শনিবার ২৭ আষাঢ় ১৪২৭, ১১ জুলাই ২০২০ ঢাকা, বাংলাদেশ
প্রচ্ছদ
অনলাইন
আজকের পত্রিকা
সর্বশেষ

যুক্তরাষ্ট্রের ২৫ শহরে কার্ফু

যুক্তরাষ্ট্রের ২৫ শহরে কার্ফু

জনকণ্ঠ ডেস্ক ॥ যুক্তরাষ্ট্রের মিনেসোটা অঙ্গরাজ্যের মিনিয়াপোলিস শহরে পুলিশ কর্মকর্তা ডেরেক শভিনের (৪৪) হাতে জর্জ ফ্লয়েড (৪৬) নামের এক কৃষ্ণাঙ্গ নিহতের ঘটনায় গর্জে উঠেছে পুরো দেশ। গত ২৫ মে জর্জ ফ্লয়েড নিহত হন। তার বিচারের দাবিতে চলমান বিক্ষোভ শনিবার রণক্ষেত্রে রূপ নেয়। মিনিয়াপোলিস থেকে শুরু হওয়া বিক্ষোভ অন্তত ১৬ অঙ্গরাজ্যেও ৩০ শহরে ছড়িয়ে পড়েছে। এর মধ্যে সবচেয়ে বেশি সহিংস হয়ে ওঠায় ২৫ শহরে কার্ফু জারি করেছে ট্রাম্প প্রশাসন। এছাড়া ন্যাশনাল গার্ডকে নয় শহরের নিরাপত্তার দায়িত্ব দেয়া হয়েছে। খবর বিবিসি, এএফপি, সিএনএন, এবিসি নিউজ, রয়টার্স, এএফপি ও লস এ্যাঞ্জেলস টাইমসের।

