সোমবার ৪ মাঘ ১৪২৮, ১৭ জানুয়ারী ২০২২ ঢাকা, বাংলাদেশ
প্রচ্ছদ
অনলাইন
আজকের পত্রিকা

নীলফামারী বিআরটিএ অফিসে ভোগান্তি

স্টাফ রিপোর্টার, নীলফামারী ॥ সড়কে শৃঙ্খলা ফেরাতে কার্যকর হয়েছে নতুন সড়ক পরিবহন আইন-২০১৮। জরিমানার ভয়ে হউক বা আইনকে সম্মান জানাতে, যানবাহন মালিক ও চালকরা ছুটছেন বিআরটিএ অফিসে। তবে যানবাহনের রেজিস্ট্রেশন ও ড্রাইভিং লাইসেন্স করতে যাওয়া মানুষের হয়রানির যেন শেষ নেই। প্রক্রিয়া জটিল হওয়ায় এসব সেবা পেতে হয়রানির শিকার হতে হচ্ছে মানুষকে। সোমবার দুপুরে নীলফামারী বিআরটিএ অফিসের সামনে দেখা যায় উপচে পড়া ভিড়। গাড়ির মালিক ও চালকরা অভিযোগ করে জানায় জেলা সদরের কোন ব্যাংকে লাইসেন্সের টাকা জমা দেয়ার সুবিধা নেই। এর জন্য যেতে হয় ৩০ কিলোমিটার দূরে সৈয়দপুর উপজেলা শহরে। হয়রানি কমাতে প্রক্রিয়া আরও সহজ করার পাশাপাশি জেলা সদরসহ অন্যান্য ব্যাংকগুলোতেও এসব সেবা চালুর দাবি যানবাহন চালক ও মালিকদের। যানবাহনের রেজিস্ট্রেশন বা ড্রাইভিং লাইসেন্স এসব করতে কয়েক ধাপে ধর্ণা দিতে হয় যানবাহন মালিক ও চালকদের। এদিকে ভিড় বেড়ে যাওয়ায় সাধারণ ব্যাংকিং কার্যক্রমের পাশাপাশি লাইসেন্স ফি জমা নিতে হিমশিম খেতে হচ্ছে সৈয়দপুর শাখা শাহজালাল ইসলামী ব্যাংককে। ব্যাংকে ব্যবস্থাপক, মোহাম্মাদ করিমুল্লাহ জানান, জনবল সঙ্কটের মধ্যেও সেবা দিচ্ছি আমরা। জেলা বিআরটিএ অফিসের পরিদর্শক নুরুল ইসলাম জানান আমরা গাড়ির মালিক চালকদের সহজে কাজ করে দিচ্ছে। প্রতিদিন শতশত আবেদন পড়ছে। ফলে কাজের চাপ বেড়ে গেছে। এতে আগতদের একটু ভোগান্তি হতেই পারে। ব্যাংকে টাকা জমার বিষয়ে তিনি বলেন এখন অনলাইনে টাকা জমা দেয়ার ব্যবস্থা চালু করা হয়েছে। নীলফামারীর ট্রাফিক পুলিশ পরিদর্শক আজাদ হোসেন খান, গাড়ি ও ড্রাইভিং লাইন্সের প্রক্রিয়াটা আরও সহজ করা প্রয়োজন। মানুষজনের মাঝে এসবে আগ্রহ বেড়েছে।

শীর্ষ সংবাদ: