মঙ্গলবার ১৮ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭, ০২ জুন ২০২০ ঢাকা, বাংলাদেশ
প্রচ্ছদ
অনলাইন
আজকের পত্রিকা
সর্বশেষ

রাজশাহীতে নেসকোর ভুতুড়ে বিলে নাজেহাল নগরবাসী

রাজশাহীতে নেসকোর ভুতুড়ে বিলে নাজেহাল নগরবাসী

স্টাফ রিপোর্টার, রাজশাহী ॥ উত্তরাঞ্চলে বিদ্যুৎ সরবরাহকারী সেবা সংস্থা ‘নর্দান ইলেকট্রিসিটি সাপ্লাই কোম্পানী’র (নেসকো) ভুতুড়ে সেবায় ভোগান্তিতে পড়েছে এ অঞ্চলের মানুষ। জবাবদিহীতা ছাড়ায় চলে নেসকোর কার্যক্রম। আর বিদ্যুৎ বিলের ভোগান্তি সবচেয়ে অসহনীয়। ঘরে বসেই ইচ্ছেমত বিল তৈরীর কারনে নাজেহাল হচ্ছে সাধারণ মানুষ।

এখন করোনাকালেও নেসকোর ভোগান্তি কম নেই। গেল এপ্রিল মাসের বিদ্যুৎ বিল নিয়ে চরম ভোগান্তিতে পড়েছেন নগরবাসি। মিটার রিডিং না দেখে অফিস থেকে মনগড়া বিদ্যুতের বিল করার জন্য হয়রানির শিকার হতে হচ্ছে গ্রাহকদের। এতে কারো কারো ১০ গুন পর্যন্ত বিদ্যুতের বিল দেকানো হয়েছে। পুরো এপ্রিল মাসে বন্ধ থাকা একটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের এপ্রিল মাসের বিল এসেছে ৬৯ হাজার ১৮০ টাকা। অথচ মার্চ মাসে ওই প্রতিষ্ঠানের বিল ছিলো মাত্র ৫ হাজার ২০০ টাকা।

প্রতিনিয়ত এমন ঘটনা ঘটলেও কোনো সুরাহা হচ্ছে না। গ্রাহকরা একের পর অভিযোগ দিয়েও কোনো প্রতিকার পাচ্ছেন না। নগরীর শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকলেও বিল করা হয়েছে কয়েকগুন। তবে নেসকো কর্তৃপক্ষ বলছেন, প্রিন্ট মিসটেকের কারণে এমন ভুল হয়েছে।

সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, রাজশাহীতে নেসকোর অধিনে প্রায় দুই লাখ গ্রাহক রয়েছে। এরমধ্যে অনেক গ্রাহক এপ্রিল মাসের বিল বিষয়ে অভিযোগ দিয়েছেন। অধিকাংশ ক্ষেত্রেই এবার গ্রাহকদের বিদ্যুতের বিল বেশি করা হয়েছে। বিদ্যুৎ বিল দেয়া হলেও মিটার রিডিং দেখা হয়নি। অফিসে বসে মনগড়া ভাবে তৈরি করা বিদ্যুৎ বিল গ্রাহকরা পেয়েছেন। এতে দেখা গেছে মার্চ মাসে যে গ্রাহকের ১ হাজার টাকা বিল এসেছে, এপ্রিল মাসে তা দাঁড়িয়েছে ১৫শ’ থেকে তিন হাজার পর্যন্ত।

নগরীর শিক্ষা স্কুল অ্যান্ড কলেজ লকডাউনের আগে থেকে বন্ধ রয়েছে। স্কুলে জ্বলে না লাইট, ঘোরে না ফ্যান। তারপরও মার্চ মাসে এই প্রতিষ্ঠানে বিদ্যুৎ বিল দেয়া হয়েছে ৫ হাজার ২০০ টাকা, পরের মাস এপ্রিলে বিদ্যুৎ বিলের পরিমান এসে দাঁড়িয়েছে ৬৯ হাজার ১৮০ টাকা। এর আগের ফেব্রুয়ারিতে বিল দেয়া হয়েছিল ৪ হাজার ৩০০টাকা।

নগরীর তালাইমারী এলাকার গ্রীণ ফিল্ড স্কুলে এপ্রিল মাসের বিল দেয়া হয়েছে একটি মিটারে ২৭ টাকা ও অপর একটি মিটারে ২৯ টাকা। যদিও এই প্রতিষ্ঠানের পক্ষে এই পরিমান বিল আসার পর দ্রুত পরিশোধ করা হয়েছে।