মার্কিন পুলিশ বিক্ষোভকারীদের ওপর চলন্ত গাড়ি তুলে দেয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে। কোন কোন শহরে নিরস্ত্র বিক্ষোভকারীদের ছত্রভঙ্গ করতে গুলি চালানো হয়। গুলিতে একজন নিহত ও অন্তত তিন জন আহত হয়েছেন। কয়েকটি শহরের পুলিশ ও সরকারী ভবনে আগুন দিয়েছে বিক্ষোভকারীরা। যুক্তরাষ্ট্রের পশ্চিম উপকূলের লস এ্যাঞ্জেলসের পূর্ব উপকূলের মিয়ামি, উত্তরের শিকাগোসহ বিভিন্ন শহরের রাস্তায় নেমে আসা বিক্ষোভকারীরা ফ্লয়েডের শেষ বলা কথা ‘আমি শ্বাস নিতে পারছি না’ প্রতিধ্বনি তুলে স্লোগান দেয়। প্রথমে শান্তিপূর্ণভাবে শুরু হলেও বিক্ষোভকারীরা এক পর্যায়ে সড়ক অবরোধ ও অগ্নিসংযোগ করে, তারপর দাঙ্গা পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষে জড়ায়। কয়েকটি শহরে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে পুলিশ কাঁদানে গ্যাস ও রাবার বুলেট ব্যবহার করে। বেভারলি হিলস, লস এ্যাঞ্জেলস, ডেনভার, মিয়ামি, আটলান্টা, শিকাগো, মিনিয়াপোলিস, ফিলাডেলফিয়া, কলম্বাস, সল্ট লেক সিটি, সিয়াটল শহরের লোকজনকে ঘরের বাইরে বের না হওয়ার নির্দেশ দিয়েছে সেনাবাহিনী। লস এ্যাঞ্জেলসে স্থানীয় সময় শনিবার রাত ৮টা থেকে রবিবার ভোর সাড়ে ৫টা পর্যন্ত কার্ফু জারি করা হয়। এ সময় শহরটিতে থাকা সবাইকে ঘরে অবস্থান করতে বলা হয়েছে। গত সপ্তাহের সোমবার ফ্লয়েডের গাড়িতে জাল নোট থাকার খবর পেয়ে তাকে আটক করতে যায় পুলিশ। গণমাধ্যম ও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়া এক ভিডিওতে দেখা যায়, সেখানে পুলিশের এক কর্মকর্তা ফ্লয়েডের ঘাড়ের ওপর হাঁটু দিয়ে তাকে মাটিতে চেপে ধরেছেন। সেসময় ফ্লয়েডকে ‘আমি শ্বাস নিতে পারছি না’ বলতে শোনা যায়। এ্যাম্বুলেন্সে করে পরে হাসপাতালে নিয়ে গেলে সেখানকার চিকিৎসকরা তাকে মৃত ঘোষণা করেন। ফ্লয়েডের মৃত্যুর খবর ছড়িয়ে পড়ার পরপরই মিনেসোটা অঙ্গরাজ্যের প্রধান শহর মিনিয়াপোলিসে উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে। উত্তাল হয়ে ওঠা বিক্ষোভকারীদের সঙ্গে পুলিশের সঙ্গে দফায় দফায় সংঘর্ষ হয়। বিক্ষোভকারীরা কয়েকটি ভবন ও গাড়িতে অগ্নিসংযোগ করে। ফ্লয়েডের মৃত্যুর ঘটনায় মিনিয়াপোলিস পুলিশ বিভাগ তাদের চার কর্মকর্তাকে তাৎক্ষণিকভাবে বরখাস্ত করে। এদের মধ্যে ফ্লয়েডের ঘাড়ে হাঁটু তুলে দেয়া ডেরেকও রয়েছে। শনিবার বিক্ষোভকারীরা দ্বিতীয় দিনের মতো হোয়াইট হাউসের সামনে জড়ো হয়। এর উল্টো পাশে অবস্থিত লাফায়েত্তে পার্কের নিরাপত্তা বেষ্টনী ভাঙ্গার চেষ্টা করে তারা। বিক্ষোভকারীদের ওপর পিপার স্প্রে, টিয়ার গ্যাস ও রাবার বুলেট ছোড়ে পুলিশ। তাদের পিছু হটতে বাধ্য করার চেষ্টা করা হয়। বিক্ষুব্ধরাও পুলিশকে লক্ষ্য করে বোতলসহ বিভিন্ন বস্তু নিক্ষেপ করতে থাকে। সন্ধ্যার দিকে একটি ভাগাড়ে আগুন ধরিয়ে দেয় তারা। কমান্ডিং জেনারেল উইলিয়াম ওয়াকার এক বিবৃতিতে জানান, বিক্ষোভ দমাতে রাত ৯টার দিকে ইউএস পার্ক পুলিশের সহযোগিতা চাওয়ার জন্য ডিসি ন্যাশনাল গার্ডকে নির্দেশ দিয়েছেন সেনা সচিব রায়ান ম্যাককার্থি। এর আগে বিক্ষোভকারীদের কাউকে কাউকে সিক্রেট সার্ভিসের গাড়ির ওপরে এবং আইসেনহোয়ার এক্সিকিউটিভ অফিস ভবন সংলগ্ন নিরাপত্তা বুথে দাঁড়িয়ে থাকতে দেখা যায়। সন্ধ্যা ৬টা বাজার আগ মুহূর্তে পুলিশ তাদের রাস্তা থেকে সরে যাওয়ার হুঁশিয়ারি দিতে থাকে। তাদের ধাক্কা দিয়ে বের করে দেয়ারও চেষ্টা করে। সন্ধ্যা ৭টার দিকে বিক্ষোভকারীরা লাফায়েত্তে পার্কের বিপরীত পাশে অবস্থান নিয়ে সিক্রেট সার্ভিস ও পার্ক পুলিশের সদস্যদের লক্ষ্য করে গালি ও স্লোগান দিতে থাকে। পুলিশ সদস্যরা পার্কে স্থাপিত নিরাপত্তা বেষ্টনীর পেছনে সারিবদ্ধভাবে দাঁড়িয়ে থাকে। বেষ্টনীগুলোকে আরও শক্তভাবে আটকে রেখে বিক্ষোভকারীদের ওপর পিপার স্প্রে ছুড়তে থাকে তারা। পিপার স্প্রেতে ভারি হয়ে ওঠে হোয়াইট হাউসের বাতাস। মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প ফ্লয়েডের মৃত্যুর ঘটনাকে ‘ভয়ানক ব্যাপার’ বলে অ্যাখ্যা দিয়েছেন। নিহত আফ্রিকান-আমেরিকানের পরিবারের সঙ্গে কথা হয়েছে বলেও জানিয়েছেন তিনি। শুক্রবার গ্রেফতার হওয়া পুলিশ কর্মকর্তা শভিনের বিরুদ্ধে ফ্লয়েডকে হত্যার অভিযোগ আনা হয়েছে। সোমবার তাকে আদালতে হাজির করার কথা। তবে প্রতিবাদকারীরা এতে সন্তুষ্ট নয়। ফ্লয়েডের মৃত্যুর সময় ঘটনাস্থলে উপস্থিত চার পুলিশ কর্মকর্তার বিরুদ্ধেই অভিযোগ আনার দাবি তুলেছে তারা। যদিও ফ্লয়েডের পরিবার জানিয়েছে, প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প তাদের কথা শোনার প্রয়োজনই মনে করেননি। এমনকি তাদের কোন কথাও বলতে দেননি। তিনি বারবার তাদের কথা এড়িয়ে গেছেন।

