়ছে সামান্য ঝড়ে         প্রার্থীদের প্রতীক বরাদ্দ ॥ প্রচার শুরু         জনবল সঙ্কটে খুঁড়িয়ে চলছে নাটোর সদর হাসপাতাল         সন্তান জন্ম দিতে গিয়ে এখনও মারা যাচ্ছেন অনেক মা         ঢাকার ২ শতাধিক স্পটে হঠাৎ বেপরোয়া ছিনতাইকারী চক্র         জমে উঠেছে কেনাবেচা ভাল দাম পেয়ে কৃষকের মুখে হাসি         রোহিঙ্গাদের ফেরাতে এশিয়ার দেশগুলোর সহযোগিতা চেয়েছেন প্রধানমন্ত্রী         তারেক জিয়াকে দেশে ফেরাতে আলোচনা চলছে : তথ্যমন্ত্রী         আমাদের নিজস্ব পলিসি আছে এবং পলিসি অনুযায়ী দেশ চলে : এলজিআরডি মন্ত্রী         বিশ্বমানের ক্যানসার চিকিৎসা মিলবে গণস্বাস্থ্যে         নিষেধাজ্ঞা সরিয়ে বাংলাদেশে গম পাঠাবে ভারত         ভারত ও বাংলাদেশ দুই আদালতে পিকে হালদারের বিচার হবে ॥ দুদক কমিশনার         সীমান্তে মাদক ও মানবপাচার রোধে কাজ করছে বিজিবি ॥ স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী         বিদেশে প্রশিক্ষণে গিয়ে পুলিশের ২ সদস্য লাপাত্তা         পি কে হালদারসহ ৫ জন ফের ১১ দিনের জেল হেফাজতে         করোনা : দেশে আজও মৃত্যু নেই, শনাক্ত ২৩         খাদ্য সংকট দূর করতে পুতিনের প্রস্তাব