এছাড়াও নগরীর ষষ্টিতলা মসজিদের সামনের একটি বাড়ির মালিক জাহিদ হোসেনের মার্চ মাসে বিল আসে ১৫শ’ টাকা। কিন্তু এপ্রিল মাসের বিল দেয়া হয়েছে ৩৫শ’ টাকা। তিনি তার ওই বাড়িটি ছাত্রাবাস হিসাবে ব্যবহার করেন। মার্চ মাসের আগেই শিক্ষার্থীরা চলে গেছেন। যার কারণে সন্ধ্যার লাইটটিও জ্বলে না বাসায়। তারপরও এই বিল দেখে তিনি হতবাক।

নগরীর শিক্ষা স্কুল অ্যান্ড কলেজের অধ্যক্ষ ইব্রাহীম হোসেন জানান, নেসকোর বিদ্যুৎ বিলের উপর লেখা রয়েছে ‘দেশ প্রেমের শপথ নিন, দুর্নীতিকে বিদায় দিন’, কিন্তু নেসকো নিজেই দুর্নীতি ও ভুলে ভরা প্রতিষ্ঠানে পরিনত হয়েছে। তিনি জানান, বিদ্যুৎ বিল কমবেশি হতে পারে। কিন্তু এতো কমবেশি মেনে নেয়ার মত না। তিনি জানান, ফেব্রুয়ারিতে নেসকো বিল স্বাভাবিকের চেয়ে এক হাজার টাকা বেশি দেয়। পরের মাস মার্চে আবারো এক হাজার বাড়িয়ে দেয়। কিন্তু এপ্রিলে এসে ৬৯ হাজার ১৮০ টাকা কী করে হলো।

একই কথা জানান, ষষ্টিতলার জাহিদ হাসান। তিনি অভিযোগ করেন, বাসার ভেতর মিটার। যদি বিদ্যুৎ অফিসের লোকজন মিটার রিডিং দেখতে আসে তাহলে তাদের ডাকতে হবে। কিন্তু গত চারমাসে নেসকো অফিস থেকে কেউ মিটার রিডিং দেখতে আসেনি। অফিস থেকেই মনগড়াভাবে বিল দেয়া হচ্ছে বলেও তিনি অভিযোগ করেন।

এ নিয়ে নেসকোর নির্বাহী প্রকৌশলী শরিফুল ইসলাম জানান, করোনা ভাইরাসের কারণে আগের মাসের বিল দেখে সমন্বয় করে বিল করা হয়। কিন্তু এতো কমবেশি হওয়ার কোনো কারণ নেই। যেটা হয়েছে সেটা প্রিন্ট মিসটেক হতে পারে। তিনি বলেন, যাদের বিল বেশি এসেছে তারা অফিসে যোগাযোগ করলে বিল ঠিক করে দেয়া হবে।

শীর্ষ সংবাদ:
রেড, ইয়েলো, গ্রীন ॥ করোনা ঠেকাতে তিন জোনে ভাগ হচ্ছে         মানব পাচারকারী চক্রের অন্যতম হোতা হাজী কামাল গ্রেফতার         করোনায় আয় কমেছে ৭৪ শতাংশ পরিবারের ॥ ১৪ লাখের বেশি প্রবাসী শ্রমিক বেকার         পরিস্থিতির অবনতি হলে কঠিন সিদ্ধান্ত ॥ কাদের         ৬০ বছরের বেশি বয়সী রোগীর মৃত্যুহার সর্বোচ্চ         করোনা মোকাবেলায় ৪ প্রকল্প একনেকে উঠছে আজ         ১০ হাজার কোটি টাকার জরুরী তহবিল         স্বাস্থ্যবিধি মানা না মানার চিত্র         একসঙ্গে ২৫ শতাংশের বেশি কর্মীর অফিসে থাকা মানা         সঙ্কট মোকাবেলায় খাদ্য উৎপাদন আরও বাড়াতে হবে         চলমান ক্ষুদ্র ও বৃহৎ উন্নয়ন প্রকল্পের মেয়াদ বাড়ছে         শাহজালালসহ তিন বিমানবন্দর চেনা রূপে         গুজব রটনাকারীদের গ্রেফতারে বিশেষ অভিযান         কর্তব্যে অবহেলা করলে চাকরিচ্যুতি         দেশে গত ২৪ ঘণ্টায় করোনায় আরও ২২ জনের মৃত্যু, নতুন শনাক্ত ২৩৮১         জনগণের স্বার্থে যেকোনো সময়ে ঝটিকা পরিদর্শনে যাবো : মেয়র তাপস         অফিসে ২৫ শতাংশের বেশি কর্মকর্তার উপস্থিতে মানা         করোনা : প্রশাসনিক কাজে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের অফিস খোলার অনুমতি         সারাদেশকে লাল, সবুজ ও হলুদ জোনে ভাগ করা হবে : স্বাস্থ্যমন্ত্রী         আগামী ১৫ জুনের মধ্যে হজের বিষয়ে সিদ্ধান্ত        
//--BID Records