সোমবার ১১ মাঘ ১৪২৮, ২৪ জানুয়ারী ২০২২ ঢাকা, বাংলাদেশ
প্রচ্ছদ
অনলাইন
আজকের পত্রিকা

নিরাপত্তা ইস্যুতে আপোস

  • ট্রাম্পের বিরুদ্ধে ডেমোক্র্যাটদের অভিযোগ, রিপাবলিকানরা এখনও জোরালো প্রতিবাদ করেনি

মার্কিন সিনেটের ডেমোক্র্যাট সদস্যরা প্রতিপক্ষ রিপাবলিকান সিনেটরদের বোঝানোর চেষ্টা করছেন যে, প্রেসিডেন্ট ডোনান্ড ট্রাম্প জাতীয় নিরাপত্তার সঙ্গে আপোস করেছেন। ট্রাম্পের অভিশংসন প্রক্রিয়ায় কিছু প্রভাবশালী রিপাবলিকানকে পক্ষে টানতে ডেমোক্র্যাটরা এই পদক্ষেপ নিয়েছে। খবর টাইম ও সিএনএনের।

ট্রাম্পের বিরুদ্ধে চলমান অভিশংসন প্রক্রিয়ায় ডেমোক্র্যাটরা কখনই বলেননি যে, ট্রাম্পই একমাত্র যিনি পুনর্নির্বাচিত হতে ক্ষমতার অপব্যবহার করেছেন। তবে তারা প্রেসিডেন্ট হিসেবে জাতীয় নিরাপত্তাকে জলাঞ্জলি দেয়ার বিষয়টি সামনে এনেছেন। রিপাবলিকান শিবিরের উদারপন্থী অংশকে তারা বোঝাতে চাইছেন যে, প্রেসিডেন্ট হিসেবে ট্রাম্প নিরাপত্তা প্রশ্নে আপোস করতে পারেন না।

শুক্রবার সিনেটে ট্রাম্পের অভিশংসন শুনানিকালে এক ডেমোক্র্যাট সদস্য বলেন, ট্রাম্প প্রেসিডেন্ট হিসেবে ইউক্রেনের সঙ্গে যা করেছেন তা বেমানান। তিনি বলেন, যুক্তরাষ্ট্রের নিরাপত্তাকে বিকিয়ে দিয়ে তিনি নিজের স্বার্থসিদ্ধির চেষ্টা করেছেন। তিনি এ সময় তাকে কেন গদিচ্যুত করা উচিত-ডেমোক্র্যাটরা এর পক্ষে বহু যুক্তি তুলে ধরেন। গত বছরের ডিসেম্বরে ট্রাম্পের বিরুদ্ধে কয়েকজন সাক্ষীর দেয়া বক্তব্য দেখানো হয়। এ সময় ট্রাম্পের ব্যক্তিগত আইনজীবী রুডি জুলিয়ানির উদ্বেগের বিষয়টির ওপর বেশিমাত্রায় আলোকপাত করা হয়। জুলিয়ানি বলেন, ট্রাম্প ইউক্রেনের অস্ত্র সহায়তার প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান করে ক্ষমতা অপব্যবহার করেছেন। গত বছর ২৫ জুলাই ট্রাম্প ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেনস্কির সঙ্গে টেলিফোনে ইউক্রেনকে অস্ত্র সহায়তা দেয়ার বদলে ডেমোক্র্যাট নেতা জো বাইডেন ও তার ছেলের বিরুদ্ধে দুর্নীতি তদন্ত করতে বলেছিলেন। প্রতিনিধি পরিষদের গোয়েন্দা বিষয়ক কমিটির চেয়ারম্যান, ডেমোক্র্যাট নেতা এ্যাডাম শিফ শুক্রবার তার বক্তব্যে বলেন, প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প তার ক্ষমতার অপব্যবহার করেছেন-এটা আর বলার অপেক্ষা রাখে না। ট্রাম্প ইউক্রেনের প্রতি সহায়তা প্রত্যাহারের মাধ্যমে ট্রাম্প আসলেই নীতির সঙ্গে আপোস করেছেন বলে মনে করেন এ্যাডাম শিফ। শিফ এখন অভিশংসন কার্যক্রমের নেতৃত্ব দিচ্ছেন। তিনি বলেন, ইউক্রেন দীর্ঘদিন ধরে রুশ প্রেসিডেন্ট ভøাদিমির পুতিনের আগ্রাসী নীতির বিরুদ্ধে লড়ছে।

পুতিন ইতোমধ্যে ইউক্রেনের একটি অংশ কব্জা করেছেন। এখন সেখানে অস্ত্র সহায়তা প্রত্যাহার করে নিলে তাতে মূলত পুতিনের হাতই শক্তিশালী হবে। জেলেনেস্কি যখন ট্রাম্পের কাছে সামরিক সহায়তা চেয়েছেন ট্রাম্প তখন তার জন্য কিছুই করেননি। পরিবর্তে তিনি জেলেনেস্কির কাছে ব্যক্তিগত সুবিধা চেয়েছেন। শিফের বক্তব্যে রিপাবলিকানদের মনোভাব পরিবর্তনের লক্ষণ দেখা যায়নি। সিনেটের রিপাবলিকান নেতা জন বারাসো বলেন, ‘আমরা জানি ইউক্রেনের জন্য অস্ত্র সহায়তা কতটা গুরুত্বপূর্ণ ছিল। কিন্তু সাবেক প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামাও একই পদক্ষেপ নিয়েছিলেন।’ গত কয়েকদিন ধরে সিনেটে ট্রাম্পের অভিশংসন নিয়ে তুমুল আলোচনা চললেও রিপাবলিকানদের একটি বড় অংশের মধ্যে তেমন পরিবর্তন দেখা যায়নি। তবে ট্রাম্পের অভিসংশন প্রক্রিয়ায় রিপাবলিকান শিবিরের একটি উদারপন্থী অংশ ভূমিকা রাখতে পারে। কলোরাডো, আইওয়া ও নর্থ ক্যারোলাইনার মতো কিছু দোদুল্যমান অঙ্গরাজ্যের নেতারা ইঙ্গিত করেছেন যে, ট্রাম্পের প্রতি এখন তাদের আর তেমন আস্থা নেই। আইওয়ার রিপাবলিকান সিনেটর জনি আর্নেস্ট শুক্রবার বলেন, আমরা হয়ত অনেক কিছুই জানি না। তবে যা শুনেছি তা ট্রাম্পকে অভিশংসনযোগ্য। ট্রাম্প প্রেসিডেন্টের ক্ষমতা খাটিয়ে কিছু অনৈতিক কাজ করেছেন। মিসোরি অঙ্গরাজ্যের রিপাবলিকান সিনেটর জশ হাউলি বলেন, ‘যা শুনলাম তা খুবই গুরুতর’। তিনি বলেন, এখন ট্রাম্প শিবিরের উচিত হবে-জাতির কাছে স্পষ্ট করা যে তিনি কেন ইউক্রেনের অস্ত্র সহায়তা প্রত্যাহার করেছিলেন।

সিনেটে ট্রাম্পের বিবাদী পক্ষের প্রধান জে শেকুলো শুক্রবার বলেন, ‘অনেক সময় সামান্য জিনিসও গুরুত্বপূর্ণ হয়ে উঠে। তিনি বলেন, মূল সিদ্ধান্তের জন্য আমাদের সবার বক্তব্য আগে শুনতে হবে। আমরা পূর্ণ সময় ধরে আগে আমাদের বক্তব্য উপস্থাপন করব।’

শীর্ষ সংবাদ: