বুধবার ২৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৮, ০৮ ডিসেম্বর ২০২১ ঢাকা, বাংলাদেশ
প্রচ্ছদ
অনলাইন
আজকের পত্রিকা
সর্বশেষ

বিলুপ্তির পথে গ্রামীণ জনপদের কাছারি ঘর

প্রায় সকল গ্রামের অধিকাংশ বাড়িতেই ছিল কাছারি ঘর। আর এই কাছারি ঘর ছিল গ্রাম বাংলার ইতিহাস ঐতিহ্য, কৃষ্টি ও সংস্কৃতির অংশ। কিন্তু কালের বিবর্তনে এই কাছারি ঘর সংস্কৃতি যেন হারিয়ে যাচ্ছে।

গেস্টরুম বা ড্রয়িং রুম আদি ভার্সন কাছারি ঘর এখন আর গ্রামীণ জনপদে দেখা যায় না। মূলবাড়ি থেকে একটু বাইরে আলাদা খোলামেলা ঘর। অতিথি, পথচারী কিংবা সাক্ষাতপ্রার্থী এই ঘরে এসে বসেন। প্রয়োজনে এক-দুই রাত যাপনেরও ব্যবস্থা থাকে কাছারি ঘরে। মিরসরাই উপজেলার মঘাদিয়া ইউনিয়নের শান্তা মিয়া কাজী বাড়ির সামনে এমন একটি কাছারি ঘর দেখা যায়। বাড়ির জনৈক প্রবীণ ব্যক্তিত্ব আজম খান বলেন, আমাদের বাড়ি ও পুরনো বাড়ির একটি। আধুনিকতার ছোঁয়া এই বাড়ির অনেক ঘরে লাগলেও পুরনো সংস্কৃতির এই কাছারি ঘর আমরা এখনো স্মৃতি হিসেবে ধরে রেখেছি।

কাছারি ঘর ছিল বাংলার অবস্থাসম্পন্ন গৃহস্থের আভিজাত্যের প্রতীক। কাঠের কারুকাজ করা টিন অথবা শনের ছাউনি থাকত কাছারি ঘর। আলোচনা সালিম বৈঠক গল্প আড্ডার আসর বসত কাছারিঘর ঘিরে। বর্ষাকালে কাছারি ঘরে বসে পুঁথিপাঠ, শায়ের শুনে মুগ্ধ হতেন শ্রোতা।

পথে চলাচলরত পথচারীরা কাছারি ঘরে একটু জিরিয়ে নিতেন। বিপদে পড়লে রাতযাপনের ব্যবস্থা থাকত এখানে। বাড়ির ভিতর থেকে খাবার পাঠানো হতো কাছারি ঘরের অতিথির জন্য। আবাসিক গৃহশিক্ষকের (লজিং মাস্টার) কাছারি ঘরেই থাকতেন। সকাল বেলা মক্তব হিসেবে ব্যবহৃত হতো এই কাছারি ঘর।

এখন আর কাছারি ঘর তেমন চোখে পড়ে না। তবু গ্রামে এখনো দেখা যায় কাছারি ঘর। অনেকেই বাপদাদার ঐতিহ্য হিসেবে ধরে রেখেছেন কাছারি ঘর।

এরকম আরও একটি কাছারিঘর পাওয়া গেল ৯নং সদর ইউনিয়নের মঠবাড়িয়া গ্রামের মনজুর মোর্শেদ কনক ভূঁঞারবাড়িতে। ঐতিহ্যবাহী এই ভূঁঞাবাড়িতে এখনো একটি কাছারি ঘর আছে। ঘরটি আগে সনের ছাউনি ছিল। ছিল কাঠের দৃষ্টিনন্দন কারুকাজ। শন এখন পাওয়া যায় না। তাই টিন আর ইটের দেয়াল দিয়ে কাছারিঘরটির অস্তিত্ব¡ টিকিয়ে রাখা হয়েছে।

৯নং মিরসরাই সদর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান এমরান উদ্দিন জানান, পুরনো ঐতিহ্য হিসেবে কাছারিঘর সংরক্ষণ করা হচ্ছে এখনো অনেক গ্রামের বাড়িতে। পূর্ব পুরুষদের নানা স্মৃতি বিজড়িত এই কাছারিঘর সত্যিই প্রাচীনতার বার্তা বহন করে। ঈশা খাঁর আমলে কর্মচারীদের খাজনা আদায়ের জন্য অনেক কাছারি ছিল এই অঞ্চলে। পরবর্তীতে আভিজাত্যের প্রতীক। তিনি বলেন আমাদের ও প্রয়োজন সামর্থ্য অনুযায়ী এই কালের স্মৃতি ধরে রাখা।

রাজিব মজুমদার, মিরসরাই, চট্টগ্রাম থেকে

শীর্ষ সংবাদ:
আবরার হত্যা ॥ যাদের ফাঁসি ও যাবজ্জীবনের রায় হলো         কর্মক্ষেত্রে যৌন হয়রানি বন্ধে ছয় দফা দাবি         ছাত্রদল থেকেই এসব শিখে এসেছে মুরাদ ॥ হানিফ         রায় কার্যকর হলে আরও খুশি হব ॥ আবরারের বাবা         একজন সৃষ্টিশীল শিক্ষক বিশ্ববিদ্যালয়কে আলোকিত করতে পারে ॥ ইবি ভিসি         মালিক-শ্রমিকের সম্পর্ক অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ ॥ প্রধানমন্ত্রী         নেত্রকোনা ট্রাজেডি দিবসে পাঁচ মিনিট নীরবতা পালন         ফেনী নদীতে চলছে মুহুরী সেতু নির্মাণ কাজ         মহিলা হোস্টেলসহ ৮ স্থাপনা উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী         জিয়ার শাসনামলে মুক্তিযোদ্ধাদের হত্যা করা হয়েছে নির্বিচারে ॥ দীপু মনি         ভিত্তিহীন অভিযোগে আবরারকে হত্যা ॥ পর্যবেক্ষণে বিচারক         পটুয়াখালীতে শুরু হলো মুক্তির বিজয় উৎসব         মধ্যাহ্ন বিরতিতে বাংলাদেশ         বুয়েট শিক্ষার্থী আবরার হত্যা ॥ ২০ জনের মৃত্যুদণ্ড         আবরার হত্যা ॥ আসামিদের বিরুদ্ধে রায় পড়া শুরু         নীলফামারীতে ট্রেনে কাটা পড়ে একই পরিবারের ৩ শিশুসহ ৪ জন নিহত         জবি কেন্দ্রে দ্বিতীয় ডোজ টিকা পেল ১৪০৬ জন শিক্ষার্থী         আজ শায়েস্তাগঞ্জ ও আজমিরীগঞ্জ পাকসেনা মুক্ত হয়েছিল         ডাক্তার মুরাদের এমপি পদের বৈধতা নিয়ে রিট         বুয়েট শিক্ষার্থী আবরার হত্যা ॥ মামলার ২২ আসামি আদালতে