ঢাকা, বাংলাদেশ   সোমবার ০৩ অক্টোবর ২০২২, ১৮ আশ্বিন ১৪২৯

মা ইলিশ শিকার, মারমুখী হয়ে উঠেছে জেলেরা

প্রকাশিত: ১৪:১৯, ২৯ অক্টোবর ২০২০

মা ইলিশ শিকার, মারমুখী হয়ে উঠেছে জেলেরা

স্টাফ রিপোর্টার, বরিশাল ॥ ইলিশ রক্ষায় অভিযান পরিচালনা ও টহল দিতে গিয়ে স্থানীয় কতিপয় প্রভাবশালীর মদদে একের পর এক জেলেদের হামলার শিকার হচ্ছেন পুলিশসহ সংশ্লিষ্টরা। নদীতে মারমুখী হয়ে ওঠা ওইসব জেলেদের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের, গ্রেফতার ও ভ্রাম্যমান আদালতে শাস্তি দিয়েও হামলার হাত থেকে রেহাই পাচ্ছেন না প্রশাসন। সূত্রমতে, ইলিশের উৎপাদন বাড়াতে ডিম ছাড়া ও প্রধান প্রজনন মৌসুমে মা ইলিশ সংরক্ষণে আহরণ, বিপণন, পরিবহন, ক্রয়-বিক্রয়, বিনিময় ও মজুদ করতে টানা ২২ দিন (১৪ অক্টোবর থেকে ৪ নবেম্বর) পর্যন্ত নিষেধাজ্ঞা জারি করছে সরকার। এমন নির্দেশনা বাস্তবায়নে মাঠপর্যায়ে প্রশাসন, মৎস্য অধিদফতর, কোস্টগার্ড, নৌবাহিনী ও নৌপুলিশসহ বিভিন্ন আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা কঠোর অবস্থানে থাকলেও জেলেরা যে যার মতো করে দেদারছে মা ইলিশ শিকার করে যাচ্ছে। অভিযোগ রয়েছে, নদীর তীরবর্তী কতিপয় প্রভাবশালী ব্যক্তির মদদে জেলেরা নদীতে মাছ ধরতে সাহস দেখাচ্ছেন। আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর অভিযান পরিচালনা ও টহল দিতে গেলেই ওইসব প্রভাবশালীর ভাড়াটিয়া লোকজনে জেলে সেজে অভিযানিক দলের ওপর হামলা চালাচ্ছে। সূত্রে আরও জানা গেছে, ইতোমধ্যে কয়েকশ’ জেলেকে আটক, লাখ লাখ টাকা জরিমানা, মামলা ও তাদের কয়েক লাখ মিটার অবৈধ কারেন্ট জাল জব্দ করলেও কোনভাবেই ইলিশ ধরা নিয়ন্ত্রণ করতে পারছেন না প্রশাসন। উল্টো ইলিশ রক্ষায় অভিযান পরিচালনা ও টহল দিতে গিয়ে জেলেদের পরিকল্পিত হামলার শিকার হচ্ছেন পুলিশসহ সংশ্লিষ্টরা। পুলিশ ও মাঠ প্রশাসন সূত্রে জানা গেছে, জেলার হিজলা ও সদর উপজেলায় মা ইলিশ রক্ষায় অভিযান পরিচালনা এবং টহল দিতে গিয়ে কথিত জেলেদের হামলায় চলতি মাসের ১৪ থেকে ২৭ অক্টোবর পর্যন্ত পাঁচ পুলিশ, একজন মৎস্য কর্মকর্তা ও একজন স্পিডবোট চালক আহত হয়েছেন।