ব্যাপক লুটপাট ॥ ফ্লয়েড হত্যাকাণ্ডের প্রতিবাদে বিক্ষোভ ক্রমেই লুটপাট আর সহিংসতায় রূপ নিচ্ছে। শনিবার রাতে বিক্ষোভের আড়ালে লস এ্যাঞ্জেলসে রীতিমতো তাণ্ডব চালিয়েছে দুষ্কৃতকারীরা। শহরের কয়েকটি মার্কেট ও সুপারশপের গেট ভেঙ্গে লুটপাট হয়েছে ব্যাপক, আগুন দেয়া হয়েছে পুলিশের কিয়স্কেও। স্থানীয় সংবাদমাধ্যম জানিয়েছে, শনিবার বেভারলি হিলস ও ফেয়ারফ্যাক্সে জড়ো হয়েছিলেন কয়েক হাজার বিক্ষোভকারী। বেলা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে সেখানে অরাজক পরিস্থিতি সৃষ্টি হয়। মেলরোজ এ্যাভিনিউয়ে একটি এটিএম বুথ ভেঙ্গে সেটি নিয়ে যেতে দেখা গেছে লুটেরাদের। অন্যরাও কয়েকটি দোকান ভাংচুর করেছে। স্থানীয় সময় সন্ধ্যা ৭টার দিকে শহরের গ্রুভ এলাকায় বিক্ষোভকারীদের সঙ্গে পুলিশের সংঘর্ষ বেধে যায়। এ সময় পুলিশ কয়েক রাউন্ড রাবার বুলেট নিক্ষেপ করে। সেখানে পুলিশের একটি কিয়স্কে আগুন ধরিয়ে দেয় বিক্ষোভকারীরা। লস এ্যাঞ্জেলস টাইমস জানিয়েছে, শনিবার রাতে গ্রুভ শপিংমলে ঢুকে লুটপাট চালায় দুষ্কৃতকারীরা। বাদ যায়নি নর্ডস্ট্রম ডিপার্টমেন্টাল স্টোরও। এসব দোকান থেকে বড় বড় ব্যাগ ও বক্স নিয়ে পালিয়ে যেতে দেখা গেছে কয়েকজনকে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে শনিবার রাত ৮টা থেকে ভোর সাড়ে ৫টা পর্যন্ত কার্ফু জারি করা হয় লস এ্যাঞ্জেলসে। বেভারলি হিলসে রাতভর টহল দিয়েছেন বাড়তি পুলিশ সদস্যরা। এ সময় সবাইকে ঘরে থাকার আহ্বান জানান শহরের মেয়র লেস্টার ফ্রায়েডম্যান। লস এ্যাঞ্জেলসের পুলিশ প্রধান মিশেল মুর বলেছেন, তিনি মানুষের রাগ ও হতাশা বুঝতে পারছেন। তা সত্ত্বেও শহরের নিরাপত্তা বজায় রাখতে সব ধরনের পদক্ষেপ নেয়া হচ্ছে। লুট হওয়া নর্ডস্ট্রম স্টোরের বাইরে দাঁড়িয়ে তিনি বলেন, এটা কোন সমাধান নয়। আমরা লস এ্যাঞ্জেলসের মানুষের ওপর আশা হারাইনি, আমাদের ওপরও তাদের আশা হারানো উচিত নয়। আমরা এ সঙ্কট কাটিয়ে উঠব। স্থানীয় টেলিভিশন চ্যানেল কেএবিসি টিভি জানিয়েছে, শনিবার রাতের সহিংসতায় পাঁচ শতাধিক মানুষকে গ্রেফতার করা হয়েছে। জানা যায়, মিনেসোটা অঙ্গরাজ্যের মিনিয়াপোলিস শহরে এক রেস্তরাঁয় নিরাপত্তাকর্মীর কাজ করতেন ফ্লয়েড।

আমার মন ভেঙ্গে দিয়েছে ॥ ওবামা

শ্বেতাঙ্গ পুলিশের হাতে ফ্লয়েডের নির্মমভাবে খুন হওয়ার ঘটনায় মুখ খুলেছেন সাবেক মার্কিন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা। এক বিবৃতিতে তিনি বলেছেন, পুলিশের হাতে জর্জ ফ্লয়েডের নির্মম হত্যাকাণ্ড ২০২০ সালে আমেরিকায় ‘স্বাভাবিক’ বিষয় হতে পারে না। আমি ভিডিওটি দেখেছি। ওই দৃশ্য আমার মন ভেঙ্গে দিয়েছে। আমাদের মনে রাখতে হবে, এখনও লাখ লাখ মানুষকে বর্ণবৈষম্যের শিকার হয়ে নিগৃহীত হতে হয়। আমেরিকাকে অবশ্যই ভাল হতে হবে। গত শুক্রবার এক টিভি সাক্ষাতকারে ওবামা এভাবেই তার প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করেন। করোনাভাইরাস ছড়িয়ে পড়ে মহামারীর মধ্যে মানুষ স্বাভাবিক পরিস্থিতির জন্য উদগ্রীব হয়ে আছে। তখন এই মর্মান্তিক হত্যাকাণ্ড ঘটল। ফ্লয়েডের মৃত্যুর মধ্য দিয়ে সংখ্যালঘু বর্ণ সম্প্রদায়ের বিরুদ্ধে পুলিশের নৃশংসতা আবার সামনে এসেছে। দেশটিতে পুলিশের গুলিতে ২০১৯ সালে মারা গেছেন এক হাজারের বেশি মানুষ। বিভিন্ন জরিপে দেখা গেছে, পুলিশের গুলিতে নিহতদের মধ্যে তুলনামূলকভাবে বেশিরভাগই কৃষ্ণাঙ্গ। ম্যাপিং পুলিশ ভায়োলেন্স নামে একটি বেসরকারী সংস্থার চালানো জরিপে দাবি করা হয়েছে যে, যুক্তরাষ্ট্রে পুলিশের গুলিতে শ্বেতাঙ্গদের তুলনায় তিনগুণ বেশি মারা যান কৃষ্ণাঙ্গরা।

সিএনএন কার্যালয় ভাংচুর ॥ জর্জিয়ার রাজধানী আটলান্টায় সিএনএনের প্রধান কার্যালয়ে ভাংচুর চালাচ্ছে বিক্ষুব্ধ জনতা। কৃষ্ণাঙ্গ হতার প্রতিবাদে শুক্রবার সংবাদমাধ্যমটির প্রধান কার্যালয়ের সামনে জড়ো হয়ে বিক্ষোভ দেখান সংগঠিত বিক্ষোভকারীরা। এক পর্যায়ে অফিস লক্ষ্য করে পানির বোতল ও অন্যান্য জিনিস ছুড়ে মারেন। কয়েকজন দেয়ালে বসানো সিএনএনের বড় লোগোর ওপরে উঠে পড়েন।

শীর্ষ সংবাদ:
‘করোনা সাহেদের’ জমি প্রতারণা         ইতালি ফেরতদের ১৪৭ জন আশকোনায় কোয়ারেন্টাইনে         নির্বাচন কমিশন নিয়ে ফখরুলের বক্তব্য ষড়যন্ত্রমূলক ॥ কাদের         রিজেন্ট সিলগালা করার সময় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীকে ফোন দিয়েছিল সাহেদ         মায়ের কবরের পাশে সাহারা খাতুনের লাশ আজ দাফন         করোনা রোধে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার অনুরোধ পররাষ্ট্রমন্ত্রীর         করোনায় দেশে এ পর্যন্ত সুস্থ হয়েছেন ৮৬,৪০৬ জন         ইরানে ফের সর্বোচ্চ মৃত্যু         আন্তঃজেলা রুটে দোতলা বাস নামাতে পারছে না বিআরটিসি         দ্বিতীয় দফায় বন্যার প্রকোপ শুরু, নিম্নাঞ্চল প্লাবিত         চট্টগ্রামে ফের কিট সঙ্কট ॥ নমুনা পরীক্ষা নেমে এসেছে অর্ধেকে         হালদায় পোনা উৎপাদনে এবার রেকর্ড সাফল্য         ইলিশে ভর করে কমছে সব মাছের দাম         দেশে ফিরলেন মালদ্বীপে আটকে পড়া ১৫৭ জন         উদ্ভাবনকে সর্বোচ্চ গুরুত্ব দিচ্ছে সরকার ॥ পলক         রাষ্ট্রপতির ছোট ভাই করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত, সিএমএইচে ভর্তি         সাহেদকে ছাড় দেয়ার প্রশ্নই আসে না ॥ স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী         ইসি নিয়ে ফখরুলের বক্তব্য উদ্দেশ্যপ্রণোদিত ও ষড়যন্ত্রমূলক ॥ কাদের         মাদকদ্রব্যের তালিকায় টাপেন্টাডলকে যুক্ত করে গেজেট প্রকাশ         রূপালী ইলিশে ভর করে কমছে দেশী মাছের দাম        
//--BID